শুক্রবার ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ইটভাঁটির আগুনে পুড়ছে ফসলি জমি, নষ্ট হচ্ছে পরিবেশ

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঠাকুরগাঁও, ৮ জানুয়ারি ॥ ঠাকুরগাঁও জেলার বিভিন্ন এলাকায় ইটভাঁটির আগুনে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে এলাকার ফসলের ক্ষেত ও পরিবেশ। সঙ্গে ভূমিদস্যু ও দালালদের প্রলোভনে শত শত একর আবাদি জমি হয়ে যাচ্ছে অনাবাদি।

ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার ভিমটিয়া, গোয়াগাঁও মৌজা ও তার আশপাশ এলাকার আবাদি জমিগুলোর মাটি কেটে ভাঁটিগুলোতে ইট প্রস্তুত করা হচ্ছে। ওই মৌজা দুটির প্রায় ৫শ’ একর আবাদি জমির মাটি কেটে বড় বড় পরিখা, পুকুর ও খাল করায় ওই সব জমিতে ২০ বছরেও ফসল ফলানো সম্ভব হবে না বলে ভূমি বিশেষজ্ঞরা মত প্রকাশ করেছেন। ভাঁটি মালিকরা তাদের এক শ্রেণীর দালালচক্রের মাধ্যমে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক আবাদি জমির মালিকদের মোটা অঙ্কের অর্থের প্রলোভন দেখিয়ে আকৃষ্ট করে তাদের আবাদি জমিগুলোর মাটি খুঁড়ে ইটভাঁটিগুলোতে সরবরাহ করছে। যেসব জমিতে এ ধরনের ধ্বংসাত্মক তৎপরতা চালানো হচ্ছে তার সংলগ্ন জমিগুলোও অনাবাদি হয়ে পড়ছে। কারণ খালসংলগ্ন জমির উঁচু অংশে আর পানি জমে থাকছে না। ফলে ওই সব জমিতে এখন বোরো ধান আবাদে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। গমক্ষেতগুলোতে সেচের পানি জমছে না। সেচের পানি চুইয়ে খাল, গর্ত ও পরিখাগুলোতে চলে যাচ্ছে। ভাঁটি মালিকদের লেলিযে দেয়া দালালরা প্রতি বিঘা জমির মাটি কাটার জন্য অভাবী কৃষককে ২৫ থেকে ৪০ হাজার টাকা প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিলেও পরিশোধ করা হচ্ছে অর্ধেক টাকা। এমনি করে জমির মালিক হয়ে উঠছে ভূমিহীন আর চিরদিনের জন্য এই জমিগুলো পরিণত হচ্ছে অনাবাদি খালে।

ইটভাঁটি মালিক শাহাজাহান আলী (এসবি ভাঁটি) জানান, দালালরা তাদের ইটভাঁটির মাটি সরবরাহ করে থাকে। ভাঁটি মালিকরা কেউ সরাসরি জড়িত নয়। উত্তরাঞ্চলের বগুড়ায় পরিবেশ অধিদফতরের অফিস থাকলেও ঠাকুরগাঁও অঞ্চলে তারা সরেজমিন পরিদর্শন না করায় ইটভাঁটি মালিক ও দালালচক্র ভূমিদস্যুতায় মেতে ওঠে। যে ভিমটিয়া, গোয়াগাঁও মৌজার জমি পীরগঞ্জ উপজেলার ধান, গম, সরিষা উৎপাদনে সেরা রেকর্ড ছিল, ইটভাঁটিগুলোর আগ্রাসী তৎপরতায় এই মৌজা দুটি এখন ফসলহীন মাঠে পরিণত হতে চলেছে।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মূকেশ চন্দ্র বিশ্বাসকে জানালে তিনি উপজেলা এ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার অব ল্যান্ডকে তাৎক্ষণিকভাবে সরেজমিন তদন্ত করে রিপোর্ট প্রদানের নির্দেশ দিলেও শুক্রবার পর্যন্ত কোন ফলাফল পাওয়া যায়নি। এই ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে ব্যর্থ হলে তারা মরিয়া হয়ে অবশিষ্ট জমিগুলোকে ধ্বংস করে অনাবাদি ও ফসলহীন এলাকা হিসেবে গড়ে তোলার চক্রান্তে আরও শক্তিশালী হয়ে গরিব ক্ষুদ্র জমির মালিকদের পথে বসাতে বাধ্য করবে বলে এলাকাবাসী আশঙ্কা করছেন।

একই ধরনের ইটভাঁটি মালিকদের লেলিয়ে দেয়া দালালরা সদর উপজেলার আক্চা, দক্ষিণ বঠিনা, রাজাগাঁও, পাটিয়াডাঙ্গী এলাকায় একই কায়দায় ও কৌশলে আবাদি জমির মাটি কেটে ভাঁটিতে যোগান দিয়ে জমিগুলোকে অনাবাদি করে ফেলছে। গত মৌসুমে ওই সব এলাকায় কমপক্ষে ২০০ একর জমির বোরো ধানক্ষেত ধ্বংস হয়ে গেলে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা জেলা প্রশাসক অফিসে দলবদ্ধভাবে ঘেরাও ও বিক্ষোভ মিছিল করেন। তাদের ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিলেও আজ পর্যন্ত তা বাস্তবায়ন করা হয়নি বলে ভুক্তভোগীরা জানিয়েছেন। এরপরও চলতি মৌসুমে ইটভাঁটির সঙ্গে আবাদি জমির মাটি কাটা অব্যাহত রেখেছে দুর্বৃত্তরা। অসহায় কৃষক, ক্ষুদ্র প্রান্তিক চাষীরা কোন আইন-বিচারের নাগাল পাচ্ছেন না। ফলে ওই জমিগুলো হতে বছরে শত শত মণ খাদ্যশস্য উৎপাদন হতে বঞ্চিত হচ্ছে ঠাকুরগাঁও জেলাবাসী।

শীর্ষ সংবাদ:
ঢাকা টেস্টে লড়াই করছে সাকিব আর লিটন         সীমান্তে মাদক ও মানবপাচার রোধে কাজ করছে বিজিবি ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         বরিশালে পৃথক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত         সন্ত্রাসীদের হামলায় বুরকিনা ফাসোয় নিহত ৫০         বাজারে ডিমসহ বেড়েছে আটা, সবজি ও মুরগির দাম         অভিনেত্রী মঞ্জুষা নিয়োগীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার         মিয়ানমারে বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষা একটি গুরুতর চ্যালেঞ্জ ॥ রাবাব ফাতিমা         প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপির নেতাকর্মীরা ॥ সতর্ক অবস্থানে পুলিশ         নীলফামারীতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস খাদে, আহত ৩২         পাক সরকারের রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আসামির নাম মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নেই         ইমরান খানসহ তেহরিক নেতাদের বিরুদ্ধে দুটি মামলা         বালিয়াতলীর ফেরি পারাপার নয় বছর ধরে বন্ধ         মুশফিকের আউটের পর সাকিব নেমেই আক্রমনাত্মক         আজ থেকে ৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা শুরু হয়েছে         পেরুতে ৭ দশমিক ২ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প অনুভূত         গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মারা গেছেন এক হাজার ৪১৩ জন         অবৈধ ক্লিনিকের দৌরাত্ম্য ॥ ভুল চিকিৎসায় প্রতিনিয়ত মৃত্যু         ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য উন্নত জীবন নিশ্চিত করতে চাই         জঙ্গী নেতা আবদুল হাই যেভাবে ১৭ বছর আত্মগোপনে ছিলেন         জামিনে মুক্ত দুর্ধর্ষ অপরাধীদের ওপর চলবে নজরদারি