২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

অপরাজিতা সুসংবাদ


অপরাজিতা সুসংবাদ

এ্যাডা লাভলেস, বিশ্বের প্রথম নারী কম্পিউটার প্রোগ্রামার। কম্পিউটারের জনক হিসেবে খ্যাত চার্লস ব্যাবেজের এ্যানালাইটিক্যাল ইঞ্জিন নামের যন্ত্রের জন্য প্রোগ্রাম লিখেছিলেন তিনি। অথচ বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশে তো বটেই, বিশ্বের অনেক উন্নত দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের কাজকর্মে এখনও পিছিয়ে নারীরা। অন্যদিকে বাংলাদেশের বেশিরভাগ নারীদের এ বিষয়ক জ্ঞান ডিভাইস ব্যবহারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। যদিও প্রচলিত ধারার বিপরীতে অনেকেই কাজ শুরু করছেন এ খাতে। কেউ কেউ সাফল্যও পেয়েছেন। তাদের দেখে আগ্রহী হচ্ছেন অনেকে। আর এমন নারীদের জন্য আলাদা একটি প্লাটফর্ম তৈরি করে দিতে একটি ফোরাম করার উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ এ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার এ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)। ‘বেসিস উইমেন্স ফোরাম’ নামে এ ফোরামটি দেশব্যাপী পরিচালনা করবে তাদের কার্যক্রম। খুব শিগগিরই ঘোষণা আসছে এ ফোরাম গঠনের। ইতোমধ্যে ফোরাম গঠনের কার্যক্রম অনেক দূর এগিয়েছে। ঠিক করা হয়েছে সংগঠন লোগো, কাজ চলছে কাঠামো ও কর্মপরিকল্পনা তৈরিরও। এ ফোরামের আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতা করছে নেদারল্যান্ডসের একটি ফান্ড। ঘোষণার পর ৯ ফেব্রুয়ারি ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে গ্রান্ড কনফারেন্স করারও কথা রয়েছে এ ফোরামের।

বেসিসের ওয়ান বাংলাদেশ বাস্তবায়নে এক মিলিয়ন দক্ষ জনশক্তি তৈরির কার্যক্রমে নারীদের অংশগ্রহণ মূলস্রোতে রাখতে এ উইমেনস ফোরাম গঠনের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির সভাপতি শামীম আহসান। দীর্ঘদিন থেকেই তথ্যপ্রযুক্তি খাতে নারীদের অংশগ্রহণ এবং সেক্টর উপযুক্ত কর্মপরিবেশ তৈরির পরিকল্পনা করছিলেন তিনি। যার অংশ হিসেবে বেসিস এ ফোরাম গঠন করতে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমাদের দেশের নারীদের মেধা ও যোগ্যতা আছে, শুধু তাদের উৎসাহিত করতে হবে এবং সেই সাথে তৈরি করে দিতে হবে কাজের উপযুক্ত প্লাটফর্ম। আমরা এ ফোরামের মাধ্যমে সেই কাজটিই করব।

এ ফোরামের আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বেসিস পরিচালক সামিরা জুবেরি হিমিকাকে। তিনি এ উদ্যোগ নিয়ে সেক্টরের বিভিন্ন নারী উদ্যোক্তা ও নারী ফ্রিল্যান্সারদের নিয়ে কয়েকটি অধিবেশনও সম্পন্ন করেছেন। ফ্রিল্যান্সিংয়ে পুরস্কার পাওয়া আমেনা আক্তার যুক্ত হচ্ছেন এ ফোরামে। তিনি বলেন, আমাদের দেশে যেসব নারীরা যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও ঘরে বসে থাকেন তাদের আমরা তথ্যপ্রযুক্তি সেক্টরে কাজ করতে অনুপ্রাণিত করব। তারা ঘরে বসেই যেন ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন, সেজন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষণের আয়োজন করবে এ ফোরাম।

সম্প্রতি ফোরাম গঠনের একটি সেশনে যোগ দেওয়া ডিক্যাস্টালিয়া ডটকমের প্রতিষ্ঠাতা প্রযুক্তিবিদ সাবিলা ইনুন জানান, তথ্যপ্রযুক্তিতে পেশাজীবন গড়ার ক্ষেত্রে একজন নারীকে সমাজের বিভিন্ন স্তরে অনেক বাধার মুখোমুখি হতে হয়। অনেকের ক্ষেত্রেই আগ্রহ থাকা সত্ত্বেও নানা কারণে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে পেশাজীবন গড়া সম্ভব হয় না। এ ফোরামের মাধ্যমে সীমাবদ্ধতাগুলো কীভাবে কাটিয়ে ওঠা যায় এবং আরও সচেতনতা তৈরি করা যায় সেসব বিষয়ে কাজ করা হবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, বেসিস বাংলাদেশের সফটওয়্যার এবং তথ্য প্রযুক্তি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহের একটি সংস্থা যা জাতীয়ভাবে সফটওয়্যার এবং তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব বাজারে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করে।

অঞ্জন আচার্য