ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

আমেরিকার ভিজিট ভিসার আবেদন করতে যা লাগবে 

প্রকাশিত: ২০:০১, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

আমেরিকার ভিজিট ভিসার আবেদন করতে যা লাগবে 

আমেরিকার ভিসা।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আয়তন প্রায় ৯৮.৩ লক্ষ বর্গকিলোমিটার (৩৭.৯ লক্ষ বর্গমাইল)। দেশটির জনসংখ্যা প্রায় ৩২ কোটি ৮২ লাখ। সামগ্রিক আয়তনের হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বের তৃতীয় অথবা চতুর্থ বৃহত্তম রাষ্ট্র। আবার স্থলভূমির আয়তন ও জনসংখ্যার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম দেশ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সমাজ বিশ্বের সর্বাপেক্ষা বৈচিত্র্যমণ্ডিত বহুজাতিক সমাজব্যবস্থা। বহু দেশ থেকে বিভিন্ন জাতির মানুষের অভিবাসনের ফলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আজ একটি বহুসংস্কৃতিবাদী দেশ।

দেশটিতে ভিজিট ভিসার জন্য আবেদন করতে আপনার যেসব দরকার-

স্টেপ-১

১. প্রথমেই আপনাকে অনলাইন ইমিগ্রান্ট ভিসা ইলেকট্রোনিক অ্যাপলিকেশন ফর্ম ডিএস-১৬০ পূরণ করতে হবে। আপনার পাসপোর্ট এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ কাগজাদি সাথে নিয়ে এই ওয়েবসাইটে ফরমটি পূরণ করা শুরু করুন। ফরমটি পূরণ করার সময় অনেক তথ্য আপনাকে দিতে হবে এবং এ জন্যে সময় প্রয়োজন। যদি একদিনে সব তথ্য আপনি দিতে না পারেন, তাহলে পরবর্তীতেও অসম্পূর্ণ ফরমটি পূরণ করতে পারবেন।

২. আপনি যে সময়ে আমেরিকা ভিজিট করবেন, তার কমপক্ষে দুই মাস আগে অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন করাটা ভালো।

৩. ডিএস-১৬০ পূরণকালীন সময়ে আপনার পাসপোর্ট এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ কাগজাদি থেকে প্রাপ্ত তথ্যসমূহ ফরমে পূরণ করাটা খুব কঠিন কোন বিষয় নয়। আপনার বাবার জন্ম তারিখ উল্লেখ করুন।

৪. আপনার নিজের বিগত ৫ বছরের কাজের তথ্য বিস্তারিত উল্লেখ করুন। ওয়ার্ক এক্সপেরিয়েন্স যা উল্লেখ করবেন, সেগুলোর পেপার কপি আপনার কাছে অবশ্যই থাকতে হবে যা পরবর্তীতে ইন্টারভিউয়ের সময় সাথে করে নিয়ে যেতে হবে।

৫. আমেরিকায় আপনি কার কাছে যাবেন, তার বিস্তারিত তথ্য (নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর, তার সাথে আপনার সম্পর্ক ইত্যাদি) আপনাকে ফরমে উল্লেখ করতে হবে।

৬. জাতীয়তা এবং ন্যাশনাল আইডি।

৭. অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন (ডিএস-১৬০) করার সময় আপনার ফটোগ্রাফের সফট কপির প্রয়োজন হবে, যা অনলাইনে আপলোড করতে হবে। আমি নিজের ক্ষেত্রে ড্যানফোর্থ বাংলা পাড়ায় গিয়ে ‘ঢাকা সফট’ থেকে ফটোগ্রাফের সফট কপি পেনড্রাইভে এবং দুই কপি হার্ড কপি সাথে করে নিয়ে এসেছিলাম। সেক্ষেত্রে আমার মাত্র ৫ ডলার খরচ হয়েছিল।

৮. অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন শেষ হবার পর আপনি একটি কনফার্মেশন পেজ পাবেন। এই পৃষ্ঠাটি আপনাকে প্রিন্ট আউট করে নিতে হবে। তৎক্ষণাৎ না পারলেও পরবর্তীতে আপনার ইমেইল অ্যাকাউন্ট থেকে আপনি সেটির প্রিন্ট নিতে পারবেন। এই কনফার্মেশন পেজটিতে একটি বার কোড থাকে। সুতরাং খুব ভালো প্রিন্টার থেকে প্রিন্ট করে নেয়াটাই ভালো।

৯. ইউএসএ কেন যাবেন, তার খুব সংক্ষিপ্ত এবং সুনির্দিষ্ট কারণ আপনাকে উল্লেখ করতে হবে।

স্টেপ-২:

এই স্টেপে আপনাকে আপনার ভিসা অ্যাপ্লিকেশনের জন্যে পেমেন্ট দিতে হবে এবং অ্যাপয়েন্টমেন্ট শিডিউল ঠিক করতে হবে। বি-২ ভিসার জন্যে অ্যাপ্লিকেশন ফি ১৬০ ইউএস ডলার ও ট্যাক্স। রেজিস্টার করার পর আপনার অ্যাকাউন্টে লগ ইন করে আপনার কিছু বেসিক ইনফরমেশন দেবার পর পে-পাল/ ভিসা কার্ডের মাধ্যমে ভিসা ফি পে করে দিন। ফি পেমেন্ট করার পর পেমেন্ট কনফার্মেশনের কপি প্রিন্ট করে নিন।

ইন্টারভিউ-এর দিনে যে কাগজপত্রগুলো অবশ্যই নিয়ে যাবেন-

১. আপনার পাসপোর্ট যা ইউ.এস ভিসায় অ্যাপ্লিকেশন করার সময় পাসপোর্টের মেয়াদ নূন্যতম ৬ মাস আছে।
২. স্টেপ-১ এর কনফার্মেশন পেজ এর প্রিন্ট আউট (বার কোড সহ)
৩. স্টেপ-২ এর ভিসা পেমেন্ট ফিস এর প্রিন্ট আউট

অন্য যে কাগজগুলো সাথে নিয়ে যাবার পরামর্শ-

১. ফটোগ্রাফ (হার্ড কপি) ২ টা
২. ব্যাংক স্টেটমেন্ট - চেকিং অ্যাকাউন্ট (বিগত ১ বছরের)
৩. আপনি যদি বর্তমানে কর্মরত থাকেন অথবা পূর্বে কাজ করে থাকেন, তাহলে কর্মস্থল থেকে প্রাপ্ত এক্সপেরিয়েন্স লেটার অথবা পে-চেক
৪. ট্যাক্স রিটার্ন পেপার
৫. ল্যাণ্ডিং পেপার
৬. ড্রাইভার্স লাইসেন্স
৭. আমেরিকা থেকে যদি প্রাপ্ত কোন অফার লেটার থাকে সেটি।

 

এম হাসান

সম্পর্কিত বিষয়:

×