বৃহস্পতিবার ১৪ মাঘ ১৪২৮, ২৭ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

হাল ফ্যাশনে লেদার জ্যাকেট

শীতের অন্যান্য পোশাকের পাশাপাশি আলাদাভাবে জ্যাকেটের চাহিদা অনেক আগে থেকেই রয়েছে। তবে প্রতি বছর জ্যাকেটের মান এবং স্টাইলে পরিবর্তন আসায় উঠানামা হচ্ছে চাহিদারও। শীতে তরুণদের সবচেয় পছন্দের তালিকায় রয়েছে জ্যাকেট। অন্যান্য শীতের পোশাকের চেয়ে জ্যাকেট বেশ স্মার্ট এবং স্টাইলিশ তরুণদের কাছে। তুলা কাপড়, জিন্স কাপড়. গ্যাবাডিং, এয়ার প্রুফ, লেদারের জ্যাকেটসহ বিভিন্ন জ্যাকেট এবার বাজার দখল করে রয়েছে। এগুলোর মধ্যে লেদার জ্যাকেটের চাহিদা বেশি।

ফ্যাশন সব সময় ফিরে ফিরে আসে। একটা সময় ছিল যখন তরুণদের প্রথম পছন্দ ছিল লেদার জ্যাকেট। মাঝখানে কিছুটা দিন চলছে অন্য জ্যাকেটের ট্রেন্ড। তবে এখন সময় আবার লেদার জ্যাকেটের। এবার বাজারে বিভিন্ন স্টাইলের লেদার জ্যাকেট বের হয়েছে। এসেছে বেশকিছু নতুনত্ব। জিন্স কিংবা গ্যাবাডিং প্যান্টের সঙ্গে সহজেই মানিয়ে যাবে এসব জ্যাকেট। আর আপনাকে লাগবেও বেশ ম্যানলি। লেদার বা চামড়ার জ্যাকেটগুলো মূলত কটন এবং সিনথেটিক্সের ওপর তৈরি হয়। বাজারে চামড়ার জ্যাকেটের মতো অনেকটা দেখতে র‌্যাক্সিনের জ্যাকেটও পাওয়া যায়। এ বিয়য়ে ক্রেতাকে একটু সাবধান হতে হবে যে কোনটা লেদারের জ্যাকেট আর কোনটা র‌্যাক্সিনের জ্যাকেট। মূলত ইউরোপিয়ান পপ-রক সঙ্গীতশিল্পীদের অনুসরণ করতে আমাদের দেশে তরুণদের মধ্যে লেদার জ্যাকেটের জনপ্রিয়তা পায়। কত তরুণই না বব ডিলান, জিম মরিসন, রজার ওয়াটার্স কিংবা মাইকেল জ্যাকসনের কনসার্টে তাদের গায়ের জ্যাকেট দেখে মুগ্ধ হয়েছে। আর মনে মনে কল্পনা করেছে নিজেকে তার স্থানে। ব্যক্তি মালিকানায় পোশাক প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের ফ্যাশন ডিজাইনার জাহিদ হাসান লেদার জ্যাকেটের ফ্যাশন সম্পর্কে বলেন, লেদারের জ্যাকেট এখন তরুণ-তরুণীদের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। আগে শুধু ক্যাজুয়ালি লেদারের জ্যাকেট পরত অনেকে কিন্তু এখন ফর্মাল পোশাকের সঙ্গেও পছন্দ মতো লেদারের জ্যাকেট বানিয়ে কিংবা কিনে পরছে।’

উপর থেকে দেখে অনেকেই ভাবেন লেদারের জ্যাকেট ঠা-া থাকে। মূলত চামড়া একটু শীতল থাকে তবে সেটা উপরের ভাগে। ভেতরের দিকটা থাকে উষ্ণ। কারণ লেদারের জ্যাকেটগুলোর ভেতরে ব্যবহার করা হয়ে থাকে জুট কাপড়, উল কাপড়, টাপাটা, মকমল ও একলিক কাপড়। ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েরাও এখন লেদারের জ্যাকেটের দিকে ঝুঁকছে। এখন রাজধানীর বিপণি বিতানগুলোসহ দেশের বড় বড় শোরুমগুলোতে সম্পূর্ণ নতুন ধরনের লেদার জ্যাকেট পাওয়া যাচ্ছে। যা অত্যন্ত আকর্ষণীয় এবং বাহারি ডিজাইনের। জ্যাকেটগুলো ছেলেমেয়ে উভয়ের জন্য আলাদাভাবে তৈরি করা হয়ে থাকে। লেদারের জ্যাকেটগুলো বাংলাদেশে তৈরির পাশাপাশি চীন, থাইল্যান্ড এবং ইতালি থেকেও আমদানি হয়। তবে সেগুলে দেশী তৈরি জ্যাকেটের থেকে তুলনামূলক একটু বেশি দামী।

গত বছরের ডিজাইনের সঙ্গে এবার বেশকিছু ডিজাইন যোগ হয়েছে জ্যাকেটে। বাজারে এসেছে চামড়ার ব্লেজার সঙ্গে জ্যাকেট। এছাড়াও ব্লেজারের নিচের ওয়েস কটিটাও এখন লেদারের পাওয়া যাচ্ছে। মূলত এবার বেশি ব্যবহার হচ্ছে বাটনের জ্যাকেটগুলো। যদিও চাদিহা ভেদে জিপার বা চেন লাগানো সিস্টেমের জ্যাকেটগুলোও বেশ ভালই বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রাজধানীর বিভিন্ন শপিংমলের বিক্রেতারা। এছাড়াও বরাবরের মতো এবার বিভিন্ন ডিজাইনের জ্যাকেটে থাকছে হুড বা ক্যাপ সিস্টেম। ব্লেজার বা জ্যাকেটের সঙ্গে হুড এমনভাবে লাগানো থাকে যেন আপনি চাইলেই হুড খুলে রাখতে পারেন আবার হুড লাগিয়েও পরতে পারেন। লেদারের ব্লেজার বা জ্যাকেটের মধ্যে বিভিন্ন রকমের কালারের না পাওয়া গেলেও কালো এবং চকলেট কালারটা বরাবরই ক্রেতাদের পছন্দের জায়গাটা দখল করে রয়েছে। তবে কিছু কিছু শোরুমে পাওয়া যাচ্ছে গাঢ় বেগুনি, নীল, মেরুনসহ মিশ্রণ কালারের লেদার জ্যাকেট। পছন্দ মতো বিভিন্ন কালার এবং ডিজাইনের লেদারের জ্যাকেটগুলো গায়ে চাপিয়ে নিমিশেই চালিয়ে যেতে পারেন অফিস, পার্টি কিংবা বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডার আসর। এতে আপনাকে মানিয়ে যাবে যে কোন পরিবেশেই।

লেদারের জ্যাকেটগুলোর চামড়া, ডিজাইন এবং মান ভেদে দাম রয়েছে বিভিন্ন শ্রেণীর। নরমাল লেদার জ্যাকেটগুলো পাওয়া যাচ্ছে ২২০০ টাকা থেকে ৩৩৫০ টাকা পর্যন্ত। এছাড়া আরও উন্নত জ্যাকেটগুলোর দাম ধরা হয়েছে ৩৫০০ টাকা থেকে ১৫ হাজার টাকা পর্যন্ত। রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক, মেট্রো শপিংমল, রাইফেল্স স্কয়ারসহ নিউমার্কেট, গাউছিয়া, এলিফ্যান্ট রোডের শপিংমল গুলোতে পাবেন বিভিন্ন দামের এবং ডিজাইনের এসব লেদার জ্যাকেট।

শীর্ষ সংবাদ:
৪৪তম বিসিএসের আবেদন ২ মার্চ পর্যন্ত         জমি অধিগ্রহণে আমার লাভবান হওয়ার খবর উদ্দেশ্যপ্রণোদিত : শিক্ষামন্ত্রী         জানুয়ারিতে ‘অস্বাস্থ্যকর বায়ু’ ছিল ঢাকায়         করোনায় আরও ১৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৮০৭         গাইবান্ধায় ইভিএম এর মাধ্যমে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে ॥ কবিতা খানম         এস কে সিনহার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ৩ এপ্রিল         শেরপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক তালাপতুফ হোসেন মঞ্জু আর নেই         সমালোচনা বন্ধ করতে হলে মার্শাল ল দিতে হবে ॥ সিইসি         সার্চ কমিটিতে থাকবেন নারী         ৫ বছরে ২২৮ এনজিওর নিবন্ধন বাতিল         রাজশাহীতে করোনায় নারীর মৃত্যু ॥ শনাক্তের হার ৬০.৩৯ ভাগ         এক রেখায় দৃশ্যমান হলো স্বপ্নের মেট্রোরেল         ইসি গঠন আইন পাস         দক্ষ জনবলের অভাবে এনআইডিতে ভুল-ভ্রান্তি ॥ আইনমন্ত্রী         ইউক্রেনে সেনা সদস্যের গুলিতে পাঁচজন নিহত         অসংখ্য স্প্লিন্টার দেহে নিয়ে বেঁচে আছেন আব্দুল্লাহ সরদার         হবিগঞ্জে বৈদ্যের বাজার ট্র্যাজেডির ১৭ বছর         ‘সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে মানুষের হৃদয়ে পৌঁছানো যায়’         ‘বাংলাদেশের চলমান ঘটনা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে ইইউ’