ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

স্মার্টফোনভিত্তিক ট্যাক্সিসেবা এখন দেশে

‘উবার এ্যাপ’ ব্যবহার করে সহজেই গন্তব্যে যাত্রা

প্রকাশিত: ০৫:৩৬, ২৪ নভেম্বর ২০১৬

‘উবার এ্যাপ’ ব্যবহার করে সহজেই গন্তব্যে যাত্রা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ এ্যাপল স্টোর বা গুগল প্লে স্টোর থেকে উবার এ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। এরপর চালক অথবা গ্রাহক যে কেউ দুইভাবে এই এ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন। উবার চালক হতে হলে ই-মেইল ও ফোন নম্বর ব্যবহার করে নিবন্ধন করতে হবে। কোন যাত্রী ট্যাক্সি বা প্রাইভেটকারের জন্য কোন উবার চালককে এ্যাপে রিকোয়েস্ট পাঠালে তিনি আসতে বাধ্য থাকবেন। রিকোয়েস্ট পাঠানোর সঙ্গে সঙ্গে গাড়ির নম্বর, চালকের নাম ও ফোন নম্বর চলে আসবে। কোন কারণে চালক যাত্রা বাতিল করতে চাইলে জরিমানা গুনতে হবে। ভাড়া হিসাব করা হবে যাত্রী ওঠার পর থেকে। যাত্রা শেষে নগদ টাকা বা ক্রেডিট-ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে মেটানো যাবে ভাড়া। তাছাড়া উবার নিবন্ধিত চালকরা যাত্রীদের সঙ্গে বাজে আচরণ করলে নিবন্ধন বাতিলেরও ব্যবস্থা রয়েছে। বিভিন্ন দেশে আলোচিত স্মার্টফোন এ্যাপভিত্তিক ট্যাক্সি সেবার নেটওয়ার্ক উবারের কার্যক্রম শুরু হয়েছে বাংলাদেশে। বিশ্বব্যাপী নাগরিক পরিবহন সেবাকে এরই মধ্যে বদলে দিয়েছে এই এ্যাপ। ঢাকায় মাত্র একটি বাটন চেপে যাত্রীদের নিরাপদ ভ্রমণ নিশ্চিতের পাশাপাশি চালক-পার্টনারদের জন্য আর্থিক উন্নয়নের সুযোগ তৈরি করবে উবার। বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় সেলফোন অপারেটর গ্রামীণফোনের সঙ্গে যৌথভাবে মঙ্গলবার উবার তাদের এ্যাপ চালু করে। এরপর তারকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান প্রথম এই এ্যাপ ব্যবহার করে গাড়ি ব্যবহার করেন। উবার এক বিবৃতিতে জানায়, ঢাকায় কার্যক্রম চালুর জন্য গ্রামীণফোনকে পার্টনার হিসেবে পেয়ে আমরা আনন্দিত। প্রতিষ্ঠানটির শক্তিশালী থ্রিজি নেটওয়ার্ক চালক ও যাত্রীদের ভ্রমণ অভিজ্ঞতাকে উন্নত ও সহজ করবে। তবে এ প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম শুরুর বিষয়ে কোন কিছুই জানে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়, বিআরটিএ থেকে শুরু করে ঢাকা মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকেও তাদের কার্যক্রম নিয়ে কোন তথ্য মেলেনি। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, ঢাকায় উবারের কার্যক্রম ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার চেষ্টায় সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। পাশাপাশি মাত্র একটি বাটন চেপেই উবার আমাদের দৈনন্দিন পরিবহন ব্যবস্থাকে সহজ করে তুলবে। সর্বোপরি উবার বাংলাদেশের অর্থনীতিতে অভাবনীয় সম্ভাবনার সূচনা ঘটাবে। উবারের ভারত ও দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের প্রেসিডেন্ট অমিত জেইন বলেন, উবার খুব সাধারণ লক্ষ্য নিয়ে কার্যক্রম শুরু করে। এটি হলো- প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে শহরগুলোয় যানজট এবং দূষণ কমানোর পাশাপাশি যাতায়াত ব্যবস্থা সহজ করে তোলা। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্য সামনে রেখে প্রযুক্তির শক্তিকে চালক, যাত্রী এবং শহরের সুবিধার্থে কাজে লাগানোর সুযোগ পেয়ে আমরা রোমাঞ্চিত। গ্রামীণফোনের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা ইয়াসির আজমান বলেন, গ্রামীণফোনের সঙ্গে উবারের পার্টনারশিপ আমাদের গ্রাহকদের উবারের উদ্ভাবনী সেবা গ্রহণ সহজ করে তুলবে। আমাদের বিশ্বাস, এ পার্টনারশিপ আমাদের গ্রাহকদের ডিজিটাল লাইফস্টাইলে এক অন্যতম সংযোজন। উবারের সেবা ব্যবহার অত্যন্ত সহজ। প্রথমত, গুগল প্লে বা এ্যাপল স্টোর থেকে উবারের বিনামূল্যের এ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। ই-মেইল বা মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে সাইন আপ করতে হবে। এরপর গন্তব্য নির্বাচন করা হলে কিছুক্ষণের মধ্যেই একজন চালক পৌঁছে যাবেন। সেবা ব্যবহারকারী গন্তব্যে পৌঁছে ভাড়া মিটিয়ে দেবেন। উবারের নিজস্ব কোন গাড়ি নেই। ব্যক্তিগত গাড়ির মালিকরা এ্যাপটিতে নিবন্ধনের মাধ্যমে উবারের চালক হতে পারবেন। একই এ্যাপ ব্যবহার করে সেবা পাবেন যাত্রীরা। বিশ্বব্যাপী প্রতিদিন গড়ে ৫০ লাখের বেশিবার উবার ব্যবহার করে ভ্রমণ করা হয়। ৭৪টি দেশের ৪৫০টি শহরে উবারের কার্যক্রম রয়েছে। ব্যক্তিগত গাড়ির মালিকরা সুবিধাজনক সময়ে গাড়ি চালিয়ে বাড়তি আয়ের সুযোগ পাওয়ায় খুব অল্প সময়ে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে উবার। উবার ম্যাপে যাত্রীরা চালকদের তাৎক্ষণিক অবস্থান জেনে নিয়ে তাকে ডাকতে পারবেন। গাড়ির গতি, দূরত্ব, সময় অনুযায়ী উবার ম্যাপ তাদের মানদ- অনুযায়ী ভাড়া হিসাব করে দেবে। বাজে আচরণের জন্য যাত্রী বা চালক এ্যাপে রেটিং দিতে পারবেন। উবারের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পৃথিবীর সর্ববৃহৎ ‘অন-ডিমান্ড’ এই পরিবহন সেবা মাত্র একটি বাটন চেপে যাত্রীদের নিরাপদ ও আরামদায়ক ভ্রমণ নিশ্চিত করার পাশাপাশি চালক-পার্টনারদের জন্য অর্থনৈতিক উন্নয়নের সুবিধাজনক সুযোগ তৈরি করবে। নিয়ম-কানুন ॥ কোন যাত্রী ট্যাক্সির জন্য কোন উবার চালককে এ্যাপে রিকোয়েস্ট পাঠালে তিনি আসতে বাধ্য থাকবেন। রিকোয়েস্ট পাঠানোর সঙ্গে সঙ্গে গাড়ির নম্বর, চালকের নাম ও ফোন নম্বর পেয়ে যাবেন তিনি। কোনো কারণে চালক যাত্রা বাতিল করতে চাইলে জরিমানা গুণতে হবে। ভাড়া হিসাব করা হবে যাত্রী ওঠার পর থেকে। উবার বলছে, তাদের এ্যাপ ব্যবহার করে বাংলাদেশে প্রথম ট্যাক্সিতে চড়েছেন ক্রিকেট তারকা সাকিব আল হাসান। অনলাইন ট্রান্সপোর্টেশন নেটওয়ার্ক কোম্পানি উবারের প্রধান কার্যালয় যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকোতে। বাংলাদেশের পাশের দেশ ভারতেও উবারের অফিস রয়েছে। এর কার্যক্রম রয়েছে কলকাতাতেও। অন্য পেশায় থেকেও সুবিধাজনক সময়ে ভাড়ায় গাড়ি চালিয়ে বাড়তি রোজগারের সুযোগ তৈরি হওয়ায় এবং যাত্রীদের জন্য সেবা পাওয়া সহজ হওয়ায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দারুণ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে উবার। আবার যাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় ২০১৪ সালে দিল্লীতে উবার নিষিদ্ধও করা হয়েছিল। অবশ্য ব্যক্তিগত গাড়ি ভাড়ায় খাটানোর ক্ষেত্রে বাংলাদেশের আইনী বিষয়গুলো উবার কিভাবে সামাল দেবে এবং বাংলাদেশে এর অনুমোদনের বিষয়গুলো কবে কিভাবে সমাধা হয়েছে সে বিষয়ে কোন তথ্য সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দেয়া হয়নি। ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মোসলেম উদ্দিন বলেছেন, ঢাকায় উবার চালু হওয়ার বিষয়ে কোন তথ্য তার জানা নেই। এদিকে প্রথমবারের মতো নিষিদ্ধ চালকদের পুনরায় আবেদনের সুযোগ চালু করতে যাচ্ছে এ্যাপভিত্তিক যাত্রীসেবাদাতা প্রতিষ্ঠান উবার। তবে এর সঙ্গে অনেক কঠিন শর্ত জুড়ে দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। প্রাথমিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের চালকরা এ সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন বলে জানিয়েছে বিবিসি। উবার বিভিন্ন কারণে এর চালকদের ‘বাতিল’ করে থাকে, যার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে কোন চালকের গ্রাহক রেটিং ৫ এর মধ্যে ৪.৬ এর নিচে নামা। যৌন হয়রানির মতো গুরুতর অসদাচরণের জন্যও কোন চালক নিষিদ্ধ হতে পারেন। এ ছাড়াও অতিরিক্ত যাত্রী আবেদন বাতিলের কারণে বা যথেষ্ট সংখ্যক যাত্রী পরিবহন না করার মতো অভিযোগের কারণেও অনেক সময় চালকদের নিষিদ্ধ করা হয়ে থাকে। আবার অনেক ক্ষেত্রে দেখা গেছে, কোন চালক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উবার সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করার পর নিষিদ্ধ হয়েছেন। এখন থেকে শুধু নিউইয়র্কের নিষিদ্ধ চালকরা পাঁচজন উবার চালকের সমন্বয়ে গঠিত ‘পিয়ার প্যানেল’র সামনে তাদের পুনরায় বহাল করার আবেদন করতে পারবেন। আইডিজি ও উবার যৌথভাবে এ ‘পিয়ার প্যানেল’র পাঁচ চালককে বাছাই করবে, যাদের বিচারকার্যে সহায়তা করবে ‘আমেরিকান আরবিট্রেশন এ্যাসোসিয়েশন।’ কিন্তু খারাপ যাত্রীসেবার জন্য যেসব চালকের পর্যাপ্ত রেটিং অর্থাৎ পাঁচের মধ্যে ন্যূনতম ৪.৬ নেই তারা এ আবেদনের জন্য বিবেচ্য হবেন না। উবারের এ সিদ্ধান্তকে নিজেদের বিশাল জয় হিসেবেই দেখছে উবার স্বীকৃত শ্রমিকদের অধিকার আদায়ের দল ‘ইন্ডিপেনডেন্স ড্রাইভার গিল্ড’ বা আইডিজি। উবারের পরিচালনা কমিটির সঙ্গে মাসব্যাপী দর কষাকষির পর এ সাফল্য অর্জিত হয়েছে এবং তারা এই জয় উদযাপন করবে সদস্যদের ই-মেইলের মাধ্যমে- এমনটাই জানিয়েছে আইডিজির প্রতিষ্ঠাতা জিম কনিগ্লিয়ারো।
monarchmart
monarchmart