সোমবার ২৯ চৈত্র ১৪২৭, ১২ এপ্রিল ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

চামেলী রায়ের অসমাপ্ত

  • সনৎ কুমার সাহা

বইটির লেখক আমার একেবারে অচেনা নন। দর্শন পড়তেন। ফুটফুটে মেয়ে। এখন এক পরিসংখ্যানের অধ্যাপকের সহধর্মিণী। কাজের ডাকে স্বামীর সপরিবারে নানা দেশে ঘোরা। আফ্রিকাতেও। সেই সূত্রে লেখকেরও পরিচয় হয় কত রকম মানুষের সঙ্গে। কত মানুষীর সঙ্গে। তাঁর দার্শনিক বোধে তারা দোলা দেয়। মৌল মানবিক প্রশ্ন সব মাথায় জাগে। উপন্যাসে তাদের ছাপ পড়ে।

তবে একটা গুরুতর বাধা ঠেলে তাঁর লেখা। দৃষ্টিশক্তি তাঁর ক্রমহ্রাসমান। দেশে-বিদেশে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের দেখিয়েছেন। আশার কথা কেউ শোনাননি। সামনে নিরুপায় অন্ধকার। তার আতঙ্কও বোধহয় অবচেতনে লেখায় মেশে। ভাষার শৃঙ্খলা একটু-আধটু টাল খায়। দু-একটা অযাচিত শব্দ হুড়মুড়িয়ে আসে। অনেক কিছু যেন এক সঙ্গে বলে ফেলার তাড়া। তাতে সাহিত্যের ম-নকলায় গতি ও স্থিতির সামঞ্জস্য হঠাৎ হঠাৎ খুব কম হলেও মাঝে মাঝে অল্প-স্বল্প কেটে কেটে যায়। লেখকের স্বাভাবিক ক্ষমতা তাকে অতিক্রম করে অবশ্যই। কিন্তু তা থাকে। উপন্যাস যদিও আমাদের আকর্ষণ হারায় না।

কাহিনীর প্রেক্ষাপট লোহিত সাগরের পারে উত্তর-পূর্ব আফ্রিকার নবীন রাষ্ট্র ইরিত্রিয়ায় প্রধান শহর আসমারা। আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের আসা-যাওয়ার সূত্র ধরে এর বিস্তার। মূল জটিলতার উৎসও সেখানে। তবে লেখক একই সঙ্গে কল্প-বিজ্ঞান, মানবিক বোধ, আশা-নিরাশা, বিবেকের তাড়না, আন্তর্জাতিকতা, সব কিছু এক জায়গায় মিশিয়েছেন। বইটি ক্ষীণাঙ্গীই। তবু তালগোল পাকিয়ে যায়নি। এখানে লেখকের স্বাভাবিক মুন্সিয়ানা ধরা পড়ে।

আমরা দেখি সহজলভ্য কৃষাঙ্গীর পিতৃপরিচয়হীন শ্বেত সন্তানকে মানুষ করেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন এক পাশ্চাত্য বিজ্ঞানী। পাশাপাশি তিনি রচনা করেন বিকল্প ভার্চ্যুয়াল রিয়্যালিটির জগত। এক অসামান্য যান্ত্রিক নারীকে তিনি মানবিক বৃত্তি আরোপ করেন, যদিও সে মানবী হয় না। ছেলেটি আবার আসমারায় আসে তার মাতৃপরিচয় জানার কৌতূহলে এবং আগের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটিয়ে সেও ইরিত্রিয়ায় আর এক মনোলোভা নারীর কৌমার্য হরণ করে তাকে সন্তানবতী করে। অন্যদিকে যন্ত্রমানবীর আকর্ষণ। কী করবে সে ভেবে পায় না। উত্তর অসমাপ্ত রেখে উপন্যাসের যবনিকা পড়ে।

আমার মনে হয়েছে, গড়পড়তা বাংলা কথাসাহিত্যের ভিড়ে অসমাপ্ত হারিয়ে যাবে না। তবে এর আরও সম্ভাবনা ছিল। লেখক যে তাঁর পূর্ণ প্রতিভার সুস্থির প্রয়োগ ঘটাতে পারেননি, এ জন্য আক্ষেপ হয়।

আর একটা কথা এখানে না বলা নয়। চামেলী রায় বা তাঁর মতো প্রতিশ্রুতিশীল অনেক লেখক কিন্তু যথোচিত সংযোগের অভাবে অকালে হারিয়ে যান। কেউ কেউ প্রতারণার ফাঁদেও পড়েন। আমাদের প্রকাশনা জগত কি বিষয়টি নিয়ে একটু ভাববেন?

শীর্ষ সংবাদ:
কলকাতার কাছে ১০ রানে হারল হায়দরাবাদ         ছাড় পাবে না সিন্ডিকেট ॥ রমজানে দ্রব্যমূল্য স্বাভাবিক রাখতে কঠোর অবস্থান         জনকণ্ঠের প্রকাশনা বন্ধের পাঁয়তারা চাকরিচ্যুতদের         বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হবে ॥ অর্থমন্ত্রী         আমিরাতের প্রথম নভোচারী         বন্ধ থাকবে সব ধরনের যাত্রীবাহী ফ্লাইট         দশমিক ১০ শতাংশ কমিশন পাবে বাণিজ্যিক ব্যাংক         বৈশাখের অনুষঙ্গ লোক ঐতিহ্যের শখের হাঁড়ি         ৪৮৩টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ লাখ টাকা করে অর্থ বরাদ্দ         দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৭৮ জনের, নতুন শনাক্ত ৫৮১৯         জনকণ্ঠের প্রকাশনা বন্ধে গেটে তালা         ভিড় কমাতে বাড়ল ব্যাংক লেনদেনের সময়         ভোজ্য তেলে কর প্রত্যাহার         চলমান লকডাউনের ধারাবাহিকতা ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত ॥ কাদের         পোশাক ও বস্ত্র কারখানা খোলা রাখার দাবি চার সংগঠনের         সোমবার থেকে ভার্চুয়ালি চলবে আপিল বিভাগের বিচারকাজ         কৃষিপণ্যের আন্তর্জাতিক মান বজায় রাখতে হবে         খালেদা জিয়ার বাসায় ৯ জন করোনায় আক্রান্ত         বাবা-মায়ের কবরের পাশে শায়িত মিতা হক         মিতা হকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক