ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

হামলায় আওয়ামী লীগ নেতাসহ আহত ৩, অবরোধ

নিজস্ব সংবাদদাতা, মুকসুদপুর, গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ২১:৩৯, ৩০ জানুয়ারি ২০২৪

হামলায় আওয়ামী লীগ নেতাসহ আহত ৩, অবরোধ

হামলার প্রতিবাদে সড়কে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাহিদুর রহমান টুটুল (৫৫), তার ড্রাইভারসহ হাতুড়িপেটায় তিনজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার দুপুরে মুকসুদপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরের ফারক খান মিলনায়তনের কাছে এই হামলার ঘটনা ঘটে। 
এই ঘটনার প্রতিবাদে ও দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মুকসুদপুর আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ঢাকা-গোপালগঞ্জ মহাসড়কের মুকসুদপুর অংশ দুই ঘণ্টাব্যাপী অবরোধ করে রাখে। ওই অবরোধের নেতৃত্ব দিচ্ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রবিউল আলম শিকদার। এই অবরোধে উভয়পাশে চার কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়। অপরদিকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের টেকেরহাট মুকসুদপুর অংশ অবরোধ করে টায়ার জ্বালিয়ে মিছিল করে। মুকসুদপুর থানার পুলিশ ঘণ্টাখানেক অবরোধ চলায় সৃষ্ট তীব্র যানজট নিরসনে এবং নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। 
মুকসুদপুর থানার সেকেন্ডে অফিসার এসআই আবদুল আজিজ শেখ এবং মুকসুদপুর আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক আরিফুজ্জামান জানান, আড়াইটার দিকে মুকসুদপুর আওয়ামী লীগ আয়োজিত শান্তি সমাবেশ শেষ করে দাপ্তরিক কাজের জন্য উপজেলা পরিষদে যাওয়ার সময় ৫-৬ জনের একটি দুর্বৃত্ত দল দেশীয় অস্ত্র হাতুড়ি দিয়ে পেছন দিক থেকে আক্রমণ করে।

এতে আওয়ামী লীগ সম্পাদক সাহিদুর রহমানের বাম হাত ও বাম পায়ে ১৫টির অধিক হাতুড়ির আঘাত করা হয়েছে। এ সময় ব্যক্তিগত মাইক্রোবাস ড্রাইভার আয়নাল শেখ (৩৮) এবং সহযোগী এনামুল খানও (২৫) আহত হয়। 
উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও রাঘদী ইউনিয়নের বারবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান সাহিদুর রহমান টুটুল উপজেলার রাঘদী ইউনিয়নের দাশের কান্দি গ্রামের গোলাম সারেয়ার রতন মিয়ার ছেলে। অপর দুই আহত হলো চরপ্রশন্নদী গ্রামের ফজর আলী শেখের ছেলে আয়নাল শেখ, একই গ্রামের হাবিবুর রহমান খানের ছেলে এনামুল।

মুকসুদপুর থানার ওসি মোহাম্মদ আশরাফুল আলম জানান, ঘটনা ঘটার সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। ঘটনার সময় প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্য এবং সিসি টিভির ফুটেজ সংগ্রহ করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

×