১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

দর কমলেও পুঁজিবাজারে লেনদেন বেড়েছে ছয় শতাংশ


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ টানা দ্বিতীয় দিনের মতো দেশের পুঁজিবাজারে সূচকের পতনের মধ্য লেনদেন শেষ হয়েছে। বিনিয়োগকারীদের মুনাফা তোলার প্রবণতার কারণে বেশিরভাগ কোম্পানির দর কমার কারণে প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সোমবার সূচকের পতন হলেও সেখানে প্রায় ৬ শতাংশ লেনদেন বেড়েছে। গত কয়েকদিনে অব্যাহতভাবে দর বাড়তে থাকা কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দর দিনটিতে বেশি কমেছে। তুলনামূলকভাবে শুধুমাত্র প্রকৌশল খাতের একটি বাদে সবগুলোর দর বেড়েছে। অবশিষ্ট খাতগুলোর দর কমে যাওয়া কোম্পানিগুলোর সংখ্যা কিছুটা বেশি। ঢাকার মতো দেশের অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক ও লেনদেন দুটোই কমেছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, সকালে বেশিরভাগ কোম্পানির দর কমার ফলে সূচকের কিছুটা নেতিবাচক প্রবণতা দিয়ে লেনদেন শুরু হয়। দিনশেষে ডিএসইতে ২৮০ কোটি ২৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে প্রায় ১৫ কোটি টাকা বেশি। আগের দিন এ বাজারে লেনদেন হয়েছিল ২৬৪ কোটি ৬৬ লাখ টাকা।

বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, আগামীতে রাজনৈতিক অস্থিরতা আরও বাড়তে পারে এমন আশঙ্কায় বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ অল্প দামে কেনা হাতে থাকা শেয়ারগুলো ছেড়ে দিয়েছেন, মূলত তাদের শেয়ার বিক্রির আদেশ বাড়ার কারণেই সূচকের মাঝারি ধরনের পতন ঘটেছে। এছাড়া গত সাত আট কার্যদিবস ধরে বেশকিছু কোম্পানির দর বাড়ছিল। সোমবারে ওই কোম্পানিগুলোর দর কমেছে বেশি।

দিনটিতে ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নেয় ৩১৩টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৬৮টির, কমেছে ২০৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৬টির শেয়ার দর।

ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্যসূচক ৬১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৪ হাজার ৭৬৯ পয়েন্টে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ১৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ১৩২ পয়েন্টে। ডিএস৩০ সূচক ২৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে এক হাজার ৭৭৫ পয়েন্টে।

ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে থাকা দশ কোম্পানি হচ্ছেÑ বেক্সিমকো, ইফাদ অটোস, আমরা টেকনোলজিস, মবিল যমুনা বাংলাদেশ, গ্রামীণফোন, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, বেক্সিমকো ফার্মা, অগ্নি সিস্টেমস, স্কয়ার ফার্মা এবং আরএকে সিরামিকস।

দর বৃদ্ধির সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ বঙ্গজ, বিডি কম, শাহজালাল ব্যাংক, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স, আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, এআইবিএল ১ম মিউচুয়াল ফান্ড, ট্রাস্ট ব্যাংক ১ম মিউচুয়াল ফান্ড, ১ম আইসিবি, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স ও ব্যাংক এশিয়া।

দর হারানোর সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ সামিট এলায়েন্স পোর্ট লিমিটেড, সুহৃদ ইন্ড্রাস্টিজ, বেক্সিমকো, ইফাদ অটোস, পিপলস ইন্স্যুরেন্স, পিপলস ইন্স্যুরেন্স, সমাতা লেদার, রিপাবলিক, এক্সিম ব্যাংক ১ম মিউচুয়াল ফান্ড, পিপলস লিজিং এ্যান্ড ফাইনান্স লিমিটেড ও প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল।

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ২৪ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। সিএসই সার্বিক সূচক ২১৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৫৮৯ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৪৩টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৪৩টির, কমেছে ১৭৩টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টির।

সিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ বেক্সিমকো, ন্যাশনাল ফিড মিলস লিমিটেড, ইফাদ অটোস, গ্রামীণফোন, ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড, বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড, আরএন স্পিনিং, আমরা টেক, আরকে সিরামিক ও লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট।