ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

ইউরোপে নিষিদ্ধ রাশিয়া যুক্ত হতে চায় এশিয়ায়

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০১:২২, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

ইউরোপে নিষিদ্ধ রাশিয়া যুক্ত হতে চায় এশিয়ায়

ফিফা সভাপতি ইনফান্তিনোর সঙ্গে সালমান বিন ইব্রাহিম আল খলিফ

ইউক্রেনে সামরিক আগ্রাসনের পর থেকেই রাশিয়াকে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে নির্বাসিত করে বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা। যে কারণে সদ্য সমাপ্ত কাতার বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে অংশ নিতে পারেনি দেশটি। শুধু তাই নয়? সামরিক আগ্রাসণের কারণে ইউরোপিয়ান কোনো টুর্নামেন্টেও অংশ নিতে পারছে না দেশটির ক্লাবগুলো। এমন পরিস্থিতিতে কিছুদিন ধরেই ইউরোপিয়ান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (উয়েফা) থেকে বের হয়ে যাওয়ার চিন্তা করছে রাশিয়ান ফুটবল ইউনিয়ন। উয়েফা ছেড়ে ২০১৮ বিশ্বকাপের আয়োজকরা যোগ দিতে চায় এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনে (এএফসি)।

এসব ব্যাপারে এখন পর্যন্ত সুনির্দিষ্টভাবে মুখ খুলেনি ফিফা কিংবা উয়েফার কোন প্রতিনিধি। তবে রাশিয়া এশিয়ান ফুটবলে যোগদানের বিষয়টিকে ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখছে সৌদি আরব। বরং তাতে এশিয়ার ফুটবলের লাভও দেখছেন দেশটির ক্রীড়ামন্ত্রী প্রিন্স আব্দুলাজিজ বিন তুর্কি আল-ফয়সাল। এ প্রসঙ্গে বাহরাইনের এএফসি কংগ্রসে তিনি বলেন, ‘যদি ফিফা এবং এএফসি বিষয়টিকে অনুমোদন দেয় তাহলে তা এশিয়ান ফুটবলের জন্য বরং ভালো হবে। এ ব্যাপারে কোনো সমস্যা হবে বলে আমার মনে হয় না।’
রাশিয়ার এশিয়ান ফুটবলে যোগদান প্রসঙ্গে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক কোন সিদ্ধান্ত পায়নি এএফসি। তাই আগাম কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি এএফসির প্রেসিডেন্ট শেখ সালমান বিন ইব্রাহিম আল খলিফা। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এ ব্যাপারে যদি কোন আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্ত হয় তাহলে সেটা ভিন্ন বিষয়। কিন্তু যে ব্যাপারে প্রাথমিক পর্যায়েও কোনোরকমের সিদ্ধান্ত হয়নি তা নিয়ে আমি কোনো পূর্বানুমান করতে চাই না।

রাশিয়ান ফুটবল ফেডারেশন এবং ইউরোপিয়ান ফেডারেশনের সঙ্গেও আমাদের খুব ভালো সম্পর্ক। যে কোনো উপলক্ষেই সর্বদা আমরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করি। খেলার স্বার্থে আমরা যতটা সম্ভব চাই ফুটবল থেকে রাজনীতিকে দূরে রাখতে।’ এশিয়া মহাদেশের মধ্যে রাশিয়ার ৭৫ ভাগ ভূমি রয়েছে। কিন্তু তথাপি তারা নিজেদের ইউরোপিয়ান হিসেবেই পরিচয় দেয়।

এখন এএফসিতে যোগ দিয়ে যদি সেই পরিচয় পাল্টায়, তাহলে এশিয়া অঞ্চলে পরিবর্তন আসবে বলে আশা করাই যায়। কেননা এএফসিতে যোগ দান মানে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে এশিয়ার দলগুলোর সঙ্গে খেলবে রাশিয়া। দেশের ক্লাবগুলোও এশিয়ান অঞ্চলের টুর্নামেন্টগুলোতে প্রতিনিধিত্ব করবে। আর যদি শেষ পর্যন্ত তা হয় তাহলে এশিয়ান ফুটবলের জন্য নিঃসন্দেহে ভালো হবে।

×