শুক্রবার ২৬ আষাঢ় ১৪২৭, ১০ জুলাই ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

৪৫ বছর পর শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের সন্ধান

এইচএম এরশাদ, কক্সবাজার ॥ মুক্তিযুদ্ধের সময় পাক হায়েনাদের গুলিতে শহীদ উপজাতি যোদ্ধা পার্বত্য নাইক্ষ্যংছড়ির লাপ্রে ম্রোর সন্তানের সন্ধান পেয়েছে স্থানীয় প্রশাসন এবং মোজাফফর আহম্মদ ও রমেশ বড়ুয়া। বান্দরবানের এ শহীদের একমাত্র সন্তান সিনতন ম্রোর খোঁজে বিভিন্ন জায়গায় খবর নিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। লাপ্রে ম্রো হানাদার বাহিনীর গুলিতে শহীদ হওয়ার সময় প্রত্যক্ষদর্শী ছিলেন সহযোদ্ধা রামুর মোজাফফর আহম্মদ ও রমেশ বড়ুয়া। দীর্ঘ ৪৫ বছর পাহাড়ে জুম চাষ করে এখনও বেঁচে আছেন সিনতন ম্রো। তাঁর বসবাস পাহাড়ের চূড়ায়। বাবা স্বাধীনতা যুদ্ধে জীবন দিলেও আজও রাষ্ট্রের কোন সুযোগ-সুবিধা পায়নি তারা। সিনতন ম্রোকে সঙ্গে নিয়ে ২৬ মার্চ রাতে স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেছে নাইক্ষ্যংছড়ি ও রামু এলাকার মুক্তিযোদ্ধারা।

অনেক অমুক্তিযোদ্ধা অবাধে নানা সুযোগ-সুবিধা পেয়ে আসছে। অথচ বান্দরবান জেলার একমাত্র শহীদ লাপ্রে ম্রোর সন্তান সিনতন ম্রোর কপালে জোটেনি কিছুই। বসবাস করছেন পাহাড়ের চূড়ায় ঝুপড়িতে। মুক্তিযোদ্ধা ভাতা তো দূরে থাক, ন্যূনতম কোন সুযোগ-সুবিধাও পায়নি পরিবারটি। সূত্র জানায়, মিয়ানমার সীমান্তের দুর্গম অরণ্য ঘেরা পাহাড়ি গ্রাম কুরুপপাতা ঝিরি এলাকা থেকে সিনতন ম্রোকে (মুরুং) ২৪ মার্চ বিকেলে নাইক্ষ্যংছড়ি ইউএনও এএসএম শাহেদুল ইসলামের অফিসে নিয়ে আসে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা। ইউএনও জানান, সিনতন ম্রোকে না পাওয়ায় এতদিন তাকে কোন সুযোগ-সুবিধা দেয়া যায়নি। এখন তার সন্ধান পাওয়া গেছে। তার জন্য কিছু করার সুযোগ এসেছে।

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি অধ্যাপক শফি উল্লাহর সঙ্গে এসে সিনতন ম্রো জানান, হানাদার বাহিনী তার বাবাকে অন্তত পাঁচটি গুলি করে মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর ২৫ ঘরের পাড়া জ্বালিয়ে দেয়।

তাদের ৩০ হাজার কেজি ধান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর পর হানাদার বাহিনী ফিরে গেলেও ম্রো পরিবারগুলো আর গ্রামে ফিরে আসেনি। তিনি জানান, বাবাকে হারিয়ে পুরো পরিবার গ্রামছাড়া হয়ে পাহাড়ের পর পাহাড় ঘুরে বেড়িয়েছি ৪৫ বছর। স্ত্রী ও দুই সন্তানকে নিয়ে কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন বলে জানান তিনি।

শীর্ষ সংবাদ:
সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক         বাংলাদেশ থেকে আগামী ৫ অক্টোবর পর্যন্ত ইতালিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা         সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদের সঙ্গে ইরানের সেনাপ্রধানের সাক্ষাৎ         করোনায় আক্রান্ত বলিভিয়ার প্রেসিডেন্ট         করোনা ভাইরাস ॥ যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে ৬৫ হাজারের বেশি শনাক্ত         সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন আর নেই         টানা চতুর্থ জয়ে নতুন মাইলফলক গড়লেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড         ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পাঁচটি ভুল সিদ্ধান্ত দিয়েছেন আম্পায়াররা!         এবার পশ্চিম তীরকে একীভূত করার ব্যাপারে ইসরাইলকে সতর্ক করল রাশিয়া         ইরানের সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চায় না যুক্তরাষ্ট্র         করোনায় স্বামীর মৃত্যু ॥ সন্তানদের নিয়ে রেললাইনে ঝাঁপ স্ত্রীর!         এবার ভারতীয় সব টিভি চ্যানেল বন্ধ করল নেপাল         ভারতের সেই কুখ্যাত মাফিয়াকে গুলি করে হত্যা         ‘মিথ্যা এবং অভিযোগ করা’ হচ্ছে মার্কিন পররাষ্ট্র নীতির প্রধান উপকরণ: ইরান         ইরানের সঙ্গে যুদ্ধ চায় না আমেরিকা: মার্কিন জেনারেল ম্যাকেনজি         চলে গেলেন দেশের প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন         বিনিয়োগে রুট বদল ॥ করোনা মহামারীর ধাক্কা         দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান চলবে ॥ প্রধানমন্ত্রী         রিজেন্টের আইটি প্রধান গ্রেফতার, আটক সাহেদের ভায়রা         স্বাস্থ্য খাতে অনিয়মের বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান চলবে        
//--BID Records