ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০

বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে

সিলেটে সিরিজ নির্ধারণী লড়াই আজ

মো. মামুন রশীদ

প্রকাশিত: ০০:০৪, ২৩ মার্চ ২০২৩; আপডেট: ০০:০৫, ২৩ মার্চ ২০২৩

সিলেটে সিরিজ নির্ধারণী লড়াই আজ

তামিম ইকবালের সঙ্গে কোচ হাতুরুসিংহের পরামশ

প্রথম ম্যাচেই সফরকারী আয়ারল্যান্ডকে নাকানি-চুবানি খাইয়ে জয়ের রেকর্ড গড়ে স্বাগতিক বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে রানের পাহাড় গড়লেও জিততে আর পারেনি টাইগাররা। বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হওয়ায় সিরিজ জয় নিশ্চিত হয়নি। আজ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে ম্যাচেই সিরিজের ফয়সালা হবে। দিবারাত্রির এই ম্যাচটি সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে মাঠে গড়াবে। ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থাকলেও সিরিজ জেতার জন্য আজকের ম্যাচটি জিততেই হবে বাংলাদেশকে। কারণ হারলেই আয়ারল্যান্ড সমতা আনবে।

সেক্ষেত্রে সিরিজের ট্রফি হবে ভাগাভাগি। আগের দুই ম্যাচের ব্যর্থতা কাটিয়ে আজ তাই জেতার জন্য মরিয়া হয়েই মাঠে নামবে আইরিশরা। এই ম্যাচে নামার আগে বাংলাদেশের স্কোয়াড ২ জন কমিয়ে করা হয়েছে ১৪ সদস্যের। সেই দল থেকে বাদ পড়েছেন আফিফ হোসেন ধ্রুব ও শরিফুল ইসলাম। তাই জোর সম্ভাবনা রয়েছে আগের দুই ম্যাচের মতোই একাদশ নামানোর। 
আজকেও বৈরী আবহাওয়া বিঘœ ঘটাবে খেলায়। এমনকি সন্ধ্যায় বৃষ্টির বাগড়ায় খেলা বন্ধও হয়ে যেতে পারে। সিলেটে কয়েকদিন ধরেই বৈরী আবহাওয়া বিরাজ করছে। তাই দুই দলের অনুশীলনেও ঘটেছে ব্যাঘাত। স্বাগতিক দল হিসেবে বাংলাদেশ দলের জন্য তেমন সমস্যা নেই। কারণ নিজ দেশের পরিচিত পরিবেশ। আর সিরিজেও এখন পর্যন্ত প্রতিপক্ষ আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তেমন সমস্যায় পড়েনি তারা। কিন্তু বিপাকে পড়েছে আইরিশরা।

গত ১২ মার্চ সিলেটে পৌঁছার পর সিরিজ শুরুর আগে কয়েকদিন পূর্ণ অনুশীলন করার সুযোগ পায় আয়ারল্যান্ড দল। একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচেও দুর্দান্ত ব্যাটিং-বোলিংয়ের পারফর্ম্যান্স দেখিয়ে বিসিবি একাদশকে বিধ্বস্ত করে। কিন্তু ঘরের মাঠে দুর্বার বাংলাদেশ দলের বিপক্ষে মূল লড়াইয়ে নেমে রীতিমতো নাস্তানাবুদ হয়েছে তারা। প্রথম ওয়ানডেতে ৮ উইকেটে ৩৩৮ রানের রেকর্ড সংগ্রহ গড়া বাংলাদেশ জয় পেয়েছে নিজেদের সর্বোচ্চ ব্যবধান ১৮৩ রানে। এরপর দ্বিতীয় ওয়ানডেতে আরও ছাড়িয়ে গেছে তারা নিজেদের রেকর্ডকে। এবার ৬ উইকেটে ৩৪৯ রানের বিশাল সংগ্রহ গড়েছে।

তবে জিততে পারেনি। বৃষ্টির দাপটে ব্যাটিংয়ে নামতেই পারেনি আইরিশরা। এতে অবশ্য বেঁচেই গেছে তারা। বিশাল রান তাড়া করার চাপ নিতে হয়নি। দুই ম্যাচের এমন বাজে অভিজ্ঞতা সামলে নিজেদের ফিরে পাওয়ার জন্য মাঝে ২ দিন সময় পেয়েছে সফরকারী দল। কিন্তু বৈরী আবহাওয়ার কারণে অনুশীলন করতে পারেনি সেভাবে। এই অবস্থাতেই আজ সিরিজের শেষ ম্যাচে নামতে হবে তাদের। সিরিজ হার ঠেকানোর দারুণ সুযোগ তাদের সামনে। ওয়ানডে সিরিজের শেষটা ভালো করতে পারলে টি২০ সিরিজে আত্মবিশ্বাসী হয়ে মাঠে নামতে পারবে তারা।

এজন্য অবশ্য মূল দায়িত্বটাই নিতে হবে বোলারদের। গ্রাহাম হিউম ব্যতীত আর কেউ দুই ম্যাচে তেমন সুবিধা করতে পারেননি। আর প্রথম ম্যাচে ব্যাটিং ব্যর্থতা কাটানোর সুযোগটাই পায়নি। এমন অবস্থায় উজ্জীবিত স্বাগতিকদের বিপক্ষে জেতার কঠিন চ্যালেঞ্জ আজ আইরিশদের সামনে। 
দুই ম্যাচে ব্যাটিং পারফর্ম্যান্সে নিজেদের শক্তি ও সামর্থ্য আইরিশদের সামনে তুলে ধরেছে বাংলাদেশ। বিশেষ করে অভিষেক হওয়া তাওহিদ হৃদয় উভয় ম্যাচে নিজেকে মেলে ধরে মিডলঅর্ডারের দুশ্চিন্তা লাঘব করেছেন। অভিজ্ঞ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ নেই এবার। কিন্তু তার অভাবটা টের পেতে দেননি তাওহিদ। এছাড়া অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিম আছেন ফর্মের তুঙ্গে।

দ্বিতীয় ওয়ানডেতে বাংলাদেশের পক্ষে ওয়ানডেতে দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েছেন তিনি। তবে সেই ম্যাচের ফলাফল হয়ে গেলে আজ একাদশে আরও কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাতে পারত টিম ম্যানেজমেন্ট। তবে সিরিজ জয়ের বিষয়টি থাকার কারণে এখন তেমন পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই। চোখের সমস্যার কারণে অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান মিরাজ দুই ম্যাচে খেলেননি। 
শুধু তারই একাদশে ঢোকার সম্ভাবনা রয়েছে। সেক্ষেত্রে বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ কিংবা ইয়াসির আলী রাব্বি বেঞ্চে বসতে পারেন। ইয়াসির দুই ম্যাচেই সুযোগ পেয়েছেন শেষ সময়ে ব্যাটিং করার। তবে যতটুকু সময় পেয়েছেন চমক জাগানো ব্যাটিং উপহার দিতে পারেননি। এরপরও আজ আরেকটি সুযোগ পেতে পারেন তিনি। অধিনায়ক তামিম ইকবাল রানের মধ্যে নেই এটাই বড় দুশ্চিন্তার বিষয়।

ভালোভাবে শুরু করলেও ইনিংসটাকে বড় করতে না পারার আক্ষেপে ভুগছেন এ বাঁহাতি ওপেনার। দারুণ ফর্মে আছেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও লিটন কুমার দাস। আর বোলিংয়ে নিয়মিত দাপট দেখিয়ে চলেছেন তাসকিন আহমেদ ও এবাদত হোসেন চৌধুরী। দ্বিতীয় ম্যাচের মতোই এ দুজনের সঙ্গী হিসেবে হাসান মাহমুদকেই দেখা যেতে পারে আজ। কারণ বৃষ্টির দাপটে আগের ম্যাচে একাদশে থাকলেও কোনো বল করতে পারেননি এ তরুন পেসার।

×