বৃহস্পতিবার ২০ শ্রাবণ ১৪২৮, ০৫ আগস্ট ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

কুষ্টিয়ায় প্রকাশ্যে স্ত্রী সন্তানসহ ৩ জনকে গুলি করে হত্যা

কুষ্টিয়ায় প্রকাশ্যে স্ত্রী সন্তানসহ ৩ জনকে গুলি করে হত্যা
  • ঘাতক আটক

এমএ রকিব, কুষ্টিয়া ॥ পরকীয়ার জেরে কুষ্টিয়ায় প্রকাশ্যে স্ত্রী-পুত্র সন্তানসহ তিনজনকে গুলি করে হত্যা করেছে পুলিশের এক সহকারী পরিদর্শক (এএসআই)। ঘাতক এএসআই সৌমেনকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের পাশে শহরের কাস্টমস মোড় এলাকার চারতলা ভবনের নিচতলার মার্কেটে এ হত্যাক-ের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, আসমা খাতুন (২৬), তার ছেলে রবিন (৮) ও শাকিল খান (২২)। তাদের খুব কাছ থেকে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করা হয়। স্থানীয়রা তাদের দ্রুত উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। সৌমেন বর্তমানে খুলনার ফুলতলা থানায় কর্মরত। নিহত আসমা খাতুন তার দ্বিতীয় স্ত্রী এবং শিশু রবিন তার সন্তান। সৌমেনের বাড়ি মাগুরা জেলায় বলে জানা গেছে। অপরদিকে নিহত আসমার বাড়ি কুমারখালী উপজেলার বাগুলাট ইউনিয়নের নাতুড়িয়া গ্রামে। তার বাবার নাম আমির আলী। আর শাকিলের বাড়ি একই উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের সাওতা গ্রামে। সে মজিবার রহমানের ছেলে। শাকিল অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী এবং তিনি পড়ালেখার পাশাপাশি বিকাশে চাকরি করতেন বলে তার পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে। পুলিশের ধারণা, নিহত আসমা ও শাকিলের মধ্যে কোন সম্পর্ক বা আর্থিক লেনদেনের ঘটনায় সৃষ্ট দ্বন্দ্বে আসমার স্বামী আটক সৌমেন এই হত্যাকান্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে। এদিকে দিনদুপুরে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে শাকিল খান নারী আসমা খাতুন ও তার পুত্র রবিনকে সঙ্গে নিয়ে কুষ্টিয়া শহরের কাস্টমস মোড়ে একটি বিকাশের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলছিলেন। এমন সময় সেখানে হাজির হন সৌমেন। আসমার সঙ্গে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে পুলিশের এএসআই সৌমেন নিজের কাছে থাকা অস্ত্র বের করে শিশু রবিনকে প্রথমে পেছন থেকে গুলি করে। রবিন মাটিতে লুটিয়ে পড়ার পর সঙ্গে সঙ্গে আরও কয়েক রাউন্ড গুলি করে। এ সময় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা কিছু বুঝে ওঠার আগেই অপর দুইজনকেও মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করে সৌমেন। ঘটনার আকস্মিকতায় হতবিহ্বল ব্যবসায়ীরা একজোট হয়ে সৌমেনকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছুড়তে থাকে। এ সময় সে এলোপাতাড়ি গুলি চালাতে থাকে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কয়েক’শ এলাকাবাসী ইট পাটকেল নিয়ে ওই যুবকের ওপর হামলা করতে উদ্যত হয়। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে ঘাতক হাতের অস্ত্র ফেলে দেয়। পরে লোকটিকে মার্কেটের মধ্যে আটকে রেখে এলাকাবাসী পুলিশে সংবাদ দেয়। খবর পেয়ে দ্রুত পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাকে ধরে একটি বাড়িতে আটকে রাখে। ক্ষুব্ধ জনতা এ সময় ঘাতককে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। পরে পুলিশের অতিরিক্ত সদস্য এসে খুনীকে কড়া প্রহরায় থানায় নিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী এক মুদি দোকানদার জানান, ‘সোয়া ১১টার দিকে হঠাৎ গুলির শব্দ শুনতে পাই। এ সময় এক বাচ্চাকে একজন গুলি করছে দেখতে পাই। গুলি করার পর শিশুটি মাটিতে পড়ে যায়। এরপর আমরা হৈচৈ শুরু করলে সে আবার গুলি ছুঁড়তে শুরু করে। প্রত্যক্ষ্যদর্শী মার্কেটের অপর ব্যবসায়ী বলেন, একজনই তার হাতে থাকা অস্ত্র দিয়ে গুলি করছিল। সে একাই তিনজনকে গুলি করে। এরপর আমরা চারদিক থেকে তাকে ঘিরে ধরি। পরে পুলিশ এসে তাকে নিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, কাস্টমস মোড় মার্কেটের সামনে প্রচুর রক্ত পড়ে আছে। শিশুটিকে সেখানে গুলি করে খুনী। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,‘ ঘটনার পর পরই আমরা পুলিশফোর্সসহ এখানে উপস্থিত হই। তিনজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। আর খুনীকে আমরা আটক করেছি। এ বিষয়ে তদন্ত করে পরে বিস্তারিত জানানো হবে। ন্যায়বিচার নিশ্চিত করা হবে। তবে প্রাথমিকভাবে হত্যাকান্ডের কারণ তিনি জানাতে পারেননি। এদিকে নিহত শাকিল খানের বাড়ি সাঁওতা গ্রামে গিয়ে কথা হয় তার ভাবি লতা ও মা মারিয়াম খাতুনের সঙ্গে। তিনি জানান,‘ আসমা খাতুনের সঙ্গে শাকিলের চেনাজানা ছিল। তাদের ভাই বোনের সম্পর্ক ছিল। এর বাইরে কোন গোপন সম্পর্ক তাদের মধ্যে ছিল বলে আমরা জানি না। দেড় মাস আগে সৌমেন আমাদের বাড়িতে আসে। আসার পর সে জানায়, তার স্ত্রী আসমার সঙ্গে শাকিলের গোপন সম্পর্ক রয়েছে। সে যেন তার সঙ্গে মেলামেশা না করে। এরপর সে চলে যায়। কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাব্বিরুল ইসলাম বলেন, শহরের কাস্টম মোড়ের মার্কেটে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত বিকাশ কর্মী শাকিলসহ মা আসমা ও শিশু রবিন হত্যাকান্ডে জড়িত সন্দেহে আটক পুলিশ সদস্য এএসআই সৌমেন কুমার মাগুরার বাসিন্দা এবং বর্তমানে খুলনা ফুলতলা থানায় কর্মরত বলে জানতে পেরেছি। জিজ্ঞাসাবাদে সৌমেন নিহত আসমাকে তার স্ত্রী বলে দাবি করেছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে সৌমেনের স্ত্রী আসমার সঙ্গে বিকাশকর্মী শাকিলের পরকীয়া কিংবা আর্থিক কোন লেনদেনের ঝামেলা থাকতে পারে। অথবা আসমা-সৌমেন ও শাকিলের মধ্যে ত্রিমুখী কোন সম্পর্কের দ্বন্দ্বে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। আমরা সবগুলো বিষয় বিবেচনায় নিয়ে তদন্ত করছি। কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার খাইরুল ইসলাম বলেন, অস্ত্র ও গুলিসহ সৌমেনকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।’ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ তাপস কুমার সরকার জানান, রবিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গুলিবিদ্ধ একজন মহিলা, একজন শিশু ও একজন পুরুষকে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা করে তাদের তিনজনকেই মৃত দেখতে পান। নিহত কয়েক জনের মাথাসহ শরীরের অন্য স্থানে গুলি করা হয়েছে। খুব কাছ থেকে গুলি চালানো হয়। নিহতদের মরদেহ বর্তমানে হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
২০০৪৬৪৮০৭
আক্রান্ত
১৩০৯৯১০
সুস্থ
১৮০৬৮১২৭৬
সুস্থ
১১৪১১৫৭
শীর্ষ সংবাদ:
অবিস্মরণীয় জয় ॥ টাইগারদের আরেকটি         আজ শহীদ শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী         শোকের মাস         সঙ্কেত আরও অশনি ॥ রোহিঙ্গার বোঝা নিয়ে দেশ         করোনায় আরও ২৪১ জনের মৃত্যু         পিয়াসার লিভ টুগেদার আর বিয়ে বাণিজ্যের কৌশল ছিল মৌয়ের         সেই গায়ত্রীর অবস্থান জানাতে পারেনি ইউএনএইচসিআর         মুন্সীগঞ্জে আগুনে ৪৬ পরিবার গৃহহারা         দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ৫ উইকেটে জিতে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে বাংলাদেশ         করোনা ভাইরাসে আরও ২৪১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ছাড়াল ১৩ লাখ         চিত্রনায়িকা পরীমনি আটক         চিরুনি অভিযানের ফলে এডিস মশার বিস্তার নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারব ॥ তাপস         জরুরি ভিত্তিতে ৩০টি অক্সিজেন জেনারেটর কেনার উদ্যোগ সরকারের         আরও ২৩৭ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি         লকডাউনের ত্রয়োদশ দিনে গ্রেফতার ৪২৫         চিত্রনায়িকা পরীমণির বাসায় র‍্যাবের অভিযান         শিবগঞ্জে বজ্রপাতে একসঙ্গে ১৭ জনের মৃত্যু         ব্যাটিং-বোলিং দুই র‍্যাঙ্কিংয়েই উন্নতি হল সাকিবের         বজ্রপাতে নিহতদের প্রতি পরিবার পাচ্ছেন ২৫ হাজার টাকা         পুড়ে অঙ্গার হওয়া ২৪ জনের লাশ বুঝে পেল পরিবার