ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১

সিরিজ জিততে আশাবাদী সাবিনারা

​​​​​​​জাহিদুল আলম জয়

প্রকাশিত: ২২:০২, ৩ ডিসেম্বর ২০২৩

সিরিজ জিততে আশাবাদী সাবিনারা

বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলের খেলোয়াড়রা

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জয় করার পর ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দল। গর্বে ভাসানো সাফল্যের পর মাঠ মাঠের বাইরে অস্থির সময় পার করেছে লাল-সবুজের মেয়েরা। এই সময়ে আগের সফল কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের বদলে ডাগআউটে এসেছেন সাইফুল বারী টিটু। তার অধীনে আগের স্বর্ণসময় ফিরিয়ে আনার স্বপ্ন বুনছে বাংলার বাঘিনীরা। লক্ষ্যে গত শুক্রবার ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে সফরকারী সিঙ্গাপুরকে - গোলে পরাজিত করে কক্ষপথে ফেরার আভাস দিয়েছেন বাংলাদেশের মেয়েরা। এবার শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে সিরিজ জয়ের সুবর্ণ সুযোগ তহুরা, মারিয়া, সানজিদা, শিউলিদের। লক্ষ্যে আজ সিরিজের দ্বিতীয় শেষ ম্যাচে সিঙ্গাপুরের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। ঢাকার কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মো. মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বিকেল ৩টায়। ম্যাচে হার এড়ালেই সিরিজ জয়ের উল্লাস করবে স্বাগিতক বাংলাদেশ।

ফিফা ্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের চেয়ে বেশ খানিকটা এগিয়ে সিঙ্গাপুর। কিন্তু প্রথম ম্যাচে এটা কোনো প্রভাব ফেলেনি। দাপটের সঙ্গেই জয় তুলে নেন টিটুর শিষ্যরা। প্রথম ম্যাচে সাবিনা-তহুরাদেরকে তেমন চ্যালেঞ্জই জানাতে পারেনি অতিথিরা। তবে প্রথম ম্যাচের ভুল শুধরে দ্বিতীয় শেষ ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া সফরকারীরা। বাংলাদেশ কোচ সাইফুল বারী টিটু অধিনায়ক সাবিনা খাতুনও মনে করছেন, এবারের লড়াই তাদের জন্য কঠিন হবে। প্রথম ম্যাচের পর দুই দলই গুছিয়ে নেওয়ার জন্য সময় পেয়েছে দুইদিন। সিঙ্গাপুর কোচ করিম বেনসেরিফা রবিবার শিষ্যদের অনুশীলনে ঘাম ঝরিয়েছেন। এরপর তিনি জানিয়েছেন, আগের ম্যাচের ভুলগুলো শুধরে নিয়েছে তার দল। সিঙ্গাপুর কোচ করিম বলেন, বর্তমান দলে নিয়মিত খেলোয়াড়দের বেশ কয়েকজন নেই। তাদের অনুপস্থিতিতে নতুন কয়েকজন দলে এসেছে। এই দুইটি ম্যাচ তাদের জন্য দারুণ কাজে দিচ্ছে। আগের ম্যাচে অনেক ভুল করেছি আমরা। বাংলাদেশ দলের শক্তিমত্তাও বুঝেছি। সেগুলো শুধরে নিয়ে ভালো ম্যাচের আশা করছি। বাংলাদেশ কোচ সাইফুল বারী টিটুর মনে হচ্ছে, তাদেরকে বিশ্লেষণ করে দ্বিতীয় ম্যাচের ছক কষবে সিঙ্গাপুর। প্রথম ম্যাচের মতো এবার জয়ের লক্ষ্য পূরণের পথটা তার দলের জন্য মসৃণ হবে না। টিটু বলেন, আগেও বলেছি দ্বিতীয় ম্যাচ বেশি কঠিন হবে।

প্রথম ম্যাচে আমরা সুযোগ নিতে চেয়েছিলাম। কারণ তারা একদিন আগে এসে একদিনের অনুশীলনে খেলেছে। সেই সুযোগ আমরা নিয়েছি। দ্বিতীয় ম্যাচে ওরা আরও বিশ্লেষণ করবে। প্রথম ম্যাচ এমন হবে; সেটা ওরা প্রত্যাশা করেনি। সে দিক থেকে ম্যাচ কতটা কঠিন করা যায় তারাও চাইবে। ম্যাচটা তাই কঠিন হবে, লড়াই করতে হবে। তবে বাংলার কোচ শিষ্যদের চাপ নিতে বারণ করেছেন। প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মেয়েদের বলেছি চাপ না নিয়ে স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে। আপনি যখন ভালো খেলবেন, তখন এটা ধরে রাখা চ্যালেঞ্জের। হিসেবে মেয়েদের বলেছি তোমরা চ্যালেঞ্জ নাও। সাফজয়ী বাংলার মেয়েরাও চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন অধিনায়ক সাবিনা খাতুন। প্রথমবারের মতো সিঙ্গাপুরকে হারানোর পর দলের আত্মবিশ্বাস বেড়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। সাবিনা খাতুনও আত্মবিশ্বাসী কণ্ঠে জানিয়েছেন জয়ের ধারা ধরে রাখাই তাদের লক্ষ্য।

তিনি বলেন, দ্বিতীয় ম্যাচে প্রতিপক্ষ আসলে সব জেনে বুঝে খেলতে নামে। আরও প্রস্তুত হয়ে নামবে। আমরাও ভুলগুলো শুধরে খেলব। মেয়েদের নিয়ে আমি আত্মবিশ্বাসী। আমরা যদি স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারি তাহলে জিততে পারব। প্রথম ম্যাচে ১৩০ ফিফা ্যাঙ্কিংধারী সিঙ্গাপুরের বিরুদ্ধে জিতে মধুর প্রতিশোধ নিয়েছে ১৪২ ্যাঙ্কিংধারী বাংলাদেশ। ২০১৭ সালে দুদলের মধ্যে অনুষ্ঠিত আগের একমাত্র ফিফা প্রীতি ম্যাচে সিঙ্গাপুরের কাছে বাংলার মেয়েরা হেরেছিল একই ব্যবধানে। সিঙ্গাপুরকে হারিয়ে দীর্ঘ ১৪ মাস পর জয়ের দেখা পায় লাল-সবুজের দেশের মেয়েরা। ২০২২ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে স্বাগতিক নেপালকে - গোলে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। এরপর ২০২৩ সালে আরও ম্যাচ খেলে জিততে পারেনি একটিতেও। ড্র করেছে ২টিতে, আর হেরেছে বাকি ম্যাচে। তবে ব্যর্থতা কাটিয়ে জয়ের ধারায় ফেরা বাংলার মেয়েদের এবারের লক্ষ্য সিঙ্গাপুরের বিরুদ্ধে সিরিজ জয়।

 

 

×