ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০

পাকিস্তানে নির্বাচনে ভোট কারচুপির তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত: ১৫:৩৯, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪; আপডেট: ১৫:৪৭, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

পাকিস্তানে নির্বাচনে ভোট কারচুপির তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র

ম্যাথিউ মিলার

পাকিস্তানে সদ্য অনুষ্ঠিত নির্বাচনে অনিয়ম ও ভোট কারচুপির অভিযোগের স্বাধীন তদন্ত করার জন্য পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। অনিয়মের তদন্ত করতে আহ্বান জানিয়েছে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ আহ্বান জানান মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম দ্য ডন মঙ্গলবার ( ১৩ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গত ৮ ফেব্রুয়ারির সাধারণ নির্বাচনের সময় অনিয়ম ও ভোট কারচুপির অভিযোগের স্বাধীন তদন্ত করার জন্য পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার বলেন, 'আমরা মনে করি পাকিস্তানের আইনি ব্যবস্থা এ ঘটনার তদন্ত করতে নিজেই কার্যকর। আর এটিই প্রথম কাজ হওয়া উচিত। প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে এটিই সঠিক হবে আর তাদের এটিই করা উচিত।'

এর আগে ইমরান খানের দল পিটিআই অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ভোট কারচুপির অভিযোগ তোলেন। এরই প্রেক্ষিতে দলটি দেশজুড়ে বিক্ষোভের ডাক দেয়। নির্বাচনে এমন অনিয়মের অভিযোগে বিশ্বজুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। 

এ পরিস্থিতিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র অনিয়ম তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে। এ বিষয়ে মিলার বলেন, 'হস্তক্ষেপ এবং জালিয়াতির যে দাবিগুলো দেখা যাচ্ছে তা পাকিস্তানের আইনি ব্যবস্থার মাধ্যমে সম্পূর্ণরূপে তদন্ত করার বিষয়টি আমরা নিশ্চিত করতে চাই। সামনের দিনগুলোতে এটি নিয়ে আমরা পর্যবেক্ষণ চালিয়ে যাব।'

কারচুপির অভিযোগে মার্কিন প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, 'আমরা প্রকাশ্যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছি এবং কিছু অনিয়ম নিয়ে ইইউ, যুক্তরাজ্য এবং অন্যান্য দেশের পাশে দাঁড়িয়েছে। কিছু অনিয়ম আমরা নির্বাচনের এই প্রক্রিয়াটিতে দেখেছি।'

রাজনৈতিক ও নির্বাচন-সম্পর্কিত সহিংসতা এবং ইন্টারনেট ও সেল ফোন পরিষেবার ওপর বিধিনিষেধ আরোপ নির্বাচন প্রক্রিয়ায় নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে বলে মন্তব্য করেন মিলার।

তিনি বলেন, ‘আমরা নির্বাচনের সময় আইনের শাসন, সংবিধানের প্রতি শ্রদ্ধা, স্বাধীন গণমাধ্যম, সুশীল সমাজকে সম্মান করার বিষয়টি দেখতে চাই এবং আমরা এটিই বিশ্বাস করি।’

এছাড়া মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য পাকিস্তানের জনগণকে অভিনন্দন জানান। একইসাথে পাকিস্তানি নির্বাচন কর্মী, সুশীল সমাজ, সাংবাদিক এবং নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের গণতান্ত্রিক ও নির্বাচনী প্রতিষ্ঠান রক্ষা ও সমুন্নত রাখায় তাদের কাজের জন্য অভিনন্দন জানান।

তাসমিম

×