রবিবার ১০ মাঘ ১৪২৮, ২৩ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ঢাকায় এক পীরকে হত্যার নীলনক্সা করেছিল জঙ্গীরা

  • জেএমবির তিন সদস্য সরঞ্জামসহ গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন ডেটোনেটর, বিস্ফোরক, কমান্ডো চাকু, জিহাদী বইপত্র ও শক্তিশালী গ্রেনেড তৈরির উপকরণসহ পুরনো জেএমবির তিন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতারে করেছে র‌্যাব-২। গ্রেফতারকৃতরা ঢাকায় একজন পীরকে হত্যার জন্য গাজীপুর থেকে ঢাকায় এসে একত্রিত হয়েছিল। টার্গেটকৃত ওই পীরকে হত্যার জন্য কয়েক দফায় ছদ্মবেশে রেকি করেছিল গ্রেফতারকৃতরা। অভিযানকালে ৭ থেকে ৮ জন পালিয়ে গেছে। তাদের শনাক্ত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

গত মঙ্গলবার গভীর রাতে রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানাধীন বেগুনবাড়ি পোস্ট অফিস রোডের ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এলাকা থেকে মোঃ মফিজুল ইসলাম ওরফে তুষার ওরফে তাওহীদ (২৯), মোঃ রকিবুল ইসলাম ওরফে রকিবুল মোল্লা (২৩) ও মোঃ ইলিয়াছ আহমেদকে (১৯) গ্রেফতার করে। অভিযানকালে ৭ থেকে ৮ জন পালিয়ে যায়। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে বিস্ফোরক দ্রব্য, জিহাদী বই, গ্রেনেড তৈরির বিস্ফোরক, ডেটোনেটর, কমান্ডো চাকুসহ নানা সরঞ্জাম উদ্ধার হয়।

বুধবার দুপুরে র‌্যাব-২ এর পরিচালক লে. কর্নেল মোঃ ইফতেখারুল মাবুদ সংবাদ সম্মেলনে জানান, গ্রেফতারকৃতরা নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন জেএমবির সক্রিয় সদস্য। তারা পুরনো জেএমবির অনুসারী। বিভিন্ন স্থানে নাশকতা চালানোর জন্য উদ্ধারকৃত বিস্ফোরক মজুদ করেছিল। তাদের দৃষ্টিতে পীর ও ফকিররা ইসলামের আদর্শের পরিপন্থী। তাই তাদের হত্যার পরিকল্পনা করেছিল এ গ্রুপটি। তাদের অন্যতম লক্ষ্য ছিল ঢাকার একটি পীরের মাজার। ওই পীরের আস্তানায় হামলার পরিকল্পনা করেছিল তারা। সে মোতাবেক ছদ্মবেশে তারা আস্তানাটি রেকি করেছিল। গ্রেফতারকৃতদের গ্রুপটির সদস্য সংখ্যা ২০ জন। এদের অধিকাংশই গাজীপুর এলাকার বাসিন্দা।

গত ২ বছর ধরে গ্রুপটি সক্রিয়। শুরুর দিকে এ গ্রুপের দলনেতা ছিল ইয়াছিন। ইয়াছিন গত বছরের ১৩ মার্চ র‌্যাব-১০ এর হাতে কয়েক সহযোগীসহ গ্রেফতার হয়। এরপর থেকে গ্রুপটির নেতৃত্ব দিচ্ছে সোহেব ওরফে সোয়াইব। সেই গ্রুপটি পরিচালনা করছে। তারা ফেসবুক, টেলিগ্রাম, থ্রিমাসহ অন্যান্য স্যোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে পারস্পারিক যোগাযোগ রাখে। পীর ছাড়াও গ্রুপটির অন্যতম টার্গেট আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। কারণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তাদের সমমনা অনেকেরই মৃত্যু হয়েছে। অভিযানের সময় কয়েকজন পালিয়ে গেছে। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

এই সেনা কর্মকর্তা বলছেন, জঙ্গীরা নাশকতা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে অনেক জঙ্গী গ্রেফতার ও নিহত হয়েছে। অনেক জঙ্গী আত্মপোগনে গেলেও তাদের তৎপরতা বন্ধ হয়নি। তারা বিভিন্ন স্থানে হামলার উদ্দেশ্যে বিভিন্নভাবে সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে।

শীর্ষ সংবাদ:
করোনা : সোমবার থেকে অর্ধেক জনবলে চলবে অফিস, প্রজ্ঞাপন জারি         ডেল্টার জায়গা দখল করছে নতুন ধরন ওমিক্রন ॥ স্বাস্থ্য অধিদফতর         ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ১৪, শনাক্তের হার বেড়ে ৩১.২৯         পিএসসির যে কোনো পরীক্ষায় লাগবে টিকা সনদ         করোনা : সোমবার থেকে সচিবালয়ে পাস ইস্যু বন্ধ         শহীদ মিনারে ফুল দিতে গেলে টিকা সনদ বাধ্যতামূলক         সংসদে শাবি ভিসির অপসারণ দাবি ২ এমপির         দুর্নীতি প্রমাণিত হওয়ায় ইউএনওর পদাবনতি         যেকোনও প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নে প্রয়োজন তদারকি বাড়ানো ॥ নসরুল হামিদ         বিনা নোটিশেই অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করা হবে : আতিক         ৭৪২ পুলিশ সদস্য পেলেন ‘গুড সার্ভিসেস ব্যাজ’         করোনায় ভয়াবহ কিছু হবে না : অর্থমন্ত্রী         ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নিহত ১         স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজি অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ স্থায়ী জামিন         শাবি উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাও         গত বছর সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৭৮০৯         যবিপ্রবির জিনোম সেন্টারে এবার ৩৫ জনের শরীরে ওমিক্রন শনাক্ত         খালেদার বিরুদ্ধে গ্যাটকো মামলার শুনানি পেছাল         স্কটল্যান্ডকে উড়িয়ে কমনওয়েলথ গেমসের আরও কাছে বাংলাদেশ         চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রাক-মাহিন্দ্রা সংঘর্ষে নিহত ২