ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০

রোমাঞ্চের ভেলায় ভাসছেন চ্যাম্পিয়ন সাবালেঙ্কা

জিএম মোস্তফা

প্রকাশিত: ০০:১৮, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩

রোমাঞ্চের ভেলায় ভাসছেন চ্যাম্পিয়ন সাবালেঙ্কা

শিরোপা জিতে হয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের নতুন রানী, সেই উচ্ছ্বাসে এখনো ভাসছেন বেলারুশের এরিনা সাবালেঙ্কা, রবিবার মেলবোর্ন পার্কে এভাবেই ক্যামেরাবন্দী হন তিনি

অবশেষে দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান। স্বপ্নের শিরোপায় চুমো আঁকলেন এরিনা সাবালেঙ্কা। শনিবার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে এলিনা রিবাকিনাকে হারিয়ে জীবনের প্রথম কোনো গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করলেন বেলারুশ সুন্দরী। মেলবোর্নের শিরোপা উঁচিয়ে ধরার ঘোর এখনো কাটেনি সাবালেঙ্কার। স্বপ্নের শিরোপা জয়ের উচ্ছ্বাসে রাতে তেমন ঘুমাতেও পারেননি অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের নতুন চ্যাম্পিয়ন।
ঘুম থেকে উঠে এক সাক্ষাৎকারে জানালেন, এটাই তার জীবনের সেরা সকাল। সাবালেঙ্কা এতটাই ঘোরে আচ্ছন্ন যে, তার কাছে মনে হচ্ছে ভিন্ন কোনো গ্রহের মধ্যে বাস করছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে ২৪ বছর বয়সী বেলারুশ তারকা বলেন, ‘আমি মনে করি, এটাই আমার জীবনের সবচেয়ে সেরা সকাল। অপূর্ব সুন্দর এক সকাল। এখনো মনে হচ্ছে, ভিন্ন কোনো গ্রহের মধ্যে বাস করছি আমি। কী ঘটছে, তা বোঝার চেষ্টা করছি।’ নতুন বছরটা স্বপ্নের মতোই শুরু হলো সাবালেঙ্কার। অ্যাডিলেড ইন্টারন্যাশনাল টেনিস টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতে যার সূচনা করেছিলেন তিনি। এরপর ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ডস্লামের ট্রফি উঁচিয়ে ধরলেন মেলবোর্নে। দুর্দান্ত খেলা এলিনা রিবাকিনাকে হারানোর পর কেমন ছিল তার অনুভূতি? সাবালেঙ্কা বলেন, ‘ঠিক স্বপ্নের মতোই মনে হচ্ছিল ব্যাপারটা। শিরোপা জিতে আমি সত্যিই অনেক খুশি হয়েছি। কেননা, সে (রিবাকিনা) কোর্টে অবিশ্বাস্য লড়াই করছিল। এই ট্রফিটার জন্য আমি নিজেও খুব লড়াই করেছি। যেভাবে লড়াই করে শিরোপা জিতেছি, তাতে আমি সত্যিই বিস্মিত। তবে আমি যে কেঁদে ফেলব- তা প্রত্যাশা করিনি। ঠিক ওই মুহূর্তে আমার মনের মধ্যে অনেক রকমের ভাবনা এসে ভিরড় করছিল। নিজেকে নিয়ে অনেক বেশি গর্ববোধ করছিলাম তখন। দলটার জন্যও আনন্দ হচ্ছিল। সত্যি কথা বলতে, এখন পর্যন্ত এটাই আমার জীবনের সেরা মুহূর্ত।’
গত কয়েক বছর ধরেই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে এরিনা সাবালেঙ্কা। এই সময়ে ১০টি ডব্লিউটিএ শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছেন তিনি। গত দুই বছরে তিনটি গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালেও জায়গা করে নেন বেলারুশ তারকা। তবে গত বছর টেনিস কোর্টে লড়াই করার মানসিকতা এবারের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জয়ের পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে বলে মনে করেন তিনি। সাবালেঙ্কা বলেন, ‘গত বছরে অনেক কঠিন মুহূর্ত পার করেছি আমি। অনেকেই বলছিল, এ সবের পেছনে কোনো না কোনো কারণ থাকে, কিন্তু সত্যি কথা বলতে- আমি সেগুলোর কোনো কারণ খুঁজে পাচ্ছিলাম না। আমার কোথায় ভুল হচ্ছে, সেগুলোও বুঝতে পারছিলাম না। তবে এই মুহূর্তে এখানে বসে তা বুঝতে পারছি। এখন আরাধ্য সেই স্বপ্নের শিরোপাও আমার হাতে। আমি মনে করি, কঠিন সেই সব পরিস্থিতি অতিক্রম না করলে হয়তো এই গ্র্যান্ডস্লাম জিততে পারতাম না। গত বছরের এ সব পরিস্থিতির কারণেই আমার নিজের ওপর আত্মবিশ্বাসটা আরও বেড়েছিল। আমি মনে করি তা সত্যিই আমাকে এই গ্র্যান্ডস্লাম জেতাতে সহায়তা করেছে। আমার জন্য যা সত্যিই পাগলাটে এক ব্যাপার।’
নতুন মৌসুমের প্রথম মেজর টুর্নামেন্টের শিরোপা জয়ের সৌজন্যে বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়েও তার প্রভাব পড়েছে। আবারও র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দুইয়ে ফিরেছেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জয়ের পর এখন কিছুটা সময় বিশ্রামে যাওয়ার পরিকল্পনার কথা জানালেন সাবালেঙ্কা। ফেব্রুয়ারির ১৯ তারিখে দুবাইয়ে কোর্টে ফেরার কথা রয়েছে তার। এ প্রসঙ্গে বেলারুশ সুন্দরী বলেন, ‘আমার মনে হয় কেবল মাত্র দুইবাইয়ে খেলতে পারি আমি। কেননা, এখন আমার কিছুটা সময় বিশ্রাম প্রয়োজন।’ তবে রীতি অনুযায়ী মেলবোর্নের রয়াল বোটানিক্যাল গার্ডেনে রবিবারের সকালটা ফটোসেশনে দারুণ উপভোগ করেছেন এরিনা সাবালেঙ্কা।

 

 

×