ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

রেফারি আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ছিল:মেসি 

প্রকাশিত: ১১:৪৬, ১০ ডিসেম্বর ২০২২; আপডেট: ১৪:৫০, ১০ ডিসেম্বর ২০২২

রেফারি আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ছিল:মেসি 

রেফারি আন্তনিও মাতেও লাহজ

রুদ্ধশ্বাস এক ম্যাচের পর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পৌঁছে গেছে আর্জেন্টিনা। নেদারল্যান্ডসকে তারা হারিয়েছে টাইব্রেকারে গিয়ে। তবে এর আগে এই ম্যাচেও আলোচনায় এসেছে রেফারিং।  

স্প্যানিশ রেফারি আন্তনিও মাতেও লাহজ ১৬ কোচ-ফুটবলারকে হলুদ কার্ড দেখিয়েছেন। মোট ৪৮বার তিনি ফাউলের বাঁশি বাজিয়েছেন। ম্যাচ জেতার পরও রেফারির প্রতি নিজের অসন্তোষ লুকাননি সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতা লিওনেল মেসি। 

তিনি বলেছেন, ‘আমার মনে হয় ফিফার এই রেফারিকে এই ধরনের ম্যাচে দায়িত্ব দেওয়া উচিত না। কারণ সে এটার যোগ্যই না। ’

ম্যাচ জেতার প্রতিক্রিয়া জানিয়ে মেসি বলেন, ‘অনেক আনন্দ, অনেক খুশি লাগছে। ম্যাচটা অতিরিক্ত সময় কিংবা পেনাল্টিতে যাওয়ারই কথা ছিল না। আমাদের ভুগতে হতো এরপর। কিন্তু আমরা বেরিয়ে এসেছি, যেটা দারুণ। ’

এমিলিয়ানো মার্তিনেজ, লিওনেল মেসি ও ভাউট বেগহোর্স্টের পাশাপাশি আর্জেন্টিনা ও নেদারল্যান্ডস ম্যাচে আলোচনায় ছিলেন আরও একজন—স্প্যানিশ রেফারি আন্তনিও মাতেও লাহজ। পুরো ম্যাচে তিনি এমন কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, যা নিয়ে অসন্তুষ্ট আর্জেন্টিনা।

আন্তনিও পুরো ম্যাচে হলুদ কার্ড দেখিয়েছেন ১৮টি। বিশ্বকাপ ইতিহাসে যা সর্বোচ্চ। ডাচ ও আর্জেন্টাইন ফুটবলারদের কার্ড দেখিয়েছেন সমান ৮টি করে। এমনকি হলুদ কার্ড দেখিয়েছেন আর্জেন্টাইন কোচ লিওনেল স্কালোনি ও সহকারী ওয়াল্টার স্যামুয়েলকেও। হলুদ কার্ড দেখেছেন মেসিও

ম্যাচ শেষে আর্জেন্টাইন অধিনায়ক মেসিও তাই চুপ থাকেননি। ধুয়ে দিয়েছেন এই স্প্যানিশ রেফারিকে, ‘রেফারি সম্পর্কে কথা বলতে চাই না। মানুষ দেখেছে কী হয়েছে। ফিফার এটা পুনর্বিবেচনা করা উচিত। যে নিজের কাজটা ভালোভাবে জানে না, এত গুরুত্বপূর্ণ এক ম্যাচে তাকে দায়িত্ব দেওয়া উচিত না। আমরা খুব একটা ভালো খেলিনি। সঙ্গে রেফারির কারণেই অতিরিক্ত সময়ে খেলা পৌঁছেছে। সে সব সময় আমাদের বিপক্ষে ছিল। এমনকি যে গোলটি দিয়ে সমতায় ফিরেছে ওরা, সেটাও ফাউল ছিল না।’

নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে টাইব্রেকারে অতিমানব হয়ে উঠেছিলেন এমিলিয়ানো মার্তিনেজ। টাইব্রেকারে পেনাল্টি সেভ করে নায়ক বনে যাওয়া মার্তিনেজও মেসির সুরেই সুর মিলিয়েছেন। তিনি আশা করছেন, সামনের ম্যাচগুলোতে এমন কোনো রেফারিকে দেখা যাবে না, ‘রেফারি ডি বক্সের সামনে কয়েকবার ফ্রি কিক দিয়েছেন। সে চেয়েছিল যেন নেদারল্যান্ডস গোল করে। আশা করছি, এ ধরনের রেফারি সামনে আর পাব না। সে একটা অপদার্থ।’

তাসমিম

monarchmart
monarchmart