বুধবার ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

দরিদ্রতার কারণে শিক্ষা থেকে বঞ্চিত শিশুরা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শিশুদের বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকার অন্যতম প্রধান কারণ দারিদ্র্য। এছাড়াও অন্যান্য কারণ হলো- শিশুদের মায়েদের শিক্ষাস্তর এবং সার্বিক শিক্ষাসহ একীভূত শিক্ষার পরিবেশ।

বাল্যবিবাহ, শিশুশ্রম ও এক বিদ্যালয়ে শিশুদের গরহাজির সংক্রান্ত এক অনুষ্ঠানে এসব তথ্য দিয়েছে ইউনিসেফ।

বুধবার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকী, ক্যাম্পেইন ফর পপুলার এডুকেশনের রাশেদা কে চৌধুরী, ডিএফআইডি বাংলাদেশের প্রতিনিধি সারা কুক, ইউনিসেফ বাংলাদেশের প্রতিনিধি এডওয়ার্ড বিগবেদার এবং পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব কানিজ ফাতেম। বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) মহাপরিচালক কে এস মুর্শিদ। সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াজেদ।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দেশের সব জেলাতেই বিদ্যালয়বহির্ভূত শিশু আছে। তবে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক আছে বান্দরবান, সুনামগঞ্জ, ভোলা, নেত্রকোনা এবং কক্সবাজারে। অন্যদিকে সবচেয়ে কম আছে ঝালকাঠি, বরগুনা, পিরোজপুর, ফেনী এবং যশোর জেলায়। প্রাথমিক শিক্ষার সুযোগ গ্রহণের ক্ষেত্রে ভৌগোলিক বৈষম্য রয়েছে।

শ্রমে নিয়োজিত শিশুরা সাধারণত কৃষি, শিল্প এবং সেবা খাতে কাজ করে থাকে। শ্রমে নিযুক্ত ১০ থেকে ১৪ বছর বয়সী ১০ লাখ শিশুর মধ্যে সেবা ও কৃষি খাতে নিয়োজিতদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। আর তা যথাক্রমে প্রায় ৪ লাখ ৭ হাজার এবং ৩ লক্ষ ৯০ হাজার। শিল্প খাতে নিয়োজিত শিশুর সংখ্যা প্রায় ২ লাখ ২ হাজার, যা সেবা খাতে নিয়োজিতদের প্রায় অর্ধেক। সংখ্যার দিক দিয়ে সব খাতেই মেয়ে শিশু শ্রমিকের তুলনায় ছেলের সংখ্যা বেশি।

ইউনিসেফের তথ্যে আরও জানানো হয়, বাল্যবিবাহের ঘটনা বেড়েই চলেছে। বর্তমানে ২০ থেকে ২৪ বছর বয়সী মহিলাদের অর্ধেকেরও বেশি ১৮তম জন্মদিনের আগেই বিবাহিত এবং প্রতি ৫ জনের মধ্যে একজনের বিয়ে হয়েছে ১৫ বছর বয়সের আগে (ইউনিসেফ, এমআইসিএস ২০১৩)।

গবেষণা ও উপাত্তে দেখা যাচ্ছে, বাংলাদেশে বাল্যবিবাহের হার কিছুটা নিম্নগামী। বাংলাদেশে বাল্যবিয়ে বন্ধের উদ্দেশ্য অর্জনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তাই শক্ত একটি আইনি কাঠামো, উপযুক্ত নীতি বাস্তবায়ন এবং সামাজিক সচেতনতা ও জনসমর্থন নিশ্চিত করার এটাই উপযুক্ত সময়।

শীর্ষ সংবাদ:
স্বপ্ন পূরণে ভাগ্য বদল ॥ পদ্মা সেতু নামেই ২৫ জুন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী         রোহিঙ্গারা অপরাধে জড়াচ্ছে প্রত্যাবাসন অনিশ্চয়তায়         ১৩৫ বিলাসবহুল পণ্যে ২০ ভাগ নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক আরোপ         আমি ত্রাস সঞ্চারি ভুবনে সহসা সঞ্চারি ভূমিকম্প...         দিনের ভোট দিনেই হবে, রাতে হবে না ॥ সিইসি         সম্রাটকে জামিন না দিয়ে কারাগারে পাঠালেন আদালত         হাতিরঝিলের পানির ক্ষতি করা যাবে না ॥ হাইকোর্ট         এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে লড়ছে দুদল         মাঙ্কিপক্সের প্রবেশ রোধে সর্বোচ্চ সতর্ক হতে হবে         ঢাবিতে ছাত্রলীগ ছাত্রদল সংঘর্ষ ॥ আহত ৩০         জামায়াতের সঙ্গেও সংলাপে বসবে বিএনপি ॥ ফখরুল         সিলেটে বন্যার পানি নামছে ধীরে, নানা সঙ্কট         জলাবদ্ধতা থেকে এবারের বর্ষায়ও মুক্তি মিলছে না চট্টগ্রামবাসীর         শেখ হাসিনা সরকার পাহাড়ে শান্তি ফিরিয়ে এনেছে ॥ কাদের         প্রত্যাবাসন নিয়ে রোহিঙ্গারা দীর্ঘ অনিশ্চয়তার কারণে হতাশ হয়ে পড়ছে : প্রধানমন্ত্রী         হাতিরঝিলে স্থাপনা উচ্ছেদসহ ওয়াটার ট্যাক্সি নিষিদ্ধে রায় প্রকাশ         মাদকাসক্ত সন্তানকে গ্রেফতারে বাবা-মা আসেন ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         নিয়মানুযায়ী দিনের ভোট দিনেই হবে ॥ সিইসি         রোহিঙ্গা শরণার্থীদের স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনই স্থায়ী সমাধান         ২৫ জুন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন