শুক্রবার ৩ আশ্বিন ১৪২৭, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের ৩ কিশোর খুন ॥ পুলিশের তদন্ত শুরু

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের ৩ কিশোর খুন ॥ পুলিশের তদন্ত শুরু

অনলাইন ডেস্ক ॥ বাংলাদেশের যশোরে শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের (বালক) ভেতরে তিন কিশোর নিহতের ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশরাফ হোসেন বলেছেন, শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের সহকারী পরিচালকসহ নয় কর্মকর্তাকে পুলিশি হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছেন তারা। বিবিসি বাংলাকে তিনি জানিয়েছেন, কেন্দ্রটির ভেতরে থাকা - খাওয়াসহ অভ্যন্তরীণ আরও নানা বিষয়ে অব্যবস্থাপনা নিয়ে কর্তৃপক্ষের ওপর আগে থেকেই অসন্তুষ্টি ছিল এই কিশোরদের।

তার জেরে এই ঘটনা ঘটতে পারে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে। এছাড়া এই উন্নয়ন কেন্দ্রের ভেতরে কর্তৃপক্ষের দুটি গ্রুপে থাকা কিশোরদের অভ্যন্তরীণ কোন্দল থেকে সংঘর্ষের সূত্রপাত হতে পারে বলেও তারা জানতে পেরেছেন। ঠিক কী কারণে ঘটনা ঘটেছিল - সে বিষয়ে এখনও তদন্ত চলছে বলে জানান মি. হোসেন।

বিবিসি বাংলাকে তিনি বলেন, "এটা একটা কারাগার। এখানে কোন হত্যা মানে কাস্টডিয়াল ডেথ (হেফাজতে মৃত্যু)।"

"সরকারি এই প্রতিষ্ঠানের কোথায় গাফিলতি ছিল, এটা কীভাবে ঘটলো, কারা প্রহার করলো, কারা যুক্ত ছিল, এই বিষয়গুলো নিশ্চিত হতে আমরা সবাইকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছি। সেখানে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে আমরা ব্যবস্থা নেব।"

এদিকে নিহত কিশোরদের পরিবার আজকে যশোরের এই উন্নয়ন কেন্দ্রে আসবেন এবং তারা মামলা দায়ের করলে পুরোদমে তদন্ত শুরু করা হবে বলে জানান তিনি। বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলার পুলেরহাট এলাকায় ওই শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের অভ্যন্তরে সংঘর্ষের অন্তত ১৪ জন আহত হয়। কেন্দ্রের কর্তৃপক্ষ হতাহতদের সন্ধ্যা ৭টার দিকে যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তিনজনকে মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতালে কিশোরদের মৃত্যুর ঘটনার খবর পেয়েই পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এর আগে দুর্ঘটনার বিষয়ে পুলিশকে কিছু জানায়নি কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের কর্মকর্তারা। আহত কিশোরদের অভিযোগ, শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের কয়েকজন কর্মকর্তা তাদের বেধড়ক পেটানোর কারণে এই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। তবে এ বিষয়ে শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে কোন কর্মকর্তা পুলিশের কাছে তাদের কোন বক্তব্য জানায়নি বলে জানিয়েছেন মি. হোসেন।

তিনি বলেন, "হাউজ সিনিয়রদের মধ্যে গ্রুপিং থাকতে পারে বলেও আমরা সন্দেহ করছি। সেখান থেকেই হয়তো সংঘর্ষ হয়েছে। এ বিষয়ে উন্নয়ন কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের বক্তব্য জানতে আমরা তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করছি।"

২৫ বছর আগে প্রতিষ্ঠিত ওই শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে ২৭৭ জন কিশোরকে সংশোধনের জন্য রাখা হয়েছিল বলে জানা গেছে। তাদের অধিকাংশ গুরুতর অপরাধের আসামী বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিহত তিন কিশোরের মধ্যে ২ জন হত্যা মামলার এবং একজন ধর্ষণ মামলার আসামী বলে তারা নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র : বিবিসি বাংলা

শীর্ষ সংবাদ:
অর্থনৈতিক উন্নয়ন বেগবানে ৩৪ হাজার কোটি টাকার ফান্ড ঘোষণা এডিবির         করোনা ভাইরাসে আরও ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৪১         করোনা ভাইরাস ॥ বিশ্বব্যাপী মৃত্যু ছাড়াল সাড়ে ৯ লাখ, আক্রান্ত ৩ কোটির বেশি         অ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার অবনতি, আইসিউতে স্থানান্তর         করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় কারিগরি কমিটির ৭ পরামর্শ         বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশের নয় তিনি সারা বিশ্বের সম্পদ ॥ খাদ্যমন্ত্রী         ভিডিও কলে কথা বলে কিশোরীর ইচ্ছা পূরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী         ২০২১ হবে আরও বেশি চ্যালেঞ্জিং হবে ॥ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী         আইনের বাইরে এ শহরে কিছু করতে পারবেন না ॥ মেয়র আতিক         এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে ২৪ সেপ্টেম্বর         ফিফা র্যাংকিংয়ে আগের অবস্থানেই আছে বাংলাদেশ, একধাপ পেছালো ভারত         মোদীর মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দিলেন অকালি দলের নেত্রী হরসিমরত কউর         ভারতের এক শতাব্দী পুরনো সংসদ ভবন ভেঙ্গে নির্মাণ হবে নতুন ভবন         বাজারে করোনার ভ্যাকসিন আসার আগে অর্ধেক ‘বুকিং’ শেষ         গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য দুর্নীতি আড়ালের ব্যর্থ চেষ্টা ॥ ন্যাপ         স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়ালেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী         এবার নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন নেতানিয়াহু         শিক্ষায় বিভক্তির ফল সামাজিক বিভক্তি ॥ রাশেদ খান মেনন         বনানীতে আবাসিক ফ্লাটে অগ্নিকাণ্ড         ফিলিস্তিন সমস্যার সমাধান ছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি আসবে না ॥ রাশিয়া