৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

করোনা আক্রান্তদের ৮২ শতাংশ থাকে স্বল্প ঝুঁকিতে ॥ ডাঃ ফ্লোরা

প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের ৮২ শতাংশ স্বল্প ঝুঁকিতে থাকে। আক্রান্তদের ১৫ শতাংশের অবস্থা থাকে কিছুটা খারাপ। মাত্র তিন শতাংশের অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হয়, যাদের আইইসিইউতে রাখার দরকার পড়ে। বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ‘করোনাভাইরাস’ পাওয়া যায়নি। কোয়ারেন্টাইনে উহান ফেরত ৩১২ বাংলাদেশী যাত্রী সুস্থ আছেন। সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশের ৫ নাগরিক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, যাদের একজন এখন পর্যন্ত আইসিইউতে আছেন, আরও ৫ জনকে রাখা হয়েছে কোয়ারেন্টাইনে। করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে শুক্রবার আইইডিসিআর মিলনায়তনে নিয়মিত অবহিতকরণ সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডাঃ মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এসব কথা বলেন। বিশ্বের সার্বিক অবস্থা তুলে ধরে তিনি বলেন, বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদন অনুযায়ী এখন পর্যন্ত বিশে^ সর্বমোট শনাক্ত ‘করোনাভাইরাসে’ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৭৫ হাজার সাতশ’ আটচল্লিশ এবং গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন রোগী ৫৪৮। মোট শনাক্ত রোগীর মধ্যে চীনে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৭৪ হাজার ৬শ’ পঁচাত্তর জন। ‘করোনাভাইরাসে’ আক্রান্ত দেশগুলোর মধ্যে নতুন দেশ হিসেবে ইরানে একটি ‘করোনাভাইরাস’ আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। বিশ্বে আক্রান্ত রোগীর মধ্যে মোট মৃতের সংখ্যা দুই হাজার একশ’ ঊনত্রিশ।

বাংলাদেশ পরিস্থিতি

আইইডিসিআরের ভাইরোলজি ল্যাবে সন্দেহজনক ‘করোনাভাইরাস’ আক্রান্তদের নমুনা পরীক্ষা করে এ পর্যন্ত কারও নমুনায় ভাইরাস পাওয়া যায়নি। উহানফেরত ৩১২ বাংলাদেশীর কোয়ারেন্টাইন পরবর্তী আরও ১০ দিন সীমিত চলাচল ও নিজেদের স্বাস্থ্য পরিস্থিতি অবহিত করতে আইইডিসিআরের নিয়মিত যোগাযোগ রাখার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। তাদের প্রতি নির্দিষ্ট নির্দেশও দেয়া হয়েছে। তাদের কেউ কেউ হটলাইনে নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন, নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকেও তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে। তারা সবাই সুস্থ আছেন।

সিঙ্গাপুর পরিস্থিতি

সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে প্রেরিত সর্বশেষ খবরে জানা গেছে, ৫ বাংলাদেশী ‘করোনাভাইরাসে’ সংক্রমিত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। এদের মধ্যে একজন আইসিইউতে আছেন। কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৫ বাংলাদেশী। সিঙ্গাপুরে ৮৫ রোগী ‘করোনাভাইরাসে’ আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন, ১১০৪ জনকে পরীক্ষা করে ‘করোনাভাইরাস’ পাওয়া যায়নি। ৩৭ জনের পরীক্ষার ফল পাওয়ার অপেক্ষায়। বাংলাদেশে সিঙ্গাপুরে দূতাবাস থেকেও আমাদের সিঙ্গাপুর পরিস্থিতি সম্পর্কে নিয়মিত অবহিত করা হচ্ছে।

দেশের জল, স্থল ও আকাশপথে বাংলাদেশে আসা প্রত্যেককে স্ক্রিনিং করা হচ্ছে জানিয়ে অধ্যাপক ডাঃ ফ্লোরা বলেন, এ বছরের ২১ জানুয়ারি থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সমুদ্রবন্দর, স্থলবন্দর, রেলপথ ও বিমানপথে আসা মোট দুই লাখ ৫৬ হাজার আটশ’ চুয়ান্ন জনকে স্ক্রিনিং করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় স্ক্রিনিং করা হয়েছে ১৫ হাজার ৫শ’ চৌঁত্রিশ জনকে। এভাবে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের তিনটি আন্তর্জাতিক বিমাবন্দরে বিদেশ থেকে আগত স্কিনিংয়ের যাত্রী ৮হাজার তিনশ’ এক চট্টগ্রাম ও মংলা সমুদ্রবন্দরে স্ক্রিনিংয়ের যাত্রী ১১১, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট রেলওয়ে স্টেশনে স্ক্রিনিং করা হয়েছে ৭৭ যাত্রীকে। এছাড়া অন্যান্য চালু স্থলবন্দরে স্ক্রিনিংয়ের যাত্রীর সংখ্যা ছিল ৭ হাজার ছিয়াশি।

প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০

২২/০২/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: