ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় নারীসহ পাঁচ জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত: ০৬:৩৫, ১৮ নভেম্বর ২০১৬

ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় নারীসহ পাঁচ জনের যাবজ্জীবন

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর ॥ টাঙ্গাইলে নবম শ্রেণীর ছাত্রীকে গণধর্ষণের আলোচিত মামলায় গাজীপুরের আদালত নারীসহ ৫ জনের প্রত্যেককে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদ- দিয়েছে। একই সঙ্গে প্রত্যেককে ১ লাখ টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদ- প্রদান করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে গাজীপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক সৈয়দ জাহেদ মনসুর এ রায় ঘোষণা করেন। দ-প্রাপ্তরা হলোÑ টাঙ্গাইলের কালিহাতী থানার মহেলা গুচ্ছগ্রামের বিথী আক্তার ইভা, একই জেলার মধুপুর থানার আউশপাড়া বোকারবাইদ এলাকার এসএম নুরুজ্জামান গেদা, একই থানার কুড়িবাড়ি এলাকার গাজীবুর রহমানের ছেলে মোঃ হারুন অর রশিদ, জটাপাড়া (পশ্চিমপাড়া) এলাকার শাহজাহান আলী ও বোয়ালী মধ্যপাড়া এলাকার মৃত ওমেদ আলীর ছেলে মনিরুজ্জামান ওরফে মনি। জানা যায়, টাঙ্গাইলের মেজর জেনারেল মাহমুদুল হাসান উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী (ভিকটিম) সেলাই প্রশিক্ষণ নিতে গিয়ে তার সঙ্গে বিথী আক্তার ওরফে ইভার পরিচয় ও বন্ধুত্ব হয়। বন্ধুত্বের সূত্র ধরে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী ২০১২ সালের ৬ ডিসেম্বর বীথি তার মামাত বোনের বিয়েতে যাওয়ার কথা বলে ভিকটিমকে আউশনারা বোকারবাইদ গ্রামের নুরুজামান ওরফে গেদার বাড়িতে নিয়ে যায়। ওই রাতে ভিকটিমকে ভয়ভীতি দেখিয়ে আসামি নুরুজ্জামান, হারুন অর রশিদ, শাহজাহান ও মনিরুজ্জামান পালাক্রমে ধর্ষণ করে। আসামিরা ভিকটিমকে সেখানে তিন দিন আটকে রাখে। পরে ৯ ডিসেম্বর অসুস্থ ভিকটিমকে তার বাড়ির কাছে রেললাইনের পাশে ফেলে রেখে ধর্ষণে সহায়তাকারী আসামি বিথী আক্তার ইভা পালিয়ে যায় এবং ধর্ষণের ঘটনা প্রকাশ করলে হত্যা করবে বলে ভয় দেখায়। এতে ভিকটিম আতঙ্কিত হয়ে ঘটনাটি লুকানোর চেষ্টা করে বাড়িতে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা নেয় এবং পরে তার স্বজনদের জানায়।