ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

শাহজালাল বিমানবন্দরে শেখ তামিমকে লালগালিচা সংবর্ধনা ও গার্ড অব অনার

কাতারের আমির ঢাকায়

কূটনৈতিক রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:১১, ২৩ এপ্রিল ২০২৪

কাতারের আমির ঢাকায়

কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানিকে স্বাগত জানান রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন 

দুইদিনের সফরে ঢাকায় পৌঁছেছেন কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি। সোমবার বিকেল ৫টায় একটি বিশেষ ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেন কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি ও তার সফর সঙ্গীরা। বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানান রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন। এই সময় কাতারের আমিরকে লাল গালিচা সংবর্ধনা ও গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। কাতারের আমির বিমানবন্দরে সালাম গ্রহণের পর উপস্থাপনা লাইনে বাংলাদেশ ও কাতারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।
বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির আমন্ত্রণে দীর্ঘ ১৯ বছর পর কাতারের আমির বাংলাদেশে এলেন। শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানির  এই সফরে বাংলাদেশ-কাতারের মধ্যে ছয়টি চুক্তি ও পাঁচটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হবে। সফরকালে যে ছয়টি চুক্তি সই হবে, সেগুলো হলো - দ্বৈত কর পরিহার ও কর ফাঁকি সংক্রান্ত চুক্তি, আইনি বিষয়ে সহযোগিতা সংক্রান্ত চুক্তি, সাগরপথে পরিবহন সংক্রান্ত চুক্তি, উভয় দেশের পারস্পরিক বিনিয়োগ উন্নয়ন ও সুরক্ষা সংক্রান্ত চুক্তি, দুদেশের মধ্যকার দ-প্রাপ্ত ব্যক্তিদের বদলি সংক্রান্ত চুক্তি এবং যৌথ ব্যবসা পরিষদ গঠন সংক্রান্ত চুক্তি।

যে পাঁচটি সমঝোতা সই হবে, সেগুলো হলো শ্রমশক্তির বিষয়ে সমঝোতা স্মারক, বন্দর  পরিচালনা সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক, উচ্চ শিক্ষা ও বৈজ্ঞানিক গবেষণা সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক, যুব ও ক্রীড়া ক্ষেত্রে সহযোগিতা সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক এবং কূটনৈতিক প্রশিক্ষণে সহযোগিতা সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক।
সফরের দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তিনি বৈঠক করবেন। দুই শীর্ষ নেতার উপস্থিতিতে এই সময়ে দুই দেশের মধ্যে চুক্তি ও সমঝোতা সই হবে। সেখানে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেবেন তাঁরা।  
সেখানে পরিদর্শন বইয়ে সই শেষে আমির মঙ্গলবার বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিনের সঙ্গে বৈঠক করবেন আমির। সেখানে মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেবেন তিনি।

একইসঙ্গে বঙ্গভবনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করবেন। রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে সফররত আমির পরিদর্শন বইয়ে সই করবেন। কাতারের আমিরের নামে ঢাকা সিটি করপোরেশনের একটি পার্ক ও উড়াল সেতুর নামকরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তঁাঁর নামে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আওতাধীন মিরপুরের কালশীর বালুর মাঠে নির্মিতব্য পার্ক ও মিরপুর ইসিবি চত্বর থেকে কালশী উড়াল সেতু পর্যন্ত সড়কটির নামকরণ করা হবে। এই দুটি স্থাপনা তিনি বিকেল তিনটায় উদ্বোধন করবেন।   মঙ্গলবার সন্ধ্যা ছয়টায় সফর শেষে বিশেষ ফ্লাইটে কাতারের আমির ঢাকা ছাড়বেন। 
১৯৭৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ওআইসি শীর্ষ সম্মেলনের পর ১৯৭৪ সালের ৪ মার্চ কাতার বাংলাদেশকে একটি সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। ১৯৭৫ সালের ২৫ জুন দোহায় বাংলাদেশ তার কূটনৈতিক মিশন চালু করে। ১৯৮২ সালে ঢাকায় কূটনৈতিক মিশন খোলার মাধ্যমে প্রতিদান দেয় কাতার। বাংলাদেশ ও কাতারের মধ্যকার দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক পারস্পরিক শ্রদ্ধা, অভিন্ন মূল্যবোধ, অভিন্ন ধর্মীয় ভিত্তি, অভিন্ন সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যের ওপর ভিত্তি করে প্রতিষ্ঠিত।

সুশৃঙ্খল ও পরিশ্রমী হিসেবে অত্যন্ত প্রশংসিত চার লাখেরও বেশি বাংলাদেশি কর্মীর সঙ্গে যোগাযোগ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট্য বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
বাংলাদেশ ও কাতার বাংলাদেশের রূপকল্প ২০৪১ এবং কাতারের রূপকল্প ২০৩০ বাস্তবায়নে একে অপরকে ভ্রাতৃপ্রতিম দেশ এবং গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন সহযোগী হিসেবে বিবেচনা করে।

×