ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

জাঁকজমক আয়োজনে বুদ্ধ পূর্ণিমা উদযাপন

জনকণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২:২২, ২২ মে ২০২৪; আপডেট: ১০:৩৮, ২৩ মে ২০২৪

জাঁকজমক আয়োজনে বুদ্ধ পূর্ণিমা উদযাপন

বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসব উদযাপন

ব্যাপক আনুষ্ঠানিকতা ও আয়োজনে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব বুদ্ধ পূর্ণিমা উদযাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পৃথিবীর সকল প্রাণী ও বিশ্ব সভ্যতার শান্তি কামনা করা হয়। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।
চট্টগ্রাম ॥ ব্যাপক আনুষ্ঠানিকতা ও আয়োজনের মধ্য দিয়ে চট্টগ্রামে পালিত হয়েছে  বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা। প্রায় আড়াই হাজার বছর আগে এই পূর্ণিমার দিনে আবির্ভূত হয়েছিলেন এ মহামানব।  প্রচার করেছিলেন অহিংসার বাণী। বলেছিলেন, জীবহত্যা মহাপাপ।

সময়ের পরিক্রমায় এই আধুনিক একবিংশ শতাব্দীতেও তিনি প্রাসঙ্গিক।  বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা দিনটি উদযাপন করেছে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও উৎসবমুখর পরিবেশে। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পৃথিবীর সকল প্রাণী ও বিশ্ব সভ্যতার শান্তি কামনা করা হয়।
চট্টগ্রামে বরাবরের মতো এবারও সবচেয়ে বড় আয়োজনটি ছিল ডিসি হিলসংলগ্ন নন্দনকানন এলাকার চট্টগ্রাম বৌদ্ধ বিহারে।  সেখানে দিনভর ছিল অনুষ্ঠানমালা। নারী, পুরুষ নির্বিশেষে সকল বয়সের মানুষ এ বিহারে সমবেত হয়ে বিশেষ প্রার্থনায় মিলিত হন। কামনা করেন মানুষে মানুষে ভ্রাতৃত্ব ও বিশ^শান্তি। এর পর বিকালে বের হয় শান্তি শোভযাত্রা। অপরদিকে নগরীর কাতালগঞ্জে অবস্থিত নবপ-িত বিহারেও ছিল বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে ব্যাপক আয়োজন। দিনভর ছিল আলোচনা, প্রার্থনাসহ নানা অনুষ্ঠান।
কক্সবাজার ॥ সকালে বুদ্ধপূজা, শীলগ্রহণ, পিণ্ডদান, ভিক্ষুসংঘের প্রাতরাশ, রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ও দুপুরে জ্ঞাতি  ভোজনসহ বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে দিনটি পালন করা হচ্ছে। দিনটি পালনে  জেলার সবচেয়ে বড় ‘শান্তির  শোভাযাত্রা’ অনুষ্ঠিত হয়েছে উখিয়া উপজেলায়। শতাধিক গাড়ির বহর নিয়ে প্রায় দেড় কিলোমিটার দীর্ঘ এ শোভাযাত্রায় বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের হাজারো নারী-পুরুষ অংশ  নেয়।

শোভাযাত্রাটি উখিয়ার কুতুপালং উচ্চ বিদ্যালয় এলাকা থেকে শুর হয়ে মরিচ্যা স্টেশনের দীর্ঘ ২০ কিলোমিটার এলাকা ঘুরে কোটবাজার  কেন্দ্রীয় মহাশ্মশান ভাবনা বৌদ্ধ বিহারে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে অনুষ্ঠিত হয় সদ্ধর্ম সভা। আয়োজকরা জানিয়েছেন, দিনটি পালন উপলক্ষে মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হয় ভিক্ষু-সংঘের সংক্রমণ, সূত্রপাঠ ও শ্রবণ, উপোসথ গ্রহণ এবং ধ্যান চর্চা।
খাগড়াছড়ি ॥ বৌদ্ধ বিহার, ধর্মপুর আর্য বন বিহার, জনবল বৌদ্ধ  বিহারসহ জেলার বিভিন্ন বৌদ্ধ বিহারে নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। শুভ  বৈশাখী পুর্ণিমা উদযাপন উপলক্ষে সমবেত প্রার্থনা, বুদ্ধ পূজা, প্রদীপ প্রজ্বালন, পঞ্চশীল প্রার্থনা, অষ্ট পরিষ্কার দান, বুদ্ধ মূর্তি দান, ভিক্ষুদের উদ্দেশ্যে সংঘ দান,  কল্পতরু দান, হাজার প্রদীপ দান, বৌদ্ধ ভিক্ষুদের চীবর দান, পি- দানসহ নানাবিধ দান করা হয়।

বৈশাখী পূর্ণিমা উপলক্ষে শহরের শত বছরের ঐতিহ্যবাহী বৌদ্ধ বিহারে সমবেত প্রার্থনার আয়োজন করা হয়। সেখানে  দেশ, জাতি তথা সকল প্রাণীর সুখ ও মঙ্গল কামনা করা হয়। এ সময় দায়ক-দায়িকাদের পঞ্চশীল প্রার্থনাও ধর্মীয় দেশনা প্রদান করেন বৌদ্ধ বিহারে অধ্যক্ষ ভদন্ত ক্ষেমাসারা স্থবির।
রাঙ্গামাটি ॥ রাজবন বিহারের উদ্যোগে রাঙ্গামাটি  একটি ধর্মীয় শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান-প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাজবন বিহারে গিয়ে শেষ হয়েছে। রাঙ্গামাটি  মৈত্রী বিহার থেকেও মঙ্গলবার অনুরূপ মঙ্গল  শোভাযাত্রা বের করা হয়েছিল।

শোভাযাত্রায় প্রধান অতিথি ছিলেন- সংরক্ষিত আসনের মহিলা সাংসদ জ্বরতি তঞ্চঙ্গ্যা। এতে সমাজের অন্যান্য  নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া বৌদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে রাঙ্গামাটির  বৌদ্ধ বিহারগুলোতে দিনব্যাপী ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

এর মধ্যে শহরের রাজবন, মৈত্রী বিহার, আনন্দ বিহারসহ বুদ্ধ বিহারগুলোতে  গৌতম বুদ্ধের মূর্তি স্নান, শহরে বৌদ্ধ ধাতু প্রদর্শন, পঞ্চশীল গ্রহণ, বুদ্ধ মূর্তি দান, সংঘদান, অষ্ট পরিস্কার দান, ধর্মীয় আলোচনা সভাসহ দিনব্যাপী নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

গাজীপুর ॥ বুধবার সকালে গাজীপুরে ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ে (ডুয়েট) এ ধর্মীয় বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। এর মধ্যে শোভাযাত্রা, ডুয়েট এর স্টুডেন্ট কমপ্লেক্সে বুদ্ধপুজা, পঞ্চশীল গ্রহণ, বুদ্ধ প্রতিম্বি দান,অষ্টপরিস্খারদানসহ ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকলের কল্যাণ কামনায় সমবেত প্রার্থনা করা হয়।

ঢাকার নদ্দার পঞ্চানন্দ বৌদ্ধ বিহারের আবাসিক ভিক্ষু পুজনীয় সুনন্দ ভিক্ষুর সদ্ধস্মদেশনার মাধ্যমে প্রথম পর্ব শেষ হয়। পরে বিকেলে বুদ্ধ পূর্ণিমার তাৎপর্য ও বর্তমান অশান্ত বিশে^ মহামানব বুদ্ধের অহিংসাবাণীর অপরিহার্য নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করেন গাজীপুর বুড্ডিস্ট কমিউনিটি বুদ্ধ পূর্ণিমা উদযাপন কমিটির সভাপতি ও বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তা শিমুবড়ুয়া।

সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এ কমিউনিটির আগামি দিনের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ৩৭ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। বর্তমান সভাপতি শিমুল বড়ুয়াকে পুনরায় সভাপতি, অমর বিকাশ চাকমাকে কার্যকরী সভাপতি, পিকলু বড়ুয়াকে সাধারণ সম্পাদক ও শান্তি বিকাশকে অর্থ সম্পাদক করে ৩৭ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি করা হয়েছে।

×