বুধবার ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৫ আগস্ট ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আফগানিস্তানে আমরা আরও ১৯ বছর থাকতে চাই না

  • প্রতিবেশী দেশগুলোকেই জঙ্গীবিরোধী ভূমিকা রাখতে হবে ॥ ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, ভারতসহ অন্যান্য দেশকে আফগানিস্তানের জঙ্গীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়া উচিত। আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার হচ্ছে না এমন ইঙ্গিত দেয়ার একদিন পর তার এ মন্তব্য এলো। এপি।

ট্রাম্প বলেন, আফগান জঙ্গীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে বর্তমানে অন্যান্য দেশ খুব কমই সহায়তা করছে। আফগানিস্তানে ইসলামিক স্টেট জঙ্গীদের প্রত্যাবর্তন বিষয়ে হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের উদ্দেশে এসব মন্তব্য করেন। ট্রাম্প বলেন, কিন্তু একটা সময় এসব দেশকে এসব জঙ্গীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হবে। কারণ আমরা কী সেখানে আরও ১৯ বছর থাকতে চাই না। ট্রাম্প বলেন, সাত হাজার মাইল দূর হলেও আফগানিস্তানের জঙ্গীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু ভারত ও পাকিস্তান কাছাকাছি অবস্থান করলেও তারা জঙ্গীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। ট্রাম্প বলেন, দেখুন, আফগানিস্তানের কাছেই ভারত। তারা এটার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে না। আমরা যুদ্ধ করছি। পাকিস্তান একেবারেই কাছে। তারা এর বিরুদ্ধে খুব সামান্যই প্রতিরোধ গড়ে তুলছে। খুব, খুব সামান্য। এটা ঠিক নয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সাত হাজার মাইল দূরে অবস্থিত। ট্রাম্প বলেন, তার নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্র আইএস নির্মূল করেছে। তিনি বলেন, আইএস সম্পর্কে আমরা বেশি কিছু শুনছি না। আমরা খেলাফত শতভাগ বিনাশ করেছি। যখন আমরা ৯৮ ভাগ নির্মূল করি তখন আমি বলি, সব ঠিক আছে, এখন বাড়ি ফিরে যেতে পারি। এখন এসব দেশকে আসার সুযোগ দেই। তারা বলল, এটা করতে এক বছর সময় লাগতে পারে। কিন্তু এটা করতে আমার এক মাস সময় লেগেছে এবং তারা বিতাড়িত হয়েছে। খেলাফত ধ্বংস হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হাজার হাজার আইএস যোদ্ধা আটক রয়েছে এবং ইউরোপকে তাদের গ্রহণ করা উচিত। ট্রাম্প বলেন, ইউরোপ যদি তাদের গ্রহণ না করে, তবে তারা যে দেশ (ফ্রান্স ও জার্মানি) থেকে এসেছে সেদেশে তাদের মুক্তি দেয়া ছাড়া কোন উপায় নেই। মার্কিন এই প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, আমরা তাদের পরাজিত করেছি। আমরা তাদের আটক করেছি। আমাদের কাছে হাজার হাজার আইএস বন্দী রয়েছে। আর এখন আমাদের মিত্ররা বলছে, না, আমারা তাদের নেব না। যদিও তারা জার্মানি ও ফ্রান্সসহ বিভিন্ন দেশের নাগরিক। সুতরাং আমরা যেসব বন্দীকে আটক করেছি তাদের ফেরত নেয়ার জন্য ইতোমধ্যে মিত্রদের বলা হয়েছে। কারণ যুক্তরাষ্ট্র তাদের আগামী ৫০ বছরের জন্য গুয়ানতানামো কারাগারে পাঠাতে চায় না এবং তাদের ব্যয় বহন করতে চায় না।

শীর্ষ সংবাদ:
চামড়ার বাজারে ধস ॥ প্রধান চার কারণ চিহ্নিত         মানুষের উন্নত জীবন ধারা নিশ্চিত করাই মূল লক্ষ্য         ষড়যন্ত্রকারীদের অপচেষ্টার বিরুদ্ধে সতর্ক থাকুন ॥ কাদের         নরেন দাস ছিলেন বঙ্গবন্ধুর একনিষ্ঠ সৈনিক ॥ আইনমন্ত্রী         জুলাইয়ে রেমিটেন্সে রেকর্ড         টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা নিহত         আজ শহীদ শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী         এক সপ্তাহের মধ্যে বন্যার পানি কমবে         করোনা পরীক্ষার সংখ্যা কমলেও রোগী শনাক্তের হার বেড়েছে         আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ নেতাসহ তিনজনকে কুপিয়ে হত্যা         ভ্যাকসিন পরীক্ষার জন্য চীনা কোম্পানির আবেদন         করোনায় চলে গেলেন টিভি ব্যক্তিত্ব বরকতউল্লাহ         খোরশেদ আলম সুজন চসিকের প্রশাসক         নেত্রকোনার ডিসি প্রত্যাহার         এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজ নিজস্ব জমিতে স্থানান্তরের নির্দেশ         ৯ আগস্ট থেকে একাদশ শ্রেণির ভর্তির অনলাইন কার্যক্রম শুরু         পুলিশের গুলিতে নিহত সাবেক মেজর সিনহার মাকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন         করোনা চিকিৎসায় সহজ কোনো সমাধান নেই : ডব্লিউএইচও         পাপিয়ার বিরুদ্ধে সোয়া ৬ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদের মামলা         বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ অনেক আগেই উন্নত দেশে পরিণত হতো : প্রযুক্তিমন্ত্রী        
//--BID Records