ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১

স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে পুলিশের বাড়িতে কলেজছাত্রীর অনশন

নিজস্ব সংবাদদাতা,লালমনিরহাট

প্রকাশিত: ১৫:১৩, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪; আপডেট: ১৫:১৫, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে পুলিশের বাড়িতে কলেজছাত্রীর অনশন

কলেজছাত্রীর অনশন

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে পুলিশ সদস্যের বাড়িতে চারদিন ধরে অনশন করছেন এক কলেজছাত্রী। বুধবার দুপুরে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত গত ৪ দিন থেকে ওই তরুণীকে পুলিশ সদ্যসের বাড়ির গেটের বাইরে অবস্থান করতে দেখা গেছে।

পুলিশ সদস্য রাব্বি আল মামুন ওরফে ইশতিয়াক বুলবুল কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভাণ্ডার ইউনিয়নের দক্ষিণ ঘনেশ্যাম এলাকার আল আমিনের ছেলে। তিনি  ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে এমটি শাখায় পিওএমএ পদে কর্মরত আছেন।

ভুক্তভোগী তরুণী জানান, ২০২২ সালের ২২ ডিসেম্বর ডিএমপির পল্টন থানায় পুলিশের উপস্থিতিতে ইশতিয়াক বুলবুলের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর তারা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে এক সপ্তাহ পল্টন থানার পাশে একটি আবাসিক হোটেলে রাত্রিযাপন করেন। পরে বাসা ভাড়া নিয়ে আবার নিয়ে আসবেন এমন প্রতিশ্রুতি দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। এরপর কয়েকমাস সম্পর্ক স্বাভাবিক রাখলেও ৫-৬ মাস না যেতেই যোগাযোগ বন্ধ করে দেন বুলবুল। পরে স্ত্রীর মর্যাদা থেকে বঞ্চিত করতে কাবিন নামাসহ বিয়ের সব ডকুমেন্ট নিজের কবজায় নিয়ে নেন। এতে বাধ্য হয়ে স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে তিনি অনশন শুরু করেছেন।

তুষভাণ্ডার ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ার্ড সদস্য রাকিবুল ইসলাম পলাশ জানান, ‘মেয়েটির নিরাপত্তার জন্য আমি পুলিশকে জানিয়ে ওই রাতেই গ্রামপুলিশ দিয়ে পাহারার ব্যবস্থা করেছি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে পুলিশ সদস্য ইশতিয়াক বুলবুলের সঙ্গে ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। ক্ষুদে বার্তা দেয়া হলেও তার কোন সাড়া মেলেনি।

এ বিষয়ে কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ কবির বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে কোনো পক্ষই থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পুলিশ সদস্য বলে ছাড় পাওয়ার কোন সুযোগ নেই।

এবি 

×