বৃহস্পতিবার ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

সংগ্রামী সালমার এগিয়ে চলা

সংগ্রামী সালমার এগিয়ে চলা

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ ছেলের স্বপ্ন ডাক্তার হবে। পঙ্গু পিতার চিকিৎসার পাশাপাশি দরিদ্র ও অসহায় মানুষের সেবা করবে। কিন্তু সেই স্বপ্ন পূরণ হবে কীভাবে তা জানেন না মা সালমা বেগম (৩৫)। প্রতিদিন চুলোয় আগুন না জ্বালালে যার সংসার চলে না তিনি কীভাবে ছেলেকে চিকিৎসক বানাবেন। কিন্তু অদম্য মনোবলের কারণে সেই ‘দুঃস্বপ্ন’ও তাকে এখন স্বপ্ন দেখাতে শুরু করেছে।

সালমা বেগমের বাড়ি মণিরামপুর উপজেলার ব্রহ্মপুর গ্রামে। প্রায় ২০ বছর আগে তার বিয়ে হয়েছিল স্থানীয় হাবিবুর রহমানের সঙ্গে। চার বছর আগে সড়ক দুর্ঘটনায় হাবিবুর পঙ্গু হয়ে যান। সন্তান সাকিবকে নিয়ে শুরু হয় সালমার সংগ্রামী জীবন। স্বামীর কেনা তিন শতক জমিতে ছোট একটা ঘর তুলে থাকার ব্যবস্থা করা গেলেও স্বামীর চিকিৎসা, ছেলের লেখাপড়া, খাওয়া-পরার বন্দোবস্ত হবে কীভাবে! এখান থেকেই ঘুরে দাঁড়ানো শুরু সালমা বেগমের। কারও ওপর নির্ভরশীল না থেকে নেমে পড়েন কাজে। ঢাকুরিয়া বাজারে ছোট একটা চায়ের দোকান দিয়ে সংসারের সকল ভার নেন নিজের কাঁধে। এরই মাঝে ছেলে ঢাকুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণীতে উন্নীত হয়েছে। তার স্বপ্ন সে ডাক্তার হবে। সালমা বেগম জানান, দুঃসময়ে কেউ তার পাশে এসে দাঁড়ায়নি। তিনি কারও মুখাপেক্ষিও ছিলেন না। স্বামী-সন্তানকে নিয়ে বেঁচে থাকার সংগ্রাম তাই নিজেই শুরু করেন। ঢাকুরিয়া বাজারে খুপড়ির মতো চায়ের দোকানে রয়েছে একটি বেঞ্চ আর একটি চুলা। যেখানে প্রতিদিন সকাল থেকে চুলায় আগুন জ্বালানো, কেটলিতে পানি ঢালা, গরম পানির সঙ্গে চা-চিনি মিশিয়ে পরিবেশন করার সঙ্গে সঙ্গে এগিয়ে চলে তার স্বপ্ন পূরণের আশাও। তিনি বলেন, ‘ছেলেকে বলেছি আমি যতটুকু পারি চেষ্টা করব। তুমি পড়তে থাকো। বাকি আল্লাহর ইচ্ছা। তবে, সে (ছেলে) ডাক্তার হতে পারবে কি না জানি না, মানুষের মতো মানুষ হলেই আমি খুশি’। সালমা বেগম জানান, ‘সারাদিন কাজ করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়ি। মাঝেমধ্যে মনে হয় আর হয়তো পারব না। এই বুঝি পড়ে যাব। কিন্তু স্বামী-সন্তানের মুখ চোখের সামনে ভেসে উঠলে কোথা থেকে যেন আবার শক্তি এসে ভর করে। আবার আগের মতো কাজ করতে পারি’। ঝড়-বৃষ্টি কোন কিছুতেই থামে না সালমা বেগমের নিত্য সংগ্রাম। ‘থামলে কী হবে-খাওয়াবে কিডা! একবেলা দোকান না খুললে আর একবেলা খাওয়া জোটে না’-বলেন তিনি।

শীর্ষ সংবাদ:
ওমিক্রন ছড়ানো দেশগুলোর তালিকায় এবার যুক্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নাম         ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর চেক ফেরত দিল ব্যাংক, ফেসবুকে ক্ষোভ         রাজশাহী কারাগারে মেয়র আব্বাসের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন         রাজশাহীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু         সাভারে ৬ শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হত্যা মামলার রায়ে ১৩ জনের মৃত্যুদণ্ড         রাঙ্গামাটির সাজেকে পুড়েছে রিসোর্ট, রেস্তোরাঁ ও বসতবাড়ি         সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় বৃদ্ধা আহত, চালক আটক         ডি কাপলড সিরিজে মাধবনের সঙ্গে দেখা যাবে মীরকে         ওমিক্রন পরিস্থিতি খারাপ হলে বন্ধ হতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান         শুরু হলো এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা         ওসি প্রদীপসহ আসামিদের আত্মপক্ষ সমর্থনে সাফাই সাক্ষী দেয়ার সুযোগ         বেনজেমার একমাত্র গোলে রিয়াল মাদ্রিদের জয়         গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মারা গেছেন ৮ হাজার ১৭৬ জন         বন্দুকযুদ্ধে কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যার প্রধান আসামি শাহ আলম নিহত         গণমুখী প্রশাসন ॥ স্বাধীনতার ৫০ বছরে বড় অর্জন         ছাত্রদের কাজ লেখাপড়া, রাস্তায় নেমে যান ভাংচুর নয়         উন্নয়নে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ         ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃত্বের ভূমিকায় থাকবে         ১১ খাতে বিপুল বিনিয়োগ আসার সম্ভাবনা         ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তি চুক্তিতে বদলে গেছে পাহাড়