মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৯ আশ্বিন ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র ॥ হাইকোর্টের আদেশে স্থগিতাদেশ চেয়েছে ইসি

প্রকাশিত : ২৭ অক্টোবর ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ টাঙ্গাইল-৪ আসনের উপনির্বাচনে কৃষক-শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র গ্রহণ করতে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিতের আবেদন করেছে নির্বাচন কমিশন। আজ মঙ্গলবার অবকাশকালীন চেম্বার বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের আদালতে এ আবেদনের শুনানি হতে পারে। নির্বাচন কমিশনের প্যানেল আইনজীবী ব্যারিস্টার মোঃ ইয়াসিন খান সোমবার বিকেলে সুপ্রীমকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদনটি জমা দেন।

আগামী ১০ নবেম্বর অনুষ্ঠেয় এই নির্বাচনে কাদের সিদ্দিকীর প্রার্থিতা ইসি খেলাপী ঋণের কারণে বাতিল করলেও হাইকোর্টের আদেশে ২২ অক্টোবর সব প্রার্থীর সঙ্গে তাকেও প্রতীক বরাদ্দ দেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। এর আগে গত ২১ অক্টোবর তার মনোনয়ন পত্র গ্রহণের জন্য নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিলে নির্বাচন কমিশন ও রিটানিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্ত স্থগিত ঘোষণা করেছে আদালত। সেই সঙ্গে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। রুলে কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়ন কেন বৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়েছেন। দুই সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়। রুলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও রিটার্নিং অফিসারকে বিবাদী করা হয়।

এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে গত ২১ অক্টোবর বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি মোঃ মিফতাহ উদ্দিন চৌধুরী ও বিচারপতি কাজী মোঃ ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত অবকাশকালীন বেঞ্চ নির্বাচন কমিশন ও রিটার্নিং অফিসারের সিদ্ধান্ত স্থগিত করে এই আদেশ দেয়। মামলার শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে এ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, নির্বাচন কমিশনের পক্ষে এ্যাডভোকেট তৌহিদুল ইসলাম এবং কাদের সিদ্দিকীর পক্ষে সিনিয়র আইনজীবী এজে মোহাম্মদ আলী অংশ নেন। তার সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী।

তার আগে ২০ অক্টোবর মঙ্গলবার মনোনয়নপত্র বাতিলের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী। রিট আবেদনে বলা হয়, ঋণখেলাপীর অভিযোগে তার মনোনয়ন বাতিল করা অবৈধ। কেননা, ব্যাংক কর্তৃপক্ষ পুনঃতফসিল করায় কাদের সিদ্দিকী ঋণখেলাপীর অন্তর্ভুক্ত হননি। এর আগে ১৩ অক্টোবর ঋণখেলাপীর অভিযোগে নির্বাচন কমিশন এ আসনের উপনির্বাচনে কাদের সিদ্দিকী ও তার স্ত্রী নাসরিন কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল করে। কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়ন বাতিল করে নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, সোনার বাংলা প্রকৌশলী সংস্থার নামে অগ্রণী ব্যাংকে ১০ কোটি ৮৮ লাখ টাকা ঋণ রয়েছে তাদের। কাদের সিদ্দিকী এ প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ও নাসরিন কাদের সিদ্দিকী পরিচালক। ঋণখেলাপী হওয়ায় তাদের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। আগামী ১০ নবেম্বর টাঙ্গাইলের-৪ আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

প্রকাশিত : ২৭ অক্টোবর ২০১৫

২৭/১০/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: