ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

দিরাইয়ে আ.লীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদদাতা, সুনামগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৫:৩৬, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩

দিরাইয়ে আ.লীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ

বক্তব্য দিচ্ছেন প্রধান বক্তা নুরুল হুদা মুকুট

সুনামগঞ্জে দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত। রবিবার (২৯ জানুয়ারি) দিরাই উপজেলা যুবলীগ এই বিক্ষোভ সমাবেশ করে।

সমাবেশে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল হুদা মুকুট। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মতিউর রহমান। এ সময় দিরাই উপজেলার পদবঞ্চিত আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন স্থরের নেতাকর্মীরা বক্তব্য দেন।

বক্তারা বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য জয়া সেনগুপ্তা দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতিকে বিভক্ত করে আসছেন। দিরাই-শাল্লায় আওয়ামী লীগের কর্মীদের বাদ দিয়ে বিএনপি নেতাদের প্রতিষ্ঠা করছেন তিনি। এমপি লীগ প্রতিষ্ঠাকারিদেরকে ধিক্কার জানাই আমরা বঙ্গবন্ধু আদর্শের সৈনিকেরা।

উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রঞ্জন রায়ের সভাপতিত্বে ও যুবলীগ নেতা রুবেল সরদারের সঞ্চালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি রেজাউল করিম শামীম, সৈয়দ আবুল কাসেম ও অ্যাড. অবনী মোহন দাস, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আবুল কালাম, শিক্ষা ও মানব সম্পদ সম্পাদক সীতেশ তালুকদার মঞ্জু, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. আজাদুল ইসলাম রতন, সদস্য অমল কর, বন ও পরিবেশ সম্পাদক জাহাঙ্গীর চৌধুরী, যুবলীগ নেতা সবুজ কান্তি দাস, দিরাই উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মঞ্জুর আলম চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি অ্যাড. সোহেল আহমদ, সাবেক পৌর মেয়র মোশারফ মিয়া প্রমুখ।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মতিউর রহমান বলেন, পরিবর্তন চায় দিরাইবাসী। দিরাই-শাল্লার মানুষ উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নৌকা দিলে আর আপনারা পাশে থাকলে উপজেলার উন্নয়ন বঞ্চিত মানুষের জন্য কাজ করে যাবো। দিরাই আমার জন্মভূমি। দিরাই থেকে আমি রাজনীতি শুরু করে আজও আওয়মী ছায়াতলে আছি। ১৯৬০ সালে ছাত্রলীগ থেকে আমি রাজনীতি করছি। ৬৩ বছর ধরে মুজিব আদর্শকে ধারণ করে রয়েছি ত্যাগী নেতাকর্মীদের নিয়ে। 

সমাবেশে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখার সময় জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল হুদা মুকুট বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান দিরাইয়ের কৃতি সন্তান। তিনি দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে আসছেন। দিরাই-শাল্লার কর্মীরা তাকে এই আসনে এমপি হিসেবে দেখতে চেয়েছেন। আমিও তাকে এই আসনে এমপি দেখতে চাই। তাকে মনোনয়ন দেওয়া হলে সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে বিজয়ী করবো।

মুকুট বলেন, আব্দুস সামাদ আজাদের হাত ধরে আমি রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠা পেয়েছিলাম। বাবু সুরঞ্জিত সেনগুপ্তও আমাদের নেতা ছিলেন। কিন্তু তিনি কোনো আওয়ামী লীগ নেতাকে মায়নাস করে বিএনপি নেতাকে এই দিরাইয়ে প্রতিষ্ঠিত করেননি। আজকে যারা দিরাইয়ে বিএনপি নেতাদের প্রতিষ্ঠা করছে, তাদেরকে ধিক্কার জানালেন তিনি।

স্থানীয় সংসদ সদস্য জয়া সেনগুপ্তার নামোল্লেখ করে মুকুট বলেন, আপনি আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য। আগামীতে অত্যন্ত কঠিন দিন আসছে। এসময় বিভক্তি তৈরি করা যাবে না। সবাইকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে চলতে হবে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ নভেম্বর দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় প্রকাশ্য দ্বন্ধ শুরু হয়েছে। ওই সময় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে দফায় দফায় হামলা করেছে দলটির স্থানীয় নেতাকর্মীদের একাংশ। এই আসনে প্রয়াত জাতীয় নেতা সুরঞ্জিত সে গুপ্তের স্ত্রী ড. জয়া সেন গুপ্তা আওয়ামী লীগের বর্তমান সংসদ সদস্য।

এমএইচ

×