বুধবার ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০১ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

নবম-দশম শ্রেণির পড়াশোনা

নবম-দশম শ্রেণির পড়াশোনা
  • বিষয় ॥ কৃষি শিক্ষা, অষ্টম পরিচ্ছেদ
  • মোঃ মনোয়ারুল হক

বিএসএস বিএড (কৃষি ডিপ্লোমা)।

সিনিয়র শিক্ষক,

কানকিরহাট বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়, সেনবাগ, নোয়াখালী।

সুপ্রিয় শিক্ষার্থীরা, আন্তরিক প্রীতি ও শুভেচ্ছা রইল।

গবাদিপশুর খাদ্য প্রাণীর বেঁচে থাকার জন্য আবশ্যক খাদ্য । যা কিছু গবাদি পশুর দেহে আহার্য্য রুপে গৃহীত হয় এবং পরিপাক, শোষণ ও বিপাকের মাধ্যমে দেহে ব্যবহ্রত হয় বা শক্তি উৎপাদন করে তাকে গবাদিপশুর খাদ্য বলে। যেমন-গম, ভুট্টা,ঘাস, খৈল, ভুসি ইত্যাদি।

গবাদি পশুর খাদ্যকে প্রধানত নিম্নোক্ত দুই ভাবে ভাগ করা যায়। যথা-

১। আঁশ জাতীয় খাদ্য

২। দানাদার খাদ্য

শিক্ষার্থীবন্ধুরা, এখন আমরা গবাদিপশুর খাদ্যগুলি নিয়ে আলোচনা করব-

আঁশ জাতীয় খাদ্য

এ জাতীয় খাদ্যে প্রচুর পরিমাণ আঁশ এবং কম পরিমাণ শক্তি পাওয়া যায়। যেমন-যেকোন খড়, প্রাকৃতিক বা চাষ করা সবুজ ঘাস হে, সাইলেজ প্রভৃতি। আঁশ জাতীয় খাদ্য গবাদিপশু চারণভূমি থেকে পেয়ে থাকে বা ঘাস কেটে পশুকে সরবরাহ করা হয়। তুলনামূলক লিগিউম জাতীয় ঘাস যেমন-আলফা-আলফা, কাউপি, খেসারি, মাস-কলাই, ইপিল-ইপিল, ইত্যাদিতে বেশী পরিমাণ প্রোটিন, শক্তি, ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ সাধারণ ঘাসের চেয়ে বেশি থাকে।

দানাজাতীয় খাদ্য

যে জাতীয় খাদ্যে কম পরিমাণ আঁশ এবং বেশি পরিমাণ শক্তি পাওয়া যায় তাকে দানাদার খাদ্য বলা হয়। দুধাল বা মাংস উৎপাদনকারী গবাদি পশুর ক্ষেত্রে শুধু আঁশ জাতীয় খাদ্য সরবরাহ করলে কাংখিত ফল পাওয়া যাবে না। সে ক্ষেত্রে পর্যাপ্ত পরিমাণে দানাদার খাদ্য সরবরাহ করতে হবে।

দানাদার খাদ্যকে নিম্নোক্ত উপায়ে ভাগ করা যায়-

ক) প্রাণিজ উৎস- ফিস-মিল, ব্লাাডমিল, ফেদার মিল প্রভৃতি।

খ) উদ্ভিজ উৎস-গম, ভুট্টা, খৈল, ভুসি, কুঁড়া,ক্ষুদ প্রভৃতি।

গবাদিপশুর ঘাস দুই পদ্ধতিতে সংরক্ষন করা যায়। যথা-

ক) সাইলেজ

খ) হে চলবে...

শীর্ষ সংবাদ:
কুয়াকাটায় টোয়াকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত         ওমিক্রন ঠেকাতে প্রবাসীদের আসতে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে         বগুড়ার শেরপুরে ট্রাকের ধাক্কায় দুই মটরসাইকেল অরোহী নিহত         ডাসারে মোটরসাইকেল চাপায় ইউপি সদস্য নিহত         রামপুরায় বাসে আগুন ও ভাঙচুর ॥ আসামি ৮০০         যুক্তরাষ্ট্রে কিশোরের গুলিতে নিহত ৩, আহত ৮         রেফারিকে হত্যার হুমকি আর্জেন্টাইন ফুটবলারের         নিরাপদ সড়ক দাবি ॥ রামপুরায় শিক্ষার্থীদের অবরোধ         শারীরিক উপস্থিতিতে শুরু হলো আপিল বিভাগের বিচারকাজ         গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মৃত্যু বেড়েছে ২ হাজার ৩০০ জনের         বায়োএনটেক প্রধান ওমিক্রন নিয়ে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন         সব গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়         বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যে রাজশাহীর পৌর মেয়র আব্বাস গ্রেফতার         ঢাবি জাতিকে যা কিছু উপহার দিয়েছে তা নিঃসন্দেহে গর্ব ও গৌরবের         রোহিঙ্গাদের উচিত এখন নিজ দেশে ফিরে যাওয়া         জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম আর নেই         জাপানে ওমিক্রন শনাক্ত         শতবর্ষের আলোয় আলোকিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়         রিটার্ন দাখিলের সময় বাড়ল এক মাস         আগাম জামিন নিতে আসা শংক দাস বড়ুয়া কারাগারে