বৃহস্পতিবার ৭ মাঘ ১৪২৮, ২০ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

জানুয়ারিতে মূল্যস্ফীতি বেড়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নতুন বছরের শুরুর মাসে মূল্যস্ফীতি কিছুটা বেড়েছে। চলতি বছরের জানুয়ারিতে পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে সাধারণ মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৫ দশমিক ১৫ শতাংশ, যা আগের মাস ডিসেম্বরে ছিল ৫ দশমিক ০৩ শতাংশ। অর্থাৎ ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে যে পণ্য বা সেবার জন্য ১০০ টাকা খরচ করতে হতো, ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে সেই পণ্য বা সেবার জন্য ১০৫ টাকা ১৫ পয়সা খরচ করতে হয়েছে।

মূল্যস্ফীতি বাড়ার পেছনে মোটা চালের দাম বৃদ্ধি ও শিক্ষা ব্যয়কে কারণ হিসেবে দেখিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। মঙ্গলবার শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক সভা পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) হালনাগাদ তথ্য সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন তিনি। মুস্তফা কামাল বলেন, দেশে প্রতিবছর জানুয়ারি আর জুলাই মাসে চালের দাম কিছুটা বেড়ে যায়। তারই ধারাবাহিকতায় জানুয়ারি মাসে মোটা চালের দাম কিছুটা বেড়েছে। এর সঙ্গে বছরের প্রথম মাসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি খরচ, বই-খাতাসহ আনুষঙ্গিক জিনিসপত্র কেনাসহ বাড়তি ব্যয়ের চাপ থাকে। এ জন্য জানুয়ারিতে মূল্যস্ফীতি কিছুটা বেড়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

বিবিএসের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, জানুয়ারিতে খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৫৩ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৩৮ শতাংশ। তবে খাদ্য বহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৩ দশমিক ১০ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ। এদিকে শহরে মূল্যস্ফীতির চাপ কমলেও গ্রামে সার্বিক মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে বেড়েছে। জানুয়ারিতে এটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ দশমিক ৯২ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৪ দশমিক ৪৬ শতাংশ। গ্রামে খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ২৮ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৪ দশমিক ৭৮ শতাংশ। খাদ্য বহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ২ দশমিক ৫২ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৩ দশমিক ৮৮ শতাংশ।

শহরে সার্বিক মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৫৭ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ। খাদ্য পণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ দশমিক ১১ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৭৪ শতাংশ। খাদ্য বহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৩ দশমিক ৯১ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৩৫ শতাংশ।

শীর্ষ সংবাদ:
বিধিনিষেধে তোয়াক্কা নেই ॥ করোনা সংক্রমণ বেড়েই চলেছে         অগ্রযাত্রা কেউ থামিয়ে দিতে পারবে না         চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসা         ঢাকা, রাঙ্গামাটির পর ঝুঁকিপূর্ণ আরও ১০ জেলা         বিএনপি-জামায়াতের লবিস্ট নিয়োগ তদন্তে গোয়েন্দারা         লাভজনক থেকে রুগ্ন ॥ গাজী ওয়্যারসের আধুনিকায়ন প্রকল্পে ২০ কোটি টাকা লোপাট         বিএনপি জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টির পাঁয়তারা চালাচ্ছে ॥ কাদের         ওমক্রিন প্রতেিরাধে ডসিদিরে র্সবােচ্চ সর্তক থাকার নর্দিশে         শিমুকে সরিয়ে দেয়ার সুযোগ খুঁজতে থাকে ঘাতক স্বামী         দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন চলবে         কেটে গেছে শৈত্যপ্রবাহ তিনদিনের মধ্যে বৃষ্টি হতে পারে         অস্ট্রেলিয়ায় চাকরির নামে বিপুল অর্থ আত্মসাত         খাস জমির অর্ধেক উদ্ধার করে ১০ লাখ ভূমিহীনকে আশ্রয় দেয়া সম্ভব         ‘বাংলাদেশের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবে না’         একদিনে করোনায় ১২ মৃত্যু, শনাক্ত ৯৫০০         ‘মাসুদ রানা’খ্যাত কাজী আনোয়ার হোসেন আর নেই         গ্যাসের দাম বাড়ানোর বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীরা         বাংলাদেশ ব্যাংকের ৪ কর্মকর্তাকে দুদকে তলব         ই-কমার্সে আস্থা ফেরাতে ফেব্রুয়ারিতে চালু হচ্ছে নিবন্ধন : পলক         করোনার সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে ১২ জেলা