শনিবার ১৬ মাঘ ১৪২৮, ২৯ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

জামালপুরে নকল বিড়ি বিক্রি ॥ রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার

জামালপুরে নকল বিড়ি বিক্রি ॥ রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার

নিজস্ব সংবাদদাতা, জামালপুর ॥ জামালপুরের প্রায় প্রতিটি হাট বাজারে নকল ব্যান্ডরোল ও ব্যান্ডরোলবিহীন বিড়িতে সয়লাব হয়ে গেছে। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে কিছু অসাধু বিড়ি ব্যবসায়ী ও কোম্পানি এসব অবৈধ ব্যবসা পরিচালনা করে লুটে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা। এক জরিপে দেখা গেছে, জামালপুরে প্রায় ৪৯টি বিড়ি কোম্পানি নামে বেনামে তাদের ব্যবসা পরিচালনা করেলেও মূলত তিনটি কোম্পানির বৈধতা রয়েছে। বাকি ৪৬টি বিড়ি কোম্পানি বৈধ কোনো কাগজপত্র নেই বললেই চলে। এসব নাম সর্বস্ব কোম্পানি গ্রামগঞ্জের হাট-বাজারে নকল ব্যান্ডরোল ও ব্যান্ডরোলবিহীন বিড়ি বিক্রি করে যাচ্ছে সহসাই। সরকার প্রতিটি ব্যান্ডরোল ট্যাক্স ৭ টাকা ৮৩ পয়সা নির্ধারিত করা আছে। আর প্রতিটি বিড়ির প্যাকেট ন্যূনতম ১৪ টাকা বিক্রির জন্য বলা হলেও নামে বেনামের এসব ভূয়া কোম্পানি নকল ব্যান্ডরোলের বিড়ি প্যাকেট বিক্রি করছে মাত্র সাত টাকা থেকে আট টাকা করে। আর এসব অসাধু ব্যবসায়ী ও কোম্পানির কারণে জামালপুর থেকে প্রতিমাসে চার কোটি ও বছরে ৫০ কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার। এদিকে দেখা গেছে, জামালপুর সদর, মেলান্দহ, মাদারগঞ্জ, ইসলামপুর, দেওয়ানগঞ্জ, বকশীগঞ্জ, সরিষাবাড়ী উপজেলার বিভিন্ন বাজারে আবাদ বিড়ি, বাদশা-২ বিড়ি, আজিম বিড়ি, জামাল বিড়ি, যমুনা বিড়ি, নবাব বিড়ি, পাখি বিড়ি, আফিজ বিড়ি, মিজান বিড়ি, সাথী বিড়ি, রাঙ্গা বিড়ি, আলম বিড়ি, স্বাধীন বিড়ি, সাইফ বিড়ি, কমল বিড়ি, রবি বিড়ি, আনার বিড়ি, বাদশা বিড়ি-১ , ফ্রেস বিড়ি, রেডিও বিড়ি, তারা বিড়ি, যমুনা বিড়ি, রতনা বিড়ি, ময়না বিড়ি নামে প্রতিটি হাট-বাজারে নকল ব্যান্ডরোল ও ব্যান্ডরোলবিহীন বিড়ি বিক্রি করে কোটি কোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে ব্যবসা করে আসছে মালিকরা। এ বিষয়ে জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর সেলিম বলেন, প্রতি মাসে এসব অসাধু বিড়ি ব্যবসায়ী ও কোম্পানির কারণে জামালপুর থেকে প্রতিমাসে চার কোটি ও বছরে ৫০ কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার। এসব দুর্নীতি প্রতিরোধে ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন। জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বলেন, এসব কোম্পানি ক্রেতাদের অধিকার ক্ষুন্ন করে বিড়ি নীতিমালার তোয়াক্কা না করে বাজারে নকল ও ভূয়া ব্যান্ডরোল ব্যবহার করে ব্যবসা করে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার পাশাপাশি জনগণের সাথেও প্রতারণা করে আসছে। এ ব্যাপারে জামালপুর সার্কেল-১ ও সার্কেল-২ এর বিভাগীয় দপ্তরের রাজস্ব কর্মকর্তা মো. আব্দুল কুদ্দুস বলেন, সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে যে সকল নকল ব্যান্ডরোল ও ব্যান্ডরোলবিহীন বিড়ি কোম্পানি তাদের ব্যবসা বাণিজ্য পরিচালনা করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ বিষয়ে জামালপুরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক জনকণ্ঠকে বলেন, নকল ব্যান্ডরোল ব্যবহার কারী ও কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করে অসাধু কোম্পানি ও ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করাসহ সরকারের রাজস্ব আয় ও জনগণের স্বার্থে কাজ করা হবে।

শীর্ষ সংবাদ:
সামনে কঠিন ২ সপ্তাহ ॥ নিয়ন্ত্রণের বাইরে করোনা         দুই প্রতিষ্ঠানের সাড়ে ১৮ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা ॥ জালিয়াতি ও অনলাইন প্রতারণা         গণমানুষের ভোটাধিকার নিশ্চিতে মাইলফলক ॥ কাদের         বাড়িতে ঢুকে গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা         হুন্ডুরাসে প্রথম         উৎসবমুখর পরিবেশে শেষ হলো চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন         চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনা আক্রান্ত চিকিৎসক-নার্স         আগামী জুনে উৎপাদনে যাবে দেশী-বিদেশী ৬ প্রতিষ্ঠান         সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে নারায়ণগঞ্জের জাহিন নিটওয়্যার্সের আগুন         করোনা ভাইরাসে আরও ২০ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৪৪০         শিল্পী সমিতির নির্বাচন ॥ ভোট দিয়েছেন ৩৬৫ জন, চলছে গণনা         শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের পদত্যাগের আন্দোলন চলবে, ঘোষণা শিক্ষার্থীদের         মন্ত্রীর অনুরোধ না রেখে ৬ তারিখের আগেই দাম বাড়লো ভোজ্যতেলের         মাত্র ২ সরকারি হাসপাতালে রয়েছে স্ট্রোক ব্যবস্থাপনার সুবিধা!         বিএনপি দেশের বিরুদ্ধে সারা দুনিয়ায় অপপ্রচার চালাচ্ছে ॥ তথ্যমন্ত্রী         চিকিৎসা পাওয়া আমার মৌলিক অধিকার ॥ মাহবুব তালুকদার         ইসিকে শক্তিশালী করতে সব রকম পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে ॥ সেতুমন্ত্রী         ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধ করার ইচ্ছা রাশিয়ার নেই ॥ লাভরভ         রোহিঙ্গাদের জন্য ২০ লাখ মার্কিন ডলার সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা জাপানের         টাঙ্গাইলে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত, আহত ২