১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

‘ধর্মীয়ভাবে অনেক প্রাণীকে নোংরা মনে করা হয়’


অনলাইন ডেস্ক ॥ রাজধানীতে একটি বেওয়ারিশ কুকুর পেটানোর অভিযোগে তিন যুবককে বুধবার গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

অভয়ারণ্য নামের নামের একটি সংগঠনের মামলায় ওই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জীবজন্তুর প্রতি নিষ্ঠুরতা আইনে মামলাটি হয়েছে।

প্রাণীর প্রতি কেন এমন নিষ্ঠুরতা?

বিশ্বের অনেক দেশে কুকুর বা বিড়ালের মতো প্রাণীর সাথে মানুষের সখ্যতার গল্প শোনা যায়।

বাংলাদেশে গরু বা ছাগলের মতো অনেক প্রাণীর সাথেই গ্রাম বাংলার মানুষের ভাল বন্ধুত্ব দেখা গেলেও শহরে এ ধরনের প্রবণতা কম দেখা যায়, বিশেষ করে কুকুর বা বণ্য প্রাণীর প্রতি নিষ্ঠুর আচরণ লক্ষ্য করা যায়।

এ প্রসঙ্গে সমাজবিজ্ঞানী অধ্যাপক খন্দকার মোকাদ্দম হোসেন বিবিসিকে বলেছেন, “ভয় আতঙ্ক ও ঘৃণার কারণে কুকুর বা বণ্য প্রাণীর প্রতি আচরণটা নিষ্ঠুর হয়ে যায়”।

জলাতঙ্ক রোগ হবার আশঙ্কায় কুকুরকে অনেকে ভয় পান ও রাস্তায় দেখলেই নিষ্ঠুর আচরণ করেন।

“বিদেশে কুকুরের মতো প্রাণীকে নানাকাজে ব্যবহার করা হয়। যেমন: অন্ধকে পথ দেখানো, বৃদ্ধদের সঙ্গী বা পুলিশের কাজে ব্যবহার- বাংলাদেশে এমন সংস্কৃতি গড়ে ওঠেনি এর মূল কারণ সামাজিক ও সাংস্কৃতিক পরিবেশ। যদিও উচ্চবিত্ত পরিবারে কিছু ব্যতিক্রম আছে”- বলছিলেন মোকাদ্দম হোসেন ।

সমাজবিজ্ঞানী মোকাদ্দম হোসেন আরও বলেছেন, “সাংস্কৃতিকভাবে বাংলাদেশের মানুষ যেভাবে গড়ে ওঠেছে সে কারণে অনেকের মনে প্রাণীদের প্রতি ভালো আচরণ দেখো যায়না। আর অর্থনৈতিকভাবে প্রাণী লাভজনক মনে না করার কারণেও এমনটা হয়। আরেকটা কারণ হলো ধর্মীয়ভাবে অনেক প্রাণীকে নোংরা মনে করা হয়, সেকারণে আচরণটাও অনেক সময় নিষ্ঠুর হয়ে যায়”। সূত্র: বিবিসি বাংলা