শনিবার ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৬ জুন ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

মাহে রমজান

অধ্যাপক মনিরুল ইসলাম রফিক ॥ পবিত্র মাহে রমজানুল মুবারাকের আজ ১৪তম দিবস। এ মৌসুমে কোন কোন পরিবার থেকে রোজার ফিদয়া সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়। সে সম্পর্কে আজ দু’চারটি কথা। এ বিষয়টি নিয়ে প্রায় সময় সমাজে আলেম-ওলামাকে প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়। ইসলামী আইনের কিতাবসমূহে রয়েছে, অতিশয় বৃদ্ধ ব্যক্তি যে রোজা রাখতে অক্ষম অথবা এমন রুগ্ন ব্যক্তি যার সুস্থতার আশা করা যায় না তাদের ব্যাপারে শরীয়তের বিধান হলো; তারা রোজার পরিবর্তে ফিদ্য়া দেবে। অর্থাৎ প্রত্যেকদিনের রোজার পরিবর্তে একজন মিসকিনকে দু’বেলা পেট ভরে আহার করাবে অথবা সাদাকায়ে ফিতরের সমপরিমাণ গম, যব, খেজুর বা তার বাজারমূল্য কোন মিসকিনকে প্রদান করবে (ফাতওয়ায়ে শামী)।

একটি পূর্ণ ফিদ্য়া একজন মিসকিনকে দেয়াই উত্তম। কিন্তু যদি একটি ফিদ্য়া ভাগ করে একাধিক মিসকিনকে প্রদান করা হয় তবে ইমাম আবু ইউসূফ (রহ.)-এর মতে তাও দুরস্ত আছে (শামী)। আমরা এমনটিও করতে পারি। তবে আমাদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে এবং বিশ্বাস করতে হবে, বৃদ্ধ যদি পুনরায় কখনও রোজা রাখার শক্তি ফিরে পায় অথবা নিরাশ রুগ্ন ব্যক্তি যদি আরোগ্য লাভ করে এবং রোজা রাখতে সক্ষম হয় তবে যেসব রোজার ফিদ্য়া প্রদান করা হয়েছে পুুনরায় এগুলোর কাযা করতে হবে। আর সে ফিদ্য়াটা সাদাকা হিসেবে গণ্য হবে (শামী ও আলমগীরী, ১ম খ-)।

কারো জিম্মায় কাযা রোজা থাকলে সে যদি তার ওয়ারিশদেরকে ওসিয়ত করে যায় যে আমার এই পরিমাণ রোজার কাযা আছে, তোমরা এর ফিদ্য়া আদায় করে দেবে। এরূপ অসিয়ত করে গেলে তার স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি হতে দাফন-কাফনের ব্যবস্থা করার পর ঋণ পরিশোধ করে যে পরিমাণ সম্পদ থাকবে তার এক-তৃতীয়াংশ সম্পদ দ্বারা সম্পূর্ণ ফিদ্য়া আদায় করা সম্ভব হলে তা আদায় করা তাদের ওপর ওয়াজিব হবে। ফিদ্য়ার পরিমাণ যদি তার অবশিষ্ট সম্পদের এক -তৃতীয়াংশের চেয়ে বেশি হয় তবে মৃত ব্যক্তির সম্পদ দ্বারা যে পরিমাণ ফিদ্য়া আদায় করা যায় ওই পরিমাণই আদায় করা ওয়াজিব হবে। অতিরিক্ত পরিমাণ ফিদ্য়া আদায় করা ওয়ারিশদের ওপর ওয়াজিব নয়। বাকি ফিদ্য়া আদায় করতে অতিরিক্ত যে সম্পদ লাগবে তার জন্য ওয়ারিশদের অনুমতি প্রয়োজন হবে। (শামী, ২য় খণ্ড ও আলমগীরী, ১ম খণ্ড)।

যদি মৃতব্যক্তি অসিয়ত না করে যায় এবং এমতাবস্থায় যদি তার ওলি ওয়ারিশগণ নিজেদের মাল থেকে তার নামাজ-রোজার ফিদ্য়া আদায় করে দেয় তবে তা জায়েজ আছে। আশা করা যায় যে, আল্লাহতা’য়ালা হয়ত নিজগুণে তা কবুল করে নেবেন এবং তার অপরাধ ক্ষমা করে দেবেন। মৃতব্যক্তির অসিয়ত না করা অবস্থায় তার পরিত্যক্ত মাল থেকে ফিদ্য়া আদায় করা জায়েজ নেই। অনুরূপ ফিদ্য়ার পরিমাণ যদি তার মালের এক-তৃতীয়াংশ অপেক্ষা বেশি হয় তবে অসিয়ত করা সত্ত্বেও ওয়ারিশদের অনুমতি ছাড়া অতিরিক্ত ফিদ্য়া পরিত্যক্ত মাল দ্বারা পরিশোধ করা জায়েজ হবে না। অবশ্য যদি ওয়ারিশগণ সকলেই খুশিমনে অনুমতি দেয় তবে পরিত্যক্ত মাল থেকেও অবশিষ্ট ফিদ্য়ার অবশিষ্ট আদায় করা জায়েজ হবে। রোজার মাসে আমাদের উচিত এসব মাসায়ালার জ্ঞান অর্জন করা এবং আমল করা। এসব প্রাসঙ্গিক জ্ঞান অর্জন করাও সওয়াবের কাজ।

শীর্ষ সংবাদ:
সংসদের ৩০০ জনকে করোনা পরীক্ষার নির্দেশ         করোনা ভাইরাসে আরও ৩৫ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৬৩৫ জন         অনলাইনে যোগদান করবেন পদোন্নতি পাওয়া যুগ্ম সচিবরা         রবিবার থেকে রাজধানীতে জোন ভিত্তিক লকডাউন         মিনিয়াপলিসে নিষিদ্ধ হচ্ছে পুলিশের হাঁটু দিয়ে গলা চেপে ধরা         পাবনায় পৃথক হত্যাকাণ্ডে ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার         এবার মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা         ২০ লাখ ডোজ করোনা ভেইরাসের ভ্যাকসিন প্রস্তুত ॥ ট্রাম্প         ঢাকাতেই সাড়ে ৭ লাখের বেশি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ॥ ইকোনমিস্ট         লন্ডনে আটকা পড়া বাংলাদেশিদের ফেরাতে বিশেষ ফ্লাইট         যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের স্পেশাল টিম থেকে ৫৭ কর্মকর্তার পদত্যাগ         মস্কো ইন্টারন্যাশনাল ফটোগ্রাফি অ্যাওয়ার্ডে ৫ বাংলাদেশি         বরিশালে করোনার উপসর্গ নিয়ে চারজনের মৃত্যু         ফ্রান্সের অভিযানে আল কায়েদার উত্তর আফ্রিকা প্রধান নিহত         ব্লাড ক্যান্সারের ওষুধ সারাবে করোনা ভাইরাস?         করোনা ভাইরাসে ব্রাজিলে প্রতি মিনিটেই মারা যাচ্ছেন একজন         মেক্সিকোতে মাস্ক না পরায় পিটিয়ে হত্যা!         যুক্তরাজ্যের গবেষণায় উঠে এল ভারতের ওষুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের ব্যর্থতা         হাঁটু গেড়ে মাটিতে বসে বিক্ষোভে সমর্থন জাস্টিন ট্রুডোর         দশ খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ ॥ বাজেটে করোনা মোকাবেলা ও অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে বিশেষ গুরুত্ব        
//--BID Records