ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

কুড়িগ্রামে মাঠের পর মাঠ এখন দুধধানে ভরা

স্টাফ রিপোর্টার, কুড়িগ্রাম

প্রকাশিত: ২২:৫৪, ৭ অক্টোবর ২০২২

কুড়িগ্রামে মাঠের পর মাঠ এখন দুধধানে ভরা

মাঠ যেন সবুজের সমারোহ

কুড়িগ্রাম জেলায় সর্বত্র সবুজে ছেয়ে গেছে খেতের পর খেত। কোন জমি আর পতিত নেই। বিস্তীর্ণ কৃষকের মাঠে মাঠে দু’চোখ জুড়ানো যেন এক অপরূপ সবুজের সমারোহ। প্রতিটি ধান গাছে শিষ বেড়ানো শুরু করেছে। ধানগুলো হয়েছে দুধ ধান। বৃষ্টি ভেজা বাতাসে দোল খাচ্ছে আমন ধানের গাছগুলো। এ যেন এক নয়ন জুড়ানো দৃশ্যে মেতে উঠেছে ফসলের মাঠজুড়ে। প্রকৃতির এক অপরূপ রূপে সেজে আছে। যেদিকে তাকানো যায় সবুজ আর সবুজ। ধান খেত দেখলেই মন ভরে যায়।

কুড়িগ্রামের জেলার অধিকাংশ প্রান্তিক কৃষক পরিবার কৃষির ওপর নির্ভরশীল। চলতি আমন মৌসুম অঞ্চলের কৃষকরা তাদের প্রধান ফসল উৎপাদনের শুরুতেই বৃষ্টির দেখা মেলেনি। ভরা বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির দেখা না পেয়ে সঠিক সময়ে বাধ্য হয়ে শ্যালো মেশিন ও সেচযন্ত্রের মাধ্যমে পানি ক্রয় করে জমিতে আমন ধানের চাষাবাদ করেছেন কৃষক। এ বছর পানি ক্রয় তাদের স্বপ্নের ফসল বাড়তি খরচ দিয়ে চাষাবাদ করলেও আমনের বাম্পার ফলনের এক উজ্জল সম্ভাবনা দেখা দেয়ায় তাদের মুখে হাসি ফুটেছে।
ফুলবাড়ীর কুরুষাফেরুষা গ্রামের কৃষক আবুল কাসেম ও পুলিন চন্দ্র রায় জানান, ভরা বর্ষা মৌসুমি বৃষ্টির দেখা পাইনি। তবে সঠিক সময়ে শ্যালো-মেশিন ও সেচযন্ত্র দিয়ে পানি কিনে আমন ধান চাষাবাদ করেছি। রোপণের পর বৃষ্টির দেখা মেলে। মাঝেমধ্যে ভারি বৃষ্টিপাত হওয়ায় এ বছর আমনের আবাদ গতবছরগুলোর চেয়ে ভাল ফলন দেখা মিলেছে। জ্বালানি তেল ও সারের বৃদ্ধি পাওয়ায় আমরা অতিরিক্ত খরচ বহন করে আমন ধান চাষাবাদ করলেও এখন সেই স্বপ্নের ফসল দেখে আমাদের মন ভরে যায়। সব মিলে আবহাওয়া অনুকূল থাকলে তারা তাদের উৎপাদিত ফসল ঘরে তুলতে পারবে বলে জানান। কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, জেলায় এ বছর ১ লাখ ১৯ হাজার ৯শ’ ৬৫ হেক্টর জমিতে আমন ধানের আবাদ হয়েছে। আমন ধানের চারা রোপণের সময় এ বছর বৃষ্টির দেখা না পেয়ে কিছু কৃষকরা শ্যালো-মেশিন ও সেচযন্ত্রের মাধ্যমে পানি কিনে আমন ধান রোপণ করেছে। আবহাওয়া অনুকূল থাকায় গতবছরের তুলনায় এ বছর বাম্পার ফলনের এক উজ্জল সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। কোন প্রকার প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা না দিলে কৃষকরা তাদের প্রধান ফসল ঘরে তুলতে পারবে। আশা করি ধানের দামও ভাল পাবে বলে আমার বিশ্বাস।

 

 

monarchmart
monarchmart