ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১

স্ত্রী হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে কাঁদলেন স্বামী

প্রকাশিত: ১৭:৫৪, ১৪ জুন ২০২৪

স্ত্রী হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে কাঁদলেন স্বামী

সংগৃহীত ছবি

ফেনীর সোনাগাজীতে পারিবারিক কলহের জেরে গৃহবধূ সিনথিয়া ইসলাম খুশবু খুনের ঘটনায় স্বামী আলী আক্কাস রনিসহ অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন নিহতের মা লিপি আক্তার। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) দুপুরে এ মামলা দায়ের করেন তিনি।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি সুদ্বীপ রায় পলাশ বলেন, মামলা দায়েরের পর তদন্তকারী কর্মকর্তা অভিযুক্তকে ফেনীর আদালতে হাজির করেন। পরে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আশেকুর রহমানের আদালতে অভিযুক্ত রনি হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। একই দিন দুপুরে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে নিহতের ময়নাতদন্ত শেষে তার পিতা-মাতার কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, স্ত্রীর মানসিক অত্যচার ও শাশুড়ির হুমকি-ধমকিতে অতিষ্ঠ রনি ক্ষুব্ধ হয়ে এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে জবানবন্দিতে উল্লেখ করেছেন। জবানবন্দি দেওয়ার সময় স্ত্রী খুশবুকে খুব ভালোবাসতেন বলে উল্লেখ করেন তিনি। হত্যাকাণ্ডের জন্য অনুতপ্ত হয়ে ম্যাজিস্ট্রেটের খাস কামরায় কান্নাকাটি করেছেন তিনি।

পুলিশ, নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, প্রেম করে সিনথিয়াকে গোপনে বিয়ে করেন রনি। বিয়ের পর ওমান চলে যান তিনি। পরে সিনথিকে তার পরিবার বিয়ে দেবে জানতে পেরে তিনি ছয় মাস আগে দেশে ফেরেন। এসে পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ের খবর সিনথিয়ার পরিবারকে জানান। কিন্তু সিনথিয়ার পরিবার তাদের বিয়ে মেনে না নিলে তিন মাস আগে রনি ও সিনথিয়াকে নিয়ে পালিয়ে সোনাগাজীতে এসে ভাড়া বাড়িতে বসবাস শুরু করেন।

সেখানে রনি বাজারে ভ্যানে করে জুতার ব্যবসা করতেন। গত মঙ্গলবার রাতে বাসায় তরকারি আনাকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে ভোরে সিনথিয়াকে বটি দিয়ে দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে রনি। পরে সকাল সাড়ে সাতটার দিকে থানায় গিয়ে পুলিশকে জানিয়ে সহযোগিতা চান তিনি। তার দেওয়া তথ্য মতে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সিনথিয়ার লাশ উদ্ধার করে।

 এসআর

×