ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯

এসএম নাজমুল হক ইমন

ভালবাসার রঙে রঙিন ক্যাম্পাস

প্রকাশিত: ০৬:১১, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

ভালবাসার রঙে রঙিন ক্যাম্পাস

লাস্ট বেঞ্চের ভালবাসা কোন কোন স্মৃতি আমাদের মনে থাকে সব সময়। তেমনি একটি স্মৃতি শেষ বেঞ্চের বসা। ছাত্র জীবনে খুব কম লোকই আছে যারা শেষ বেঞ্চে বসেনি। আর এই স্বপ্নটা যেন শেষই হতে চায় না রুমমেটদের ডাকাডাকিতেও। প্রচ- অনীহা স্বপ্নটায়! ক্যাম্পাসের প্রথম দিককার দিনগুলোতে প্রায়ই এ কারণে ক্লাস ধরতে দেরি হয়ে যেত অমিতের। আবাসিক হলের ব্যালকনি পেরিয়ে, সিঁড়ি ভেঙ্গে ক্লাসের একদম লাস্ট বেঞ্চ। আক্ষেপ নেই- ব্ল্যাকবোর্ডে ম্যাথ ক্লাসের দুর্বোধ্য সব ইকুয়েশন, চোখ সেখানে। কান অন্যখানে সেখানে বাজছে হাবিব-ন্যান্সির গাওয়া প্রেমের গানগুলো। আর মনটা ওই রাজকুমারীর কাছে। ক্যাম্পাসে প্রথম দেখা- সেই মেয়েটির কাছেই মনটাকে তালাবদ্ধ করে রেখেছে সে। চাবি হারিয়ে ফেলেছে। ফার্স্ট ইয়ারের লাস্ট বেঞ্চে বসে তখনই লেখা কবিতাটি কয়েকদিন পরই চলে যায় রাজকন্যার কেমিস্ট্রি খাতার ভাঁজে। তারপর? তারপর ক্যাম্পাসের আকাশে ছড়িয়ে যাওয়া ভালবাসার হাওয়ায় উড়াল দেয় অমিতের মন। প্রতিবছর ‘ভ্যালেন্টাইন্স ডে’ এলে প্রথম ভালবাসার কবিতাটি মনের ভেতর ডুব দিয়ে পড়ে নেয় সে। তবে রাজকুমার অমিত, তার রাজকন্যার সঙ্গে ফুচকা খেতে পারল কি-না তা জানা যায়নি। ভালবাসার সবকিছু যে জানতে নেই। থাক না, ফার্স্ট ইয়ারে লাস্ট বেঞ্চের রহস্য। আড্ডায় ভালবাসা আড্ডার মাঝে, চায়ের দোকানে- শাহবাগ মোড় থেকে টিএসসি, ক্লাস শেষে আড্ডার আসর। পড়াশোনার একই পথের পথিক বিশ্ববিদ্যালয়ের এ ছাত্রছাত্রীরা যেন জড়িয়েছেন ভালবাসার আড্ডায়। ‘ভ্যালেন্টাইন্স ডে’ নিয়ে নিজ নিজ অনুভূতি প্রকাশ করতে কার্পণ্য করেননি কেউ। সেকেন্ড ইয়ারের আকাশ বলেন, ‘ভ্যালেন্টাইন্স ডে’ অবশ্যই একটি বিশেষ দিন। অস্থির পৃথিবীতে অন্তত একটি দিন আনুষ্ঠানিকভাবে প্রিয়জনকে আবারও বলা যায় পরিচিত শব্দটি- ‘ভালবাসি।’ এদিনটির অনুভূতিই অন্যরকম। আর থার্ড ইয়ারের সুমন বলেন, ‘আসলে ভালবাসা প্রতিদিনের আমার কাছে শুধু ১৪ তারিখ ভ্যালেন্টাইন্স ডে নয়, প্রতিটি দিনই প্রিয়জনকে ভালবাসার।’ তবে ফারিয়ার ভাষায়, ‘ভ্যালেন্টাইন্স ডে শুধু তরুণ-তরুণীর প্রেমকে ঘিরেই নয়, বাবা-মা-ভাইবোন-বন্ধু সবাইকে নতুন করে ভালবাসা জানানও ভ্যালেন্টাইন্স ডে উদযাপনের অংশ।’ ভালবাসার সূর্যোদয়ে বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে বর্ণিল ও আনন্দচ্ছটা জীবন। একটি প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা অপরিচিত মুখগুলো একসময় সবার কাছে হয়ে ওঠে খুব চিরচেনা। দীর্ঘ সময়ের জন্য পরস্পরের মধ্যে গড়ে ওঠে নিবিড় বন্ধন। হাসি, ছন্দেআনন্দে, প্রেম বিরহে ভরপুর থাকে এ জীবনটা। তবে এখানে প্রেম বিষয়টি বিভিন্ন জনের কাছে বিভিন্ন রকম হয়। কেউ শুধু অনাবিল সুখকে পছন্দ করে বেছে নেন, ঠিক একইভাবে আবার বিরহ নামক মানসিক যন্ত্রণার কাছেও হন পরিচিত। এর মাধ্যমে অনেকের কাছে জীবন একটি বিভীষিকাময় অধ্যায় হিসেবে রচিত হয়। ফলে অনেকেই এর জ্বালা সইতে না পেরে দেন আত্মাহুতি। আবার কারও কাছে ছাত্রজীবনে প্রেমের চেয়ে বন্ধুত্বের মূল্য অনেক বেশি। বিশ্ববিদ্যালয়ে সহ-শিক্ষার ফলে এখানে ছেলে কিংবা মেয়ের মধ্যে বন্ধুত্বের কোন তফাৎ গড়ে ওঠে না। ফলে হাসি আড্ডা গানে সবাই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে হেসে-খেলে মুখরিত করেন আনন্দের হাটবাজার। বন্ধুত্ব ও ভালবাসা ‘ভ্যালেন্টাইন্স ডে’ যে শুধু রাজকুমার-রাজকুমারীর প্রেমের কাছে আবদ্ধ নয়, বন্ধুত্বের ভালবাসা এ দিনটিকে নিয়ে গেছে আরেক উচ্চতায়। যেমন- রায়হান এবং নূপুরের ব্যাপারটা। ফার্স্ট ইয়ার কোনভাবে পার হলেও সেকেন্ড ইয়ার থেকে ওদের গল্পসল্প, আড্ডাবাজি, এক রিকশায় ঘুরে বেড়ানো ক্লাসের সবাইকে নাড়া দেয়। যা হয়- গুঞ্জন শুরু হয় প্রেম চলছে দু’জনের- রায়হান এবং নূপুর স্বীকারও করে তারা একজন আরেকজনকে ভালবাসে। তাহলে আর কী? গল্প তো শেষ! উহু! রায়হান-নূপুরের এক কথা- তারা পরস্পর বন্ধু। বন্ধুত্বের ভালবাসা। তাদের সম্পর্ক নিয়ে কৌতুহলী ক্লাসের অনেকেই ভিড় করতে থাকে এ দলে। শুরু হয় বন্ধুদের জায়গান। ভালবাসার জয়গান। আর ভ্যালেন্টাইন্স ডেতে সবাই একসঙ্গেই ছিল। ফুল, কার্ড, টি-শার্ট, চকোলেট, নানা ধরনের গিফট পরস্পরকে দিয়ে দিনটি উদযাপন করে আহসান, কনক, সাব্বির, সানজিদা, রওনক ও শুভ। ক্লাস-ক্যান্টিনে ভালবাসা ভালবাসার সূর্যোদয় ফাগুনের কৃষ্ণচূড়া আর কৃষ্ণচূড়ার আকাশে উজ্জ্বল স্বপ্নগুলো। ক্যাম্পাসের স্বপ্নগুলো আঁকড়ে ধরে একই বাঁধনে বেঁধেছে ভালবাসার বন্ধন। ক্লাসের পড়াশোনা থেকে শুরু করে ক্যান্টিনের আড্ডা, চায়ের কাপের ধোঁয়া, নোট-ক্লাস লেকচার-শিক্ষকের স্নেহ, সবকিছুর মধ্যেই ভালবাসার স্পর্শ। ‘ভ্যালেন্টাইন্স ডে’ তাই ছাত্র-শিক্ষকের মধ্যকার সম্পর্ককে দৃঢ় করতে পারে। শত শিক্ষার্থীর পদচারণায় ভালবাসায় সিক্ত থাকুক ক্যাম্পাসগুলো- এমনই প্রত্যাশা সবার। আজ ক্যাম্পাসের কৃষ্ণচূড়ায় আগুন লেগেছে। তাই পিছিয়ে যাওয়া-ভীত হওয়ার সময় নয়, এখন সময় শুধুই ভালবাসার। রংতুলির ক্যানভাসে রংতুলির স্পর্শে একেকটা সৃষ্টি ক্যানভাসের বুকে, এ তো শিল্পীদের ভালবাসার ফসল। চারুকলা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীদের ভালবাসায় সৃষ্টি হয় একেকটি শিল্পকর্ম। ‘ভ্যালেন্টাইন্স ডে’ তাই ছুঁয়ে যায় জয়নুল গ্যালারি, ছবির হাটের সীমানা পেরিয়ে ক্যাম্পাসের হৃদয়ে ছাত্রছাত্রীদের ভালবাসায়।