২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

বিক্ষোভে উত্তাল দিল্লি, ১৬ মেট্রো স্টেশন বন্ধ

প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:৫০ পি. এম.
বিক্ষোভে উত্তাল দিল্লি, ১৬ মেট্রো স্টেশন বন্ধ
  • ইতিহাসবিদ রামচন্দ্র গুহ আটক

অনলাইন ডেস্ক ॥ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই উত্তপ্ত হয়ে উঠল দিল্লির লালকেল্লা এলাকা-সহ বেশি কিছু এলাকা।আজ বৃহস্পিিতবার প্রতিবাদ-বিক্ষোভ চলছে বেঙ্গালুরু, হায়দরাবাদেও।

১৪৪ ধারা চলছে দিল্লির কয়েকটি জায়গায়। তার মধ্যে লালকেল্লা চত্বরও রয়েছে। কিন্তু তা উপেক্ষা করেই এ দিন সকাল থেকে ভিড় জমাতে থাকেন বিক্ষোভকারীরা। আগে থেকেই সেখানে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন ছিল। বিক্ষোভকারীরা লালকেল্লার সামনে জমায়েত হতেই পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায়। বেশ কয়েক জনকে আটক করেছে পুলিশ।

এ দিনের এই বিক্ষোভেই শামিল হয়েছিলেন স্বরাজ ইন্ডিয়া-র সর্বভারতীয় সভাপতি যোগেন্দ্র যাদব। পুলিশ তাঁকেও আটক করে বলে জানা গিয়েছে। দিল্লির মান্ডি হাউস চত্বরেও পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। পরিস্থিতি সামাল দিতে সেখানে র‌্যাফ নামানো হয়। এখান থেকেও বেশ কয়েক জন বিক্ষোভকারীকে আটক করে পুলিশ। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে দিল্লিতে এ দিন ১৬টি মেট্রো স্টেশন বন্ধ করে দেওয়া হয়। এই মেট্রো স্টেশনগুলোর মধ্যে রয়েছে, লাল কিলা, জামা মসজিদ, চাঁদনি চক, বিশ্ববিদ্যালয়, জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া, জাসোলা বিহার, শাহিন বাগ এবং মুনিরকা।

অন্য দিকে, সিএএ-র প্রতিবাদে উত্তাল বেঙ্গালুরুও। এই আইনের প্রতিবাদে ইতিহাসবিদ রামচন্দ্র গুহ প্রতিবাদ মিছিলে সামিল হন। টাউন হলের সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন তিনি। ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে সেখানে। বড়সড় জমায়েতও নিষিদ্ধ। কিন্তু তা উপেক্ষা করেই টাউন হলের সামনে বিক্ষোভকারীরা জড়ো হন। সেখান থেকেই রামচন্দ্র গুহ-সহ বেশ কিছু বিক্ষোভকারীকে আটক করে পুলিশ। রামচন্দ্র সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “সাংবাদমাধ্যমকে সংবিধান নিয়ে বলার সময় আমাকে আটক করে পুলিশ। আমার হাতে গাঁধীজির একটা প্ল্যাকার্ড ছিল।” তাঁর প্রশ্ন দেশে কি স্বৈরতন্ত্র চলছে? পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ, আমরা শান্তিপূর্ণ ভাবেই প্রতিবাদ করছিলাম। কোনও অশান্তি হয়নি। কেন্দ্রের অঙ্গুলিহেলনেই পুলিশ এমন কাজ করছে।”

প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:৫০ পি. এম.

১৯/১২/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বিদেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: