ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯

সাবিনা-মাসুরার বাড়িতে গিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক

স্টাফ রিপোর্টার, সাতক্ষীরা

প্রকাশিত: ২০:৫৬, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

সাবিনা-মাসুরার বাড়িতে গিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক

নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুনের মাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ূন কবির।

সাফ জয়ী বাংলাদেশ নারী দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন ও ডিফেন্ডার মাসুরা পারভীনের বাড়িতে গিয়ে মিষ্টি দিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ূন কবিরসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা। 

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে তারা প্রথমে শহরের অদূরে বিনেরপোতায় মাসুরার বাড়িতে যান। জেলা প্রশাসক এ সময় তার বাবা-মায়ের সঙ্গে কথা বলেন। তাদের কাছ থেকে জানতে পারেন, সড়ক ও জনপদ বিভাগের জায়গায় বসবাসের ঘর। ইতিমধ্যে সড়ক ও জনপদ বিভাগের পক্ষ থেকে সেটি উচ্ছেদ করতে দেয়ালের গায়ে লাল রঙের ক্রস চিহ্ন দেয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসক সড়ক ও জনপদ বিভাগের উচ্ছেদ অভিযানে বিষয়ে জানতে পেরে সঙ্গে সঙ্গে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, যতদিন মাছুরার পরিবারের তাদের নিজেদের জমির উপর নতুন করে বাড়ি তৈরি করতে না পারেন ততদিন তারা যেখানে আছেন সেখানেই থাকবেন বলে সড়ক ও জনপদ বিভাগকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তাদের বাড়ির নির্মাণের জন্য যে নিচু স্থানটি রয়েছে সেখানে মাটি ভরাটসহ সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এরপর মাসুরার বাড়ির লাল ক্রস চিহ্ন জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় লাবসা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম  মুছে দেন।

ডিফেন্ডার মাসুরা পারভীনের বাড়িতে গিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

মাসুরার বাবা রজব আলী বলেন, বাড়িতে এই লাল ক্রস চিহ্ন দেওয়ার পর থেকে খুবই চিন্তায় ছিলাম। বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসার পর সেটি মুছে ফেলা হয়েছে।  এ সময় তিনি জেলা প্রশাসক ও সাংবাদিদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এরপর, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ূন কবির বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাাতুনের বাড়িতে যান। তিনি সাবিনার মা ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন এবং পরিবারের সদস্যদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান ও মিষ্টি মুখ করান। সাবিনার পরিবারের সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। 

এ সময় জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তা, জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এসআর