ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

শীতে জুবুথুবু পঞ্চগড়ের মানুষ

স্টাফ রিপোর্টার, পঞ্চগড় 

প্রকাশিত: ১৪:২১, ৬ জানুয়ারি ২০২৩

শীতে জুবুথুবু পঞ্চগড়ের মানুষ

ঘন কুয়াশায় সড়কে যানবাহন কম। ছবি: জনকণ্ঠ

উত্তরের কনকনে হিমেল বাতাস ও শৈত্যপ্রবাহের পাশাপাশি ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন হয়ে আছে পঞ্চগড়। সকাল ১১ টার আগে সূর্যের দেখা যাচ্ছে না। তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় ৯ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। 

গত দুদিনের চেয়ে শুক্রবার তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লেও হিমালয়ের বরফ গলা ঠাণ্ডা বাতাসের কারণে শীতের দাপট কমেনি। শৈত্যপ্রবাহ ও ঘন কুয়াশার কারণে দুর্ভোগে পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষ। 
রাত থেকে ভোর পর্যন্ত একটানা কুয়াশা ও শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। ঝরছে কুয়াশা বৃষ্টি। সন্ধ্যার পর পরই হাটবাজার সড়ক-মহাসড়ক ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে। 

তীব্র ঠাণ্ডার কারণে জেলার স্কুল-কলেজগুলোতে আশঙ্কাজনক হারে শিক্ষার্থী উপস্থিতি কমে গেছে। একটু উষ্ণতা খুঁজতে  ছিন্নমূল ও দুস্থ পরিবারের লোকজন খড়-কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সূর্য উঁকি দিলেও বাতাসের কারণে উত্তাপ থাকছে না। 

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ রাসেল শাহ জানান,গত কয়েকদিন থেকে তেঁতুলিয়ায় আট থেকে দশ ডিগ্রী সেলসিয়াসে তাপমাত্রা উঠা-নামা করছে। 

পুর্ব জালাসী এলাকার দিনমজুর সফিকুল ইসলাম বলেন, কাজের সন্ধানে সকালে এসেছি। শহরে লোকজন কম। এখন পর্যন্ত কাজ জোটেনি। কাজের আশায় অপেক্ষায় আছি।

শহরের অটোরিকশা চালক বদিউল বলেন, সকালে এসেছি। রাস্তাঘাটে যাত্রী নেই। বসে আছি। ভাড়া না পেলে মহাজনকে কী দেবো আর আমি কী খাবো তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছি।

জেলা প্রশাসন এ পর্যন্ত ৪০ হাজার শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে। জেলা প্রশাসক জহুরুল ইসলাম শীতার্ত মানুষের সহযোগিতায় সরকারের পাশাপাশি বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। 

এসআর

×