২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বেনজীর হত্যাকািণ্ডে জড়িত ছিল মাদ্রাসা ছাত্ররা


পাকিস্তানের এক মাদ্রাসার ছাত্ররা সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজীর ভুট্টোর হত্যাকা-ে জড়িত ছিল। সেটি ছিল খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের আকোরাঘটক শহরের দারুল উলুম হাক্কানিয়া মাদ্রাসা। বৃহস্পতিবার ঐ হত্যাকাণ্ডের বিচাররত এক সন্ত্রাস দমন আদালতকে (এটিসি) একথা জানানো হয়। অবশ্য ঐ মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের সঙ্গে কোন সম্পর্ক থাকার কথা অস্বীকার করেছে। রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা কারাগারের ভেতর ওই বিশেষ আদালতে বেনজীর হত্যাকা- মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এ আদালতের প্রধান হলেন বিচারপতি পারজেড ইসমাইল।

ফেডারেল তদন্ত এজেন্সির (এফআইএ) পেশোয়ার ইন্সপেক্টর নাসির আহমদ এবং সাব-ইন্সপেক্টর আদনান আদালতে বেনজীর ভুট্টোর হত্যাকা-ের দারুল উলম হাক্কানিয়ার ছাত্রদের জড়িত থাকার কথা জানান। রাষ্ট্রপক্ষের ওই উভয় সাক্ষী তাদের বিবৃতির সমর্থনে সাক্ষ্য প্রমাণ উপস্থাপন করেন।

শুনানি চলাকালে দারুল উলুম হাক্কানিয়ার শিক্ষা পরিচালক ওয়াসিল আহমদও তার বিবৃতি রেকর্ড করান। তিনি স্বীকার করেন যে, সন্দেহভাজন আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী আবদুল্লাহ ওরফে সাদ্দাম নাদির ওরফে ক্বারি ইসমাইল এবং সন্দেহভাজন বলে গ্রেফতাকৃত রাশিদ ওরকে তুরাবি এবং ফয়েজ মোহাম্মদ ওই মাদ্রাসা থেকে শিক্ষালাভ করেছিল। কিন্তু তিনি ওইসব সন্দেহভাজন ব্যক্তির সঙ্গে দারুল উলুম হাক্কানিয়ার কোন সংস্রব থাকার কথা অস্বীকার করেন। আহমদ তার বিবৃতিতে বলেন, বেনজীর হত্যাকা-ে জাড়িত ছিল বলে সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের মধ্যে খুব কম সংখ্যক তাদের শিক্ষা শেষ করার আগে মাদ্রাসা ত্যাগ করেছিল। -ডন