ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ০৪ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

শিল্পে দেওয়া হবে, বিপণনের দায়িত্বে ইন্ট্রাকো

ভোলার গ্যাস আসবে ঢাকায় 

অর্থনৈতিক রিপোর্টার

প্রকাশিত: ২৩:৩২, ৩০ মার্চ ২০২৩

ভোলার গ্যাস আসবে ঢাকায় 

ভোলায় পাওয়া প্রাকৃতিক গ্যাস পরিবহন করে ঢাকায় আনা হবে

ভোলায় পাওয়া প্রাকৃতিক গ্যাস পরিবহন করে ঢাকায় আনা হবে। শিল্প এলাকায় এই গ্যাস বিপণনের দায়িত্ব পেয়েছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশন লিমিটেড। বৃহস্পতিবার অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে ইন্ট্রাকোকে আগামী ১০ বছরের জন্য কাজটি দেওয়া হয়। এ ছাড়া সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় চারটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। অনুমোদিত প্রস্তাবগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ৬ হাজার ৭০ কোটি টাকা।

এর আগে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা ও সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সচিব সাঈদ মাহবুব খান এ বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন। 
তিনি বলেন, ইন্ট্রাকো প্রাথমিকভাবে ৫ এমএমসিএফডি গ্যাস পরিবহন করবে এবং পরবর্তী ২০ এমএমসিএফডি করে গ্যাস কম্প্রেসড (সঙ্কুচিত) করে সিএনজি আকারে পরিবহন করবে ইন্ট্রাকো। এ কোম্পানির সঙ্গে ১০ বছর  মেয়াদি চুক্তি করার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এই গ্যাসের দাম কত হবে, ইন্ট্রকো কত সেবা মূল্য নেবে, সেটি এই বৈঠকে আলোচনা হয়নি। কবে থেকে এই গ্যাস সরবরাহ শুরু হবে, সে বিষয়েও কিছু বলা হয়নি। গ্যাসের জাতীয় সঞ্চালন পাইপে যুক্ত নয় ভোলা। সম্প্রতি সেখানে গ্যাসের একাধিক নতুন কূপ পাওয়ায় এবং বিশ্ববাজারে দাম বেড়ে যাওয়ার পর দেশে সংকট দেখা দিলে এই গ্যাস মূল ভূখ-ে ব্যবহারের বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাঈদ মাহবুব খান জানান, অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে আরও কয়েকটি সিদ্ধান্ত হয়েছে এদিন। 
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলকে জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় এক হাজার ২৯৩টি ইউনিয়নে উচ্চগতির ইন্টারনেট সংযোগ স্থাপন এবং ইন্টারনেট অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ, মেরামত, আপগ্রেডেশন, প্রতিস্থাপন, পরিচালনা এবং রেভিনিউ শেয়ারিংয়ের জন্য বেসরকারি বিনিয়োগকারী সংস্থা সামিট কমিউনিকেশনের সঙ্গে পিপিপি চুক্তির খসড়া নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

একই প্রকল্পের আওতায় এক হাজার ৩০৭টি ইউনিয়নে উচ্চগতির ইন্টারনেট সংযোগ স্থাপন এবং ইন্টারনেট অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ, মেরামত, আপগ্রেডেশন, প্রতিস্থাপন, পরিচালনা এবং রেভিনিউ শেয়ারিংয়ের জন্য বেসরকারি বিনিয়োগকারী সংস্থা ‘ফাইবার এট হোম’-এর সঙ্গে পিপিপি চুক্তির খসড়া নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
ক্রয় কমিটিতে ৬ হাজার ৭০ কোটি টাকার চার প্রস্তাব অনুমোদন ॥  সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় চারটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। অনুমোদিত প্রস্তাবগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ৬ হাজার ৭০  কোটি টাকা। সেই সঙ্গে অর্থনৈতিক বিষয়ক সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে তিনটি প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ প্রসঙ্গে সাঈদ মাহবুব খান বলেন, অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদনের জন্য ৩টি এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদনের জন্য ৪টি প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়েছে।

ক্রয় কমিটির প্রস্তাবনাগুলোর মধ্যে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের দুটি, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের ১টি এবং নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের একটি প্রস্তাবনা ছিল। এই প্রস্তাবগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ছয় হাজার ৬৯ কোটি ৭১ লাখ ৮ হাজার ৫৬৪ টাকা। সম্পূর্ণ অর্থ সরকারি কোষাগার থেকে ব্যয় করা হবে।

×