ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০

কমলাপুর স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ সিঙ্গাপুর

জয়ের লক্ষ্যে আজ মাঠে নামবেন সাবিনারা

রুমেল খান

প্রকাশিত: ০০:৫৭, ১ ডিসেম্বর ২০২৩

জয়ের লক্ষ্যে আজ মাঠে নামবেন সাবিনারা

সিঙ্গাপুরের বিরুদ্ধে ফিফা আন্তর্জাতিক ম্যাচ সামনে রেখে অনুশীলনে বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের খেলোয়াড়রা

এক দলের নিকনেম ‘বেঙ্গল টাইগ্রেস’, অন্য দলের নিকনেম ‘লায়নেসেস’। তার মানে একদিকে বাঘিনী, অন্যদিকে সিংহিনী! বলা হচ্ছে বাংলাদেশ বনাম সিঙ্গাপুর জাতীয় নারী ফুটবল দলের কথা। সর্বশেষ এশিয়ান গেমসে দুদলই অংশ নিয়েছিল, তবে ভিন্ন ভিন্ন গ্রুপে। এক ফাঁকে সিঙ্গাপুর দল বাংলাদেশ দলকে প্রস্তাব দিয়েছিল একটি অনুশীলন ম্যাচ খেলার। কিন্তু সময়-স্বল্পতার কারণে ম্যাচটি খেলতে অপারগতা প্রকাশ করেছিল বাংলাদেশ। তবে তখন সম্ভব না হলেও এবার ঠিকই বাংলাদেশের সঙ্গে ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে সিঙ্গাপুর।

তবে সেটা অনুশীলন ম্যাচ নয়, ফিফা প্রীতি ম্যাচ। তাও আবার দুটি। যার প্রথমটি অনুষ্ঠিত হবে আজ শুক্রবার, বিকেল ৪টায়। ভেন্যু ঢাকার কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মো. মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম। এই ম্যাচ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার বিকেলে ম্যাচের ভেন্যুতে দুদল শেষবারের মতো অনুশীলনে ঘাম ঝরায়।
ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে সিঙ্গাপুরই এগিয়ে (১৩০)। তাদের চেয়ে ১২ ধাপ পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ (১৪২)। এ পর্যন্ত দুদল একটিই ম্যাচ খেলেছে। সেটা ছয় বছর আগে। সেই ফিফা প্রীতি ম্যাচে জয়ের হাসি হেসেছিল সিঙ্গাপুরই। তাদের কাছে ৩-০ গোলে হেরেছিল বাংলাদেশ। আজ যদি বাংলাদেশ জিততে পারে, তাহলে ছয় বছর আগের হারের মধুর প্রতিশোধ নিতে পারবে তারা। ছয় বছর আগে বাংলাদেশ দল যে অবস্থায় ছিল, এখন তার চেয়ে আরও ভালো অবস্থায় তারা। এই অর্ধযুগে অনেক এগিয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। তবে ফল কি হবে তা ম্যাচের আগে বলতে নারাজ বাংলাদেশ কোচ সাইফুল বারী টিটু ও অধিনায়ক সাবিনা। কারণ এই সিঙ্গাপুর সম্পর্কে তাদের তেমন কোনো ধারণাই নেই।

অধিনায়ক সাবিনার কথায়, ‘আমি সিঙ্গাপুর সম্পর্কে জানি না। তাই কোনো মন্তব্য (জয়-পরাজয় নিয়ে) করে বসাটা মনে হয় না ভালো হবে। ওদের সঙ্গে যদি দুয়েক বছরের মধ্যে খেলা হতো, পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকত, তাহলে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারতাম কিছু একটা। তবে আশা করছি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ খেলাই হবে।’ সিঙ্গাপুরের বর্তমান দল সম্পর্কে কোচ টিটুর ভাষ্য, ‘দলটা পুনঃর্গঠনের মধ্যে রয়েছে। অনেক বদলের মধ্যে আছে ওরা। ৬ মাস আগে যে খেলোয়াড়রা ছিল, এখন তারা নেই।’ চোটের কারণে এই ম্যাচে খেলবেন না দলের নির্ভরযোগ্য ফরোয়ার্ড কৃষ্ণা রানী সরকার।

তার অভাববোধ প্রসঙ্গে টিটুর মন্তব্য, ‘কৃষ্ণার পজিশনে ঋতুপর্ণা চাকমাকে খেলানোর কথা ভাবছি। যদিও ঋতুপর্ণা স্ট্রাইকার নয়, মিডফিল্ডার। তারপরও সে গোল করতে পারদর্শী। আমার মনে হয়, ঋতু ওর জায়গা পূরণ করতে পারবে।’ গত সাফ চ্যাম্পিয়শিপে পাকিস্তান ও ভুটানের বিপক্ষে ম্যাচে গোল পেয়েছিলেন ১৯ বছর বয়সী ঋতুপর্ণা। অধিনায়ক সাবিনা আশাবাদী, কৃষ্ণার শূন্যতা পূরণ করতে পারবেন ঋতুপর্ণা। সাবিনা আগের দিন আরেকটি সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, ‘দলের বাকি প্লেয়াররাও ভালো। ডিফেন্স লাইনে মাসুরাও অনেক অভিজ্ঞ ও সিনিয়র। সবাই এখন দায়িত্ব নিয়ে খেলে। আমাদের সবার পজিশনই এখন রোটেট হয়।’  
কোচ টিটু বলেন, ‘এশিয়ান গেমসের মতো আসরে খেলে যেটা পাওয়া যায়, তা হলো এশিয়ান লেভেলে আমাদের মেধা আসলে কোন পর্যায়ে আছে, তার একটা ধারণা পাওয়া যায়। সেগুলোর সঙ্গে যোগ হবে, এখন আমাদের মাঠে খেলা, আবহাওয়া-দর্শক সবই আমাদের। এই জিনিসগুলোর একটা ইনফ্লুয়েন্স আমাদের কাজে লাগাতে হবে সর্বোপরি। এগুলো হচ্ছে এক্সট্রার্নাল ব্যাপার। আর ইন্টারন্যাল বিষয় হচ্ছে প্ল্যান। সিঙ্গাপুরের খেলা দেখেছি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে। গত ছয় মাস আগে ওদের যে সি-গেমস হয়, সেখানে তাদের একটা টিম খেলেছে।

আবার এশিয়ান গেমসে খেলা অনেক প্লেয়ারই এখন নেই। অনেকটা নতুন দলই। তবে ওদের একটা গোলকিপারের বয়স ৩৮। এছাড়া দুইটা প্লেয়ার আছে ৩১ বছর বয়সী। ২৬ বছরেরও আছে। রেস্ট অব দ্য প্লেয়ার্স হচ্ছে ইয়াং। তার মানে টিমটা হচ্ছে ফুল অব রানিং। তো ওই জায়গাটাতে আমাদের এপ্রোচটা থাকবে যেন ওদের বিপক্ষে ওভারকাম করতে পারি। প্ল্যান আসলে কিছুই না। আমাদের প্লেয়ার অনেকদিন একসঙ্গে খেলছে। ফলে তাদের মধ্যে আন্ডারস্ট্যান্ডিং বেশ ভালো। 
ওদের মধ্যে যে জিনিসটা দেখেছিÑ ওরা যদি খুব ইচ্ছা করে, তাহলে যে কোনো দলের বিরুদ্ধেই ঘুরে দাঁড়াতে পারে, এই মেন্টাল টাফনেসটা ওদের মধ্যে আছে। প্রথম ম্যাচটায় ভালো করলে পরেরটা সহজ হয়ে যাবে। সব মিলিয়ে এশিয়ান গেমসের এক্সপিরিয়েন্সটা কাজে লাগবে। ওই আসরে জাপান চ্যাম্পিয়ন হয়, ওদের সঙ্গে আমরা গ্রুপ ম্যাচে খেলেছি। রানার্সআপ উত্তর কোরিয়ার সঙ্গেও খেলেছে সিঙ্গাপুর। 
এই জিনিসগুলো থেকে যে যতটা এখন নিতে পারে আর কি।’ এখন দেখার বিষয়, আজকের বাঘিনী বনাম সিংহিনীদের লড়াইয়ের ফল কি হয়।

×

শীর্ষ সংবাদ:

লিবিয়া থেকে ফিরলেন ১৪৪ বাংলাদেশি
ভারত থেকে এলো ৫০ মেট্রিক টন নারিকেল
বিশেষ ব্যবস্থায় মালয়েশিয়া প্রবাসীদের পাসপোর্ট দেবে হাইকমিশন
ষড়যন্ত্র আছেই, ষড়যন্ত্র হচ্ছে প্রত্যেকবারই : প্রধানমন্ত্রী
কুয়াকাটায় হোটেল না পেয়ে বাসাবাড়ি ভাড়া নিচ্ছেন পর্যটকরা
সেনাবাহিনীতে যোগ দিলে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দেবে মিয়ানমার
বুয়েট প্রাক্‌-নির্বাচনী ভর্তি পরীক্ষা আজ
শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা পাচ্ছেন আর্থিক অনুদান, আজই আবেদনের শেষ সুযোগ
১৮তম শিক্ষক নিবন্ধন: প্রবেশপত্র ডাউনলোড শুরু
রমজানে মক্কার মসজিদুল হারামে ইফতার পরিবেশনে নতুন নিয়ম সৌদির
প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক রুটে বাস চালু করলো সৌদি
কূটনৈ‌তিক সম্পর্ক জোরদারে ঢাকায় ৩ মা‌র্কিন কর্মকর্তা