বুধবার ৬ মাঘ ১৪২৭, ২০ জানুয়ারী ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ঢাকাকে হারিয়ে চট্টগ্রামের শুভ সূচনা

  • বঙ্গবন্ধু টি২০ কাপ

মোঃ মামুন রশীদ ॥ বঙ্গবন্ধু টি২০ কাপের প্রথম ম্যাচেই মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর কাছে রুদ্ধশ^াস লড়াইয়ের পর ২ রানে হেরে গিয়েছিল বেক্সিমকো ঢাকা। বৃহস্পতিবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আরও শোচনীয়ভাবে হেরেছে তারা। ঢাকাকে ৯ উইকেটে বিধ্বস্ত করেছে আসরের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। টস হেরে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৬.২ ওভারে মাত্র ৮৮ রানেই গুটিয়ে যায় ঢাকার ইনিংস। লিটন কুমার দাস ও সৌম্য সরকারের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে চট্টগ্রামের জন্য একেবারেই মামুলি হয়ে যায় লক্ষ্যটা। ৭৯ রানের জুটি গড়েন তারা। শেষ পর্যন্ত ১০.৫ ওভারে ১ উইকেটে ৯০ রান তুলে জয় নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম। ফলে টানা দ্বিতীয় হার দেখল ঢাকা, আর জয় দিয়ে বঙ্গবন্ধু টি২০ কাপ শুরু করল চট্টগ্রাম।

আসরের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেই টস জিতে প্রতিপক্ষ ঢাকাকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় চট্টগ্রাম। দ্বিতীয় ওভারেই ওপেনার তানজিদ তামিমকে (২) সাজঘরে ফিরিয়ে দেন বাঁহাতি পেসার শরীফুল ইসলাম। আগের ম্যাচে অনেক পরে নামলেও এদিন ওয়ানডাউনে সুযোগ পেয়েছিলেন সাব্বির রহমান, কিন্তু তিনি ১০ বল খেলে কোন রান না করেই শরীফুলের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন। ঢাকার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমও প্রথম বলে শূন্য রানে সাজঘরে ফেরেন। ৪.১ ওভারে ২১ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়া ঢাকাকে টেনে ভাল অবস্থানে নেয়ার আশা জাগাচ্ছিলেন এদিন ওপেনিংয়ে ফেরা মোহাম্মদ নাইম শেখ ও আকবর আলী। ৪৪ রানের জুটি ভাঙ্গেন মোসাদ্দেক হোসেন। বোল্ড হয়ে যান ১৩ বলে ১৫ রান করা আকবর। এতক্ষণ একাই বিধ্বংসী রূপে লড়েছেন নাইম। তিনিও মোসাদ্দেকের বলে বোল্ড হয়ে যান। নাইম ২৩ বলে ৩ চার, ৩ ছক্কায় ৪০ রান করেছিলেন। এরপর চট্টগ্রামের পক্ষে যে বোলারই বোলিংয়ে এসেছেন সাফল্য তুলে নিয়েছেন। নিয়মিত উইকেট হারিয়ে ২২ বল আগেই ঢাকার ইনিংস গুটিয়ে যায় মাত্র ৮৮ রানে। ঢাকার ৪ ব্যাটসম্যান শূন্য রানে সাজঘরে ফেরেন। শরীফুল, মুস্তাফিজুর রহমান, মোসাদ্দেক মিতব্যয়ী বোলিং করে ২টি করে উইকেট নেন। তবে তাইজুল ইসলাম ৪ ওভারে ৪ ছক্কা হজম করে ৩২ রান দিয়েছেন ২ উইকেট তুলে নিতে।

মামুলি এই সংগ্রহ ছুঁতে ঢাকার বোলারদের নিয়ে ছেলে খেলায় মেতে ওঠেন দুই বিধ্বংসী মনোভাবের ব্যাটসম্যান লিটন-সৌম্য। তারা পাওয়ার প্লের ৬ ওভারেই তুলে নেন ৫১ রান। এরপরও থামেননি তারা। ঢাকার অধিনায়ক মুশফিক উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়ে দেখেছেন লিটন-সৌম্যের ব্যাটিং আগ্রাসন। তবে স্ট্র্যাটেজিক টাইম আউট শেষে বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ ইনিংসের দশম ওভারে বোল্ড করে দেন লিটনকে। ৩৩ বলে ৩ চার, ১ ছক্কায় ৩৪ রান করেন তিনি। ৭৯ রানের বিশাল জুটি ভেঙ্গে যায়। তবে চট্টগ্রামের দ্রুত জয় তুলে নেয়ার ক্ষেত্রে কোন প্রভাব ফেলেনি। ৫৫ বল হাতে রেখেই মুমিনুলের চারে ১ উইকেটে ৯০ রান তুলে বিশাল জয় নিশ্চিত করে তারা। সৌম্য ২৯ বলে ৪ চার, ২ ছক্কায় ৪৪ রানে অপরাজিত থাকেন।

স্কোর ॥ বেক্সিমকো ঢাকা ইনিংস- ৮৮/১০; ১৬.২ ওভার (নাইম শেখ ৪০, আকবর ১৫; মোসাদ্দেক ২/৯, শরীফুল ২/১০, মুস্তাফিজ ২/১৩, তাইজুল ২/৩২)।

গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম ইনিংস- ৯০/১; ১০.৫ ওভার (সৌম্য ৪৪*, লিটন ৩৪, মুমিনুল ৮*; নাসুম ১/৫)।

ফল ॥ গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম ৯ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচসেরা ॥ মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত (চট্টগ্রাম)।

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
৯৬০৭০৭৫৫
আক্রান্ত
৫২৯০৩১
সুস্থ
৬৮৭৩৮৮৪৫
সুস্থ
৪৭৩৮৫৫
শীর্ষ সংবাদ:
নদী দখলের থাবা ॥ ৬৪ জেলায় দখলদার ৬৩ হাজার         প্রেসিডেন্ট হিসেবে আজ বাইডেনের অভিষেক         রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু এপ্রিল-মে মাসে         ভারতের উপহার ২০ লাখ ডোজ টিকা আসছে কাল         প্রায় সবাই স্কুল খোলার পক্ষে         বিএনপি-জামায়াতের সব ষড়যন্ত্র রুখতে হবে ঐক্যবদ্ধভাবে         সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করা হলেও ধর্ষণ নির্যাতন থামছে না         আন্তঃজেলা বাসের জন্য নগরীর বাইরে হচ্ছে চার টার্মিনাল         দেশে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে         অভিবাসন খাত উন্নয়নে ‘ওয়ান স্টপ সার্ভিস’ চালু হচ্ছে         ৩০ লাখ গণস্বাক্ষরযুক্ত আহ্বান জাতিসংঘে পাঠানোর সিদ্ধান্ত         তুফান কাহিনী- মানুষের মধ্যে কৌতূহল বাড়ছে, সেই সঙ্গে শঙ্কাও         ধর্ষণ ॥ নারী-শিশুর ছবি প্রকাশে নিষেধাজ্ঞার বাস্তবায়ন চেয়ে রিট         ভোটারদের দ্বারে দ্বারে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা         বছরের মাঝামাঝি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু         ভাসানচরে দশম থানা উদ্বোধন করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         করোনায় শিক্ষা কার্যক্রম চালু নিয়ে বসছে দুই মন্ত্রনালয়         ৪ আন্তঃজেলা বাস টার্মিনালে ঢাকার যানজট কমবে ॥ তাপস         করোনা ভাইরাসে আরও ২০ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৭০২         বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২৪ হাজার ৪২১ মেগাওয়াট : নসরুল হামিদ