মঙ্গলবার ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আড়াই লাখ টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত

আড়াই লাখ টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ এক হাজার ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে আড়াই লাখ টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সরকার টু সরকার (জি-টু-জি) পদ্ধতিতে থাইল্যান্ড থেকে দেড় লাখ টন নন-বাসমতি সিদ্ধ চাল আমদানি করা হবে। আর জাতীয় উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে ১৭টি প্রতিষ্ঠান আমদানি করবে ১ লাখ টন নন-বাসমতি সিদ্ধ চাল। এছাড়া দেশী উদ্যোক্তাদের বিদেশে বিনিয়োগের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এর মধ্যদিয়ে আকিজ গ্রুপ বিদেশে বিনিয়োগের সুযোগ পেল।

বুধবার বিকেলে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান। দুপুরে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব জানান, জি-টু-জি পদ্ধতিতে থাইল্যান্ড থেকে আমদানি করা প্রতি টন চালের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৪৬৫ ডলার। এই দরে দেড় লাখ টন চাল আমদানি করতে মোট খরচ হবে বাংলাদেশী টাকায় ৫৭৮ কোটি ৯২ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় অনুমোদনের জন্য এই ক্রয়প্রস্তাবের সার-সংক্ষেপে বলা হয়েছে, চালের জরুরি প্রয়োজনীয়তার কথা বিবেচনায় নিয়ে থাই কর্তৃপক্ষকে দেড় লাখ টন নন-বাসমতি সিদ্ধ চাল এলসি খোলার ৯০ দিনের মধ্যে সরবরাহের সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, সরকারী পর্যায়ে খাদ্যশস্য ক্রয়ের চুক্তি হলে তা সরবরাহ পাওয়ার ক্ষেত্রে অনিশ্চয়তা থাকে না। বর্তমান পর্যায়ে সরকারী ভান্ডারে খাদ্য মজুদ বাড়িয়ে সরবরাহ নিশ্চিত করা, জনসাধারণের মধ্যে খাদ্য বিতরণ কর্মসূচি সম্প্রসারণের মাধ্যমে খাদ্য নিরাপত্তাবলয় সুসংহত করা, সরকারের নির্ধারিত বিতরণ চ্যানেল নির্বিঘ্নভাবে পরিচালনা করা এবং খাদ্যশস্যের বাজারমূল্য স্থিতিশীল রাখার জন্য জরুরী ভিত্তিতে সরকারি পর্যায়ে খাদ্যশস্য আমদানির প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।

এদিকে অপর এক প্রস্তাবনায় জাতীয় উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে ১ লাখ টন নন-বাসমতি সিদ্ধ চাল আমদানি করার অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, জাতীয় উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে বৈদেশিক উৎস থেকে আমদানিতব্য প্যাকেজ-১ এর আওতায় ১ লাখ টন চাল আমদানি করা হবে।

জানা গেছে, প্রতিটন ৪৩ হাজার ৭২০ টাকা থেকে ৪৫ হাজার ২৭০ টাকা হাওে দেশের ৩৮টি কেন্দ্রে (লটে) ২টি প্রতিষ্ঠান এই চাল সরবরাহ করবে। ১ লাখ টন চাল আমদানিতে মোট ৪৩৮ কোটি ২২ লাখ ৪৮ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হবে।

খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বন্যা ও বৃষ্টির কারণে রোগের কারণে এ বছর চাহিদার তুলনায় চাল কম উৎপাদন হওয়ায় দেশে চালের বাজারে অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। এ অবস্থায় জি-টু-জি পদ্ধতিতে চাল আমদানির উদ্যোগ নিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।

উল্লেখ্য, ভিয়েতনাম থেকে আড়াই লাখ টন চাল সরবরাহ প্রক্রিয়া শেষ পর্যায়ে রয়েছে। কম্বোডিয়ার কাছ থেকে আড়াই লাখ টন চাল আমদানির চুক্তি হওয়ার পর ঋণপত্র খোলা হয়েছে। এ ছাড়া মিয়ানমার থেকে এক লাখ টন চাল আমদানির চুক্তি চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। এছাড়া বেসরকারী পর্যায়ে চাল আমদানির ক্ষেত্রে শুল্ক ২৮ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৩ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত ১৯ অক্টোবর পর্যন্ত সরকারের গুদামে ৩ লাখ ৯৬ হাজার টন চাল এবং ১ লাখ ৩ হাজার টন গমসহ মোট খাদ্যশস্য মজুদের পরিমাণ ৪ লাখ ৯৯ হাজার টন।

শীর্ষ সংবাদ:
আজ নালিতাবাড়ী পাক হানাদার মুক্ত দিবস         বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে ॥ স্পিকার         ভারতের জয়পুরে ৯ জনের দেহে ওমিক্রন শনাক্ত         ঢাকায় পৌঁছেছেন ভারতের পররাষ্ট্রসচিব শ্রিংলা         বৃষ্টি থেমেছে, মিরপুর টেস্টের চতুর্থ দিনের খেলা শুরুর সম্ভাবনা         গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মারা গেছেন ৫ হাজার ২৮০ জন         শীর্ষে যাবে রফতানিতে ॥ গার্মেন্টস শিল্পে ঈর্ষণীয় সাফল্য         ঢাকা-দিল্লী সম্পর্ক আস্থা ও শ্রদ্ধায় বিস্তৃত         ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার ১১ মাসের মাথায় সুচির কারাদণ্ড         বিশ্বজুড়ে শান্তির বার্তা ছড়িয়ে দিচ্ছেন শেখ হাসিনা         অভিযুক্ত কর্মকর্তাদের সচিব পদোন্নতি দেয়ার প্রক্রিয়া!         বিজয়ের মাস         জাওয়াদ দুর্বল হয়ে লঘুচাপে রূপ নিয়েছে         ৪৩ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে রিপোর্ট দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ         অরাজকতা সৃষ্টির নীলনক্সা জামায়াতের         আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জনের সূচনা ৬ ডিসেম্বর         বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী ছিন্ন করা যাবে না         বন্ড সুবিধার অপব্যবহার, ২৭৫ কোটি ৩২ লাখ টাকার ভ্যাট ফাঁকি         বিএনপি রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে         সমিতি সংগঠন খুলে ফায়দা লুটে নিচ্ছে বিশেষ শ্রেণী