বৃহস্পতিবার ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ইইউতে থাকুন ॥ ওবামা

  • ব্রিটেন সফরের শুরুতেই বিতর্কে জড়ালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁর যুক্তরাজ্য সফরের শুরুতেই শুক্রবার ব্রিটেনের ইইউ সদস্যপদ সম্পর্কিত তিক্ত বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। তিনি ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ত্যাগ করার প্রস্তাবের বিপক্ষে জোরালো ভাষায় বক্তব্য রাখেন। ইইউ বিরোধীদের ঐতিহ্যবাহী মুখপত্র ডেইলি টেলিগ্রাফ পত্রিকায় তিনি লেখেন যে, ব্রিটেনের উচিত ২৩ জুনের গণভোটে ইইউতে থাকার পক্ষে ভোট দেয়া। তার মতে, ইইউতে ব্রিটেনের সদস্যপদ বিশ্বজুড়ে এর প্রভাব প্রসারিত করছে। প্রেসিডেন্ট তিন দিনের যুক্তরাজ্য সফরে বৃহস্পতিবার সেখানে পৌঁছান। কিন্তু ওবামার মন্তব্যের প্রতি ইইউবিরোধীরা কড়া প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। তাদের পক্ষের প্রচার সংগঠন ভোট লিভের সমর্থক বরিস জনসন সান পত্রিকায় লিখেছেন, যুক্তরাজ্যকে এর গণতন্ত্রের ওপর নিয়ন্ত্রণ ব্যাপক মাত্রায় অবশ্যই ছেড়ে দিতে হবেÑ যুক্তরাষ্ট্রের আমাদের উদ্দেশে এ কথা বলা ‘আমি যা করি, তা নয়, আমি যা বলি তাই করুন’ নীতির এক বিস্ময়কর দৃষ্টান্ত। ব্রিটেনের আসন্ন গণভোটে ওবামার হস্তক্ষেপ উত্তপ্ত বিতর্কের জন্ম দিয়েছে এবং যারা ইইউ ত্যাগ করতে চান তারা তার বিরুদ্ধে ‘কপটতার’ অভিযোগ এনেছেন। খবর বিবিসি, এএফপি ও ডেইলি মেইলের।

অবশ্য প্রেসিডেন্ট ওবামা স্বীকার করেন যে, ইইউতে থাকা বা না থাকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া শেষ পর্যন্ত ব্রিটিশ ভোটারদেরই বিষয়। কিন্তু তিনি এ কথাও বলেন যে, আপনাদের সিদ্ধান্তের ফলাফল যুক্তরাষ্ট্রের জন্য গভীর স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়। তিনি বলেন, ইউরোপের সমাধিগুলোতে হাজার হাজার আমেরিকানের শায়িত থাকা থেকেই আমাদের সমৃদ্ধি ও নিরাপত্তা সত্যিকার অর্থে কতখানি অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত তার নীরব সাক্ষী। তিনি বলেন, এখন আপনারা যে পথ অনুসরণ করবেন, তা আমেরিকার আজকের প্রজন্মের ভবিষ্যতের ওপর প্রভাব ফেলবে। ওবামা আরও বলেন, ইইউ ব্রিটিশ প্রভাবকে ক্ষুণœ করবে না, প্রসারিতই করবে। শক্তিশালী ইউরোপ ব্রিটেনের বিশ্ব নেতৃত্বের প্রতি কোন হুমকি নয়, এটি বিশ্বে ব্রিটেনের নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষমতা বৃদ্ধি করছে। তিনি বলেন, যুক্তরাজ্য ইইউতে অবস্থান করে কর্মসংস্থান, বাণিজ্য ও আর্থিক প্রবৃদ্ধির দিক দিয়ে উপকৃত হয়েছে। ইউরোপীয় মিত্রদের সঙ্গে একত্রে থাকলে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুক্তরাজ্যের লড়াই করার সামর্থ্য আরও কার্যকর হবে। তিনি লেখেন, গোয়েন্দা তথ্য বিনিময় এবং সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান থেকে শুরু করে কর্মসংস্থানের চুক্তি সম্পাদন ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে এ ধরনের সহযোগিতা যদি ইউরোপজুড়ে প্রসারিত হয়, তাহলে সেটি আরও বেশি কার্যকর হবে। এখন বন্ধু ও মিত্রদের একতাবদ্ধ থাকার সময়। কিন্তু রক্ষণশীল রাজনীতিক বরিস জনসন ওবামার যুক্তিকে ‘অসঙ্গতিপূর্ণ’ এবং ‘ডাহা কপটতাপূর্ণ’ বলে বর্ণনা করেন। তিনি বলেন, আমেরিকানরা কখনও নিজেদের জন্য বা তাদের নিজস্ব গোলার্ধে ইইউর মতো কোন কিছুর কথা ভাবে না। তারা সেটি আমাদের জন্য সঠিক এমন কেন মনে করে? বাইরের চেয়ে ইইউতেই যুক্তরাজ্যের বেশি প্রভাব রয়েছে এ ধারণাকে জনগণ ‘অর্থহীন’ বলে অভিহিত করেন।

জনসন লেখেন, গত পাঁচ বছরে ব্রাসেলসে যুক্তরাজ্যের প্রস্তাব ৪০ বার ভোটে বাতিল হয়ে যায়। এসব পরাজয়ের কারণে যুক্তরাজ্যের সরকার ও ব্যবসায়ীদের বছরে ২৪০ কোটি পাউন্ড বাড়তি খরচ হয়। সাবেক কেবিনেট মন্ত্রী লেইন ডানকান স্মিথ যখন যুক্তরাষ্ট্র উন্মুক্ত সীমান্ত গ্রহণ করছে না, তখন ব্রিটেনকে তা মেনে নিতে বলার কড়া প্রতিবাদ করেন। মেক্সিকো যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার সঙ্গে স্বাক্ষরিত নর্থ আমেরিকান ফ্রি ট্রেড এ্যাগ্রিমেন্টের অন্যতম পক্ষ।

কিন্তু মেক্সিকোর নাগরিকরা আমেরিকাতে আপনা আপনিতেই প্রবেশের কোন অধিকার পায় না অথচ ইইউর ৫০ কোটি নাগরিক ব্রিটেনে অবাধে আসতে পারেন। ডানকান স্মিথ বলেন, আমার কাছে এটি আশ্চর্য লাগে যে, তিনি ব্রিটিশ জনগণকে এমন এক পরিস্থিতি মেনে নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছেন, যা তিনি আমেরিকান জনগণের জন্য সুপারিশ করবেন না। ওবামাকে দ্বৈত নীতি অনুসরণের দায়ে অভিযুক্ত করে ঐ টোরি পার্লামেন্ট সদস্য বলেন, আমি এমন কোন পরিস্থিতির কথা কল্পনাও করতে পারি না, যেখানে তিনি মার্কিন সুপ্রীমকোর্টের কোন বিদেশী আদালতের রায় মানতে বাধ্য থাকার পক্ষে লবিং করবেন।

শীর্ষ সংবাদ:
গণমুখী প্রশাসন ॥ স্বাধীনতার ৫০ বছরে বড় অর্জন         ছাত্রদের কাজ লেখাপড়া, রাস্তায় নেমে যান ভাংচুর নয়         উন্নয়নে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ         ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃত্বের ভূমিকায় থাকবে         ১১ খাতে বিপুল বিনিয়োগ আসার সম্ভাবনা         ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তি চুক্তিতে বদলে গেছে পাহাড়         রামপুরায় ছাত্র বিক্ষোভ, মতিঝিলে গাড়ি ভাংচুর         দেশের প্রথম বর্জ্য বিদ্যুত কেন্দ্র অবশেষে বাস্তবায়ন হচ্ছে         বাল্যবিয়ে রোধে কাজীদের সচেতন করতে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে         হত্যা মিশনে ব্যবহৃত গুলি-অস্ত্র উদ্ধার         শ্রদ্ধা ভালবাসায় জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলামের চিরবিদায়         সুপ্রীমকোর্টে শারীরিক উপস্থিতিতে বিচার কাজ শুরু         খালেদা জিয়াকে স্তব্ধ করে দিতে চায় সরকার ॥ ফখরুল         মুক্তিপণের টাকা আদায় হচ্ছিল মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে         সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে লাল সবুজের মহোৎসবে মুখরিত হাতিরঝিল         ৯০ কার্যদিবসে সম্প্রীতি বিনষ্টের মামলা নিষ্পত্তি করতে হবে         এইচএসসি ও আলিম পরীক্ষা উপলক্ষে যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ডিএমপি         আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমলে ব্যবস্থা নেবো : অর্থমন্ত্রী         হৃদরোগ ঝুঁকি হ্রাসে সরকারের যুগান্তকারী পদক্ষেপ         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় আরও ২ জনের মৃত্যু