ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০

‘শনিবার বিকেল’ মুক্তির জট কাটেনি

সংস্কৃতি ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২:৩০, ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

‘শনিবার বিকেল’ মুক্তির জট কাটেনি

​​​​​​​মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘শনিবার বিকেল’ সিনেমার মুক্তি নিয়ে জটিলতা এখনো রয়েই গেছে

মোস্তফা সরয়ার ফারুকীরশনিবার বিকেলসিনেমার মুক্তি নিয়ে জটিলতা এখনো রয়েই গেছে। ২০১৯ সালে চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে ছবিটি প্রদর্শিত হয়। সেই কমিটি ছাড়পত্র দেওয়ারও সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু রাতারাতি পাল্টে যায় সিদ্ধান্ত। অজ্ঞাত কারণে ছবিটিকে নিষিদ্ধ করা হয়। পরবর্তী সময়ে জানানো হয়, ‘শনিবার বিকেলসিনেমার মাধ্যমে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হতে পারে, সেই শঙ্কায় এর মুক্তির অনুমতি দেওয়া হয়নি।

এরপর পেরিয়ে গেছে প্রায় চার বছর। ছবিটির নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী সিনেমা সংশ্লিষ্টরা নানাভাবে আবেদন, প্রতিবাদ জানিয়েও কিনারা করতে পারেনি। সবশেষে ২১ জানুয়ারি সেন্সর বোর্ডের আপিল কমিটিশনিবার বিকেলপুনরায় দেখেন এবং এর মুক্তিতে কোনো বাধা নেই বলে রায় জানান।

কিন্তু সেই সিদ্ধান্তের ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত ছাড়পত্র হাতে মেলেনি মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর। নিয়ে দফায় দফায় কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছেন ফারুকী। তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ে চিঠি পর্যন্ত দিয়েছেন, কিন্তু কোনো সাড়া পাচ্ছেন না। বিষয়টি নিয়ে চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্য, পরিচালক মুশফিকুর রহমান গুলজার গণমাধ্যমকে বলেন, বিষয়ে আমি বা আমরা সদস্যরা কিছুই জানি না। আপিল বোর্ডের সদস্যরা সেন্সর বোর্ডের অফিসে এসে ছবি দেখেছেন। কিন্তু সে বিষয়ে আমাদের কিছু জানার এখতিয়ার নেই। এটা নিয়ে সেন্সর বোর্ডের চেয়ারম্যানই বলতে পারবেন।

ফিল্ম সেন্সর আপিল কমিটির সদস্য হিসেবেশনিবার বিকেলছবিটি সর্বশেষ দেখেছিলেন সাংবাদিক শ্যামল দত্ত। তিনি বললেন, আপিল বোর্ড অনুমোদন দেওয়ার পরও কেন ছাড়পত্র দেওয়া হচ্ছে না, এটা তো আমি বলতে পারছি না। তবে আমার মনে হয়, আপিল বোর্ডের সিদ্ধান্তের পর ছবিটিকে আটকে রাখার কোনো যুক্তি নেই। চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের উপ-পরিচালক মো. মঈনউদ্দীন গণমাধ্যমকে জানান, এটা এখন মন্ত্রণালয়ে আছে। সেখান থেকে সিদ্ধান্ত এলে তবেই আমরা ছাড়পত্র দিতে পারব।

২০১৬ সালে রাজধানীর গুলশানে হোলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলার ঘটনার ছায়া অবলম্বনেশনিবার বিকেলনির্মিত হয়েছে।

×