শনিবার ১১ আশ্বিন ১৪২৭, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আইএস মুক্ত মসুলে হার না মানা নারী সানা

  • ২২ নাতি-নাতনি নিয়ে তার কঠোর সংগ্রাম

মসুল নগরী এক বছর আগেই ইসলামিক স্টেটের (আইএস) কবল থেকে মুক্ত হয়েছে। কিন্তু তাদের চালানো অত্যাচার-উৎপীড়নের শিকার হওয়া পরিবারগুলোকে এখনও প্রবলভাবে তার জের টানতে হচ্ছে। সানা ইব্রাহীম তেমনই এক নারী। বয়স তার ৬১ বছর। কিন্তু তাকে ২২ নাতি-নাতনির মুখের আহার যোগাড়ের জন্য প্রতিদিনই কঠোর সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হচ্ছে। শহরটি জিহাদীদের দখলে থাকাকালে এই নারী তার পরিবারের পাঁচ সদস্যকে হারিয়েছেন। কিন্তু কখনও হার মানেননি। পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই করে যাচ্ছেন। কালো লম্বা পোশাক পরা এই নারীকে ঘিরে রয়েছে ছোট ছোট শিশু। মেয়েদের চুল সুন্দর বাঁধা, আর ছেলেরা রঙিন টিশার্ট পরা। সবচে ছোটটির বয়স মাত্র দুই বছর। এদিকে তার স্বামী মোয়াফাক হামিদের (৭১) প্রতিও তাকে লক্ষ্য রাখতে হয়। এর বাইরে বাড়ির ৩২ সদস্যের সকলের জন্য আহার যোগাড় তার জন্য এক কঠিন চ্যালেঞ্জ। মসুল তিন বছর ধরে জিহাদীদের দখলে ছিল। এ সময় তার দুই ছেলে ফারেস ও গাজওয়ান ও মেয়ের জামাই মাসুদকে অপহরণ করে আইএস। খবর এএফপির।

এরা প্রত্যেকেই একটি নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য। আইএস বাহিনীকে শত্রু মনে করে। সানা বলেন, আইএস সম্ভবত তার প্রিয়জনদের হত্যা করেছে। তিনি তাদের লাশ পাবার অপেক্ষায় আছেন। আইএস-এর দখলদারিত্বের সময় তারা কয়েক শ’ সরকারী সৈন্য ও পুলিশ সদস্যকে ধরে নিয়ে হত্যা করেছে। এরপর তাদের লাশ নগরীর উত্তরাঞ্চলে গণকবরে চাপা দিয়েছে। ২০১৬ সালে ইরাকী বাহিনী মসুল পুনরুদ্ধারে কয়েকমাস ধরে জিহাদীদের সঙ্গে লড়াই করে। এরপর ২০১৭ সালের জুলাই মাসে সরকারী বাহিনী নগরী থেকে জিহাদীদের উৎখাতে সমর্থ হয়।

সানার অপর দুই সন্তান যুদ্ধে নিহত হয়েছে। তার ২০ বছর বয়সী ছেলে ইউসেফ ও তার মেয়ে নূর (১৮) যুদ্ধে নিহত হয়েছে। ওল্ড সিটি থেকে পালানোর সময় তারা প্রাণ হারায়। মসুলের ঐতিহাসিক পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকা যুদ্ধে প্রায় ধ্বংস হয়ে গেছে। সানার বাড়ি ধ্বংস হয়ে যাওয়ার পর তাকে ও তার পরিবারকে টিকে থাকার জন্য অন্যত্র চলে যেতে হয়েছে। তারা তখন নগরীর পূর্ব পাশে চলে আসে। মাসিক পাঁচ লাখ দিনার ভাড়ায় তারা ১৫০ বর্গমিটারের একটি বাসায় ওঠে। বেঁচে থাকা সানার অপর চার সন্তান বেকার। তাই এই বাসা ভাড়া যোগাড় করতে সানাকে যথেষ্ট বেগ পেতে হয়। তিনি বলেন, আমরা মসুলে দুর্গতদের জন্য সহায়তা দানকারীদের প্রতি কৃতজ্ঞ। এই দাতাদের সাহায্য ছাড়া আমাদের ক্ষুধা ও অসুখে মারা যেতে হতো।

এমন একজন দাতা এএফপির প্রতিনিধির নজরে পড়েন। তিনি একটি দাতব্য সংস্থায় খাবার ও পোশাক ভর্তি ব্যাগ নিয়ে আসেন। এক সরকারী কর্মকর্তা বলেন, ওই নারী তার ছেলের বেতনের একটি অংশ সানার পরিবারের সদস্যদের সহায়তায় দান করেন। ছোট রান্নাঘরে সানা ও তার ছোট ছেলের স্ত্রী শিশুদের জন্য রান্না করছিলেন। ব্যস্ততার মধ্যেও সানা উজ্জ্বল ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখেন। তিনি তার নাতি-নাতনিদের উচ্চ শিক্ষিত হয়ে ভাল চাকরি পাবার আশা করেন।

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
৩২৭৯৪৪০৭
আক্রান্ত
৩৫৭৮৭৩
সুস্থ
২৪১৯৩২৯৩
সুস্থ
২৬৮৭৭৭
শীর্ষ সংবাদ:
পাবনা-৪ আসনে ৭৫ কেন্দ্রের বেসরকারী ফলাফলে আওয়ামীলীগের নুরুজ্জামানের জয়         সবার সুরক্ষা চাই ॥ বিশ্বসভায় প্রধানমন্ত্রী         সোমবার প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ১০ টিভিতে ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’         ভাঙলো গণফোরাম ॥ ২৬ ডিসেম্বর কাউন্সিলের ঘোষণা সাইয়িদ-মন্টু পক্ষের         ডোপ টেস্ট পজিটিভ হওয়ায় ২৬ পুলিশ সদস্যকে চাকরিচ্যুত করা হবে-ডিএমপি কমিশনার         করোনা ভাইরাসে আরও ৩৬ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১১০৬         ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ ॥ প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ         দেশকে উন্নয়নের পথে এনেছেন আজকের প্রধানমন্ত্রী॥ পররাষ্ট্রমন্ত্রী         পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচন ॥ বাতিলের দাবি বিএনপি প্রার্থীর         অতিরিক্ত সচিবে পদোন্নতি করা হল ৯৮ যুগ্ম-সচিবকে         এমসি কলেজে গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনায় ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা         বাংলাদেশিসহ ২২ জন উদ্ধার, ১৬ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা         আগামী ৩ দিন ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা         জাতীয় সংসদের হুইপ, শেরপুর-১ আসনের সাংসদ আতিক করোনায় আক্রান্ত         হয়তো কয়েক মাসেও জানা যাবে না জয়ী কে ॥ ট্রাম্প         নীলা হত্যা মামলার প্রধান আসামি মিজানুর গ্রেফতার         পাবনার উপনির্বাচনে কেন্দ্রে বিএনপির এজেন্ট প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি- রিজভী         ইউক্রেনে সামরিক বিমান বিধ্বস্ত হয়ে নিহত ২৫         করোনা ভাইরাসের টিকা মিললেও বিশ্বজুড়ে মৃত্যু ২০ লাখ ছাড়াতে পারে