ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ওয়াজ থেকে ফেরার পথে ৩০ অটোরিকশায় ডাকাতি

প্রকাশিত: ১৭:২৮, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ওয়াজ থেকে ফেরার পথে ৩০ অটোরিকশায় ডাকাতি

সিএনজি আটক করে নির্জন স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে ওয়াজ মাহফিল থেকে ফেরার পথে প্রায় ৩০টি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এসময় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) ভোরে উপজেলার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বুড়ইউরি গ্রামের পাশে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এসময় যাত্রীদের মোবাইল ফোন, স্বর্ণালংকার ও প্রায় তিন লাখ টাকা নিয়ে যায় ডাকাতরা। সেই সঙ্গে 

আহতরা হলেন- মো. আলফাজ মিয়া, ফয়েজ মিয়া, ছোয়াব মিয়া, আলাল মিয়া, রমজান মিয়া, জোবাইদ মিয়া, আনালক মিয়া, আবু কালাম মিয়া, ভুট্টু মিয়া, হৃদয় মিয়া, আনাল হক, সাদ্দাম মিয়া, আনোয়ারা বেগম, শরিয়া বেগম, ইন্তেজ আলী, মো. লায়েছ মিয়া, ফায়েজ মিয়া ও আব্দুল মালেক মিয়া। তবে অন্যান্যদের নাম জানা যায়নি।

চাপৈরতলা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. এম মনসুর আলী বলেন, ‘গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার চাপৈরতলা ইউনিয়নের খান্দুরা গ্রামে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ফয়েজ চিশতির বাড়িতে ওয়াজ শুনতে হাজারও ভক্ত জড়ো হয়। ওয়াজ শেষে রাত ৪টার দিকে বাড়িতে ফেরার পথে ২০-২৫ জনের একটি ডাকাত দল যাত্রীবহনকারী ৩০টি সিএনজিচালিত অটোরিকশা আটক করে।’

তিনি বলেন, ‘শতাধিক যাত্রীকে নামিয়ে সড়কের পাশের জমিতে নিয়ে চোখ বেঁধে ফেলে। পরে সবার কাছ থেকে মোবাইল, নারীদের স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা নিয়ে নেয়। ডাকাতির সময় যাত্রীদের উদ্ধার করতে গিয়ে সাদ্দাম মিয়া নামে এক যুবকের হাতে রামদা দিয়ে আঘাত করলে তার চারটি আঙুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এছাড়া গুরতর আহত একজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।’

নাসিরনগর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুল্লাহ সরকার বলেন, ‘ভোর রাতে চাপড়তলা ইউনিয়নের বড়ইউরি গ্রামের পাশে ডাকাতি হয়। এ সময় তিনজন আহত হন। আমরা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

এমএইচ

×