রবিবার ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৯ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

খাদ্য অপচয় ও আমাদের দায়

  • সামিহা খাতুন

‘ক্ষুধার রাজ্যে পৃথিবী গদ্যময়,/ পূর্ণিমার চাঁদ যেন ঝলসানো রুটি।’ কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের ওই দুটি লাইনের মধ্য দিয়ে বর্তমান পৃথিবীর নির্মম বাস্তবতা নিহিত হয়েছে। সভ্যতার উৎকর্ষের এ যুগেও পৃথিবীর ৪০ ভাগ মানুষ মানবেতর জীবনযাপন করছে। তাদের চারপাশে কেবল অভাব-অনটন, ক্ষুধা-তৃষ্ণা ও নানা সমস্যার পাহাড়। ধনতান্ত্রিক সভ্যতার তৈরি করা কৃত্রিম সঙ্কট মানুষের মুখ থেকে কেড়ে নিয়েছে অন্ন। ক্ষুধা নিবারণের জন্য একবেলা খাবার যেন একটি ক্ষুধার্ত মানুষের নিকট কাম্য। জীবন-জীবিকার সমস্যায় আচ্ছন্ন হাতে এক বেলার খাবার যোগাড় করতে পারলেই যেন ক্ষুধানিবৃত্তি হয়। ‘অন্ন দে মা অন্নদা’- বলে আকুল কান্নায় কেঁদেছিলেন রামপ্রসাদ। নজরুল লিখেছেন- ‘দারিদ্র্য অসহ/পুত্র হয়ে জায়া হয়ে কাঁদে অহরহ/আমার দুয়ার ধরি!’-ক্ষুধার্ত মানুষের অন্তরের কান্না কবিপ্রাণকে করেছিল বিচলিত। তাই প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরা চাঁদ দেখে এখন কোন কোন কবিচিত্ত বলেন, ‘আজকের চাঁদ পুড়ে হোক বাঁকা কাস্তে’ বা ‘কাস্তের ফলার মতো চাঁদ’। কবির মন তো উপমা-উৎপ্রেক্ষা জন্মভূমি। ক্ষুধার্ত মানুষের হাহাকারে বাস্তববাদী কবি কল্পনার স্বপ্নলোক ত্যাগ করে বাস্তবের রূঢ় জগতে দৃষ্টিপাত করেন। তার তখন মনে হয় ক্ষুধার্তের জীবনে পদ্য নেই, আছে শুধু খাদ্য।

মানুষের পাঁচটি মৌলিক অধিকারের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হচ্ছে খাদ্য। অথচ বিশ্বব্যাপী দেখা দিচ্ছে খাদ্য অপচয় এক ভয়ঙ্কর চিত্র। জাতিসংঘের পরিবেশ কর্মসূচী (ইউএনইপি) এবং তাদের সহযোগী সংস্থা ডব্লিউআরএপির যৌথ উদ্যোগে তৈরি খাদ্য অপচয় সূচক প্রতিবেদন-২০২১ প্রকাশ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালে বিশ্বব্যাপী ৯৩ দশমিক ১ কোটি টন খাদ্য অপচয় করা হয়েছে। এর মধ্যে গৃহস্থালি থেকে নষ্ট হয়েছে ৬১ শতাংশ খাবার। ২৬ শতাংশ খাবার নষ্ট করেছে খাদ্য বিতরণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো, আর খুচরা বিক্রয়কেন্দ্রগুলো থেকে নষ্ট হয়েছে বাকি ১৩ শতাংশ খাবার। মানুষের জন্য উৎপাদিত খাবারের মধ্যে অপচয় হয় ১৩০ কোটি টন (মোট উৎপাদনের এক-তৃতীয়াংশ)। জাতিসংঘের প্রতিবেদন অনুসারে বাংলাদেশে বছরে পরিবার প্রতি খাদ্য অপচয় হয় গড়ে ৬৫ কেজি, আর গৃহস্থালি থেকে দেশে প্রতি বছর মোট খাদ্য অপচয়ের পরিমাণ ১ কোটি ৬ লাখ টন। এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশেই বছরে ১ কোটি ৬ লাখ ১৮ হাজার ২৩৩ টন খাদ্যের অপচয় হয়। রিপোর্টে বলা হয়, প্রতি বছর বিশ্বে মাথাপিছু ৭৪ কেজি করে খাবারের অপচয় হয়। ‘দ্য ফুড ওয়েস্ট ইনডেক্স রিপোর্ট ২০২১’ অনুসারে ২০১৯ সালে বিশ্বজুড়ে যে পরিমাণ খাবার তৈরি হয়েছে তার ১৭ শতাংশই অপচয় করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক কৃষি উন্নয়ন তহবিলের প্রধান বলেছিলেন, সম্পদের স্বল্পতা নয়, খাদ্যের অপচয়ই বিশ্বজুড়ে ক্ষুধার প্রধান কারণ।

একদিকে খাদ্যের অপচয় হচ্ছে আর অন্যদিকে বিশ্বে ক্ষুধার্ত মানুষের সংখ্যা ৩০ কোটি ছাড়িয়ে গেছে; প্রায় ৮০ কোটি মানুষ প্রচ- অপুষ্টিতে ভুগছে। এখনও পৃথিবীর কোটি কোটি মানুষ ক্ষুধার জ্বালায় কাতর। সিরিয়া, লিবিয়া ও আফ্রিকার অনেক দেশে মানুষ ঘাসের স্যুপ, ঘাসের রস, ডাস্টবিনে ফেলে দেয়া খাবার খেয়ে দুর্ভিক্ষের সঙ্গে লড়াই করে যাচ্ছে। মা তার কোলের শিশুকে বিক্রি করে দিচ্ছে। মৃত্যুর আগে সিরীয় এক ছোট্ট শিশু আর্তনাদ করে বলছে-‘আমি আল্লাহকে সব বলে দিব।’ বিশ্বে প্রতিবছর যে পরিমাণ খাবারের অপচয় হয় তা উৎপাদনে ১৪০ কোটি হেক্টর জমি ব্যবহার হয়, যা বিশ্বের মোট কৃষি জমির ২৮ শতাংশ। এ বাড়তি খাবার উৎপাদনে প্রতিনিয়ত বনভূমিকে কৃষি জমিতে পরিণত করা হচ্ছে। এর ফলে পরিবেশ ও জলবায়ুর ভারসাম্য রক্ষা কঠিন হয়ে পড়ছে। ফলমূল, শাকসবজি, মাছ-মাংস উৎপাদনে কীটনাশক, রাসায়নিক সার ব্যবহারে নদী-নালা, খাল-বিল, ফসলের খেত বিষময় হয়ে উঠছে। এতে মানুষসহ জীবজন্তু, পশু-পাখি বিভিন্ন ধরনের রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। খাদ্য উৎপাদনে জ্বালানির ব্যবহার গ্রিনহাউজ গ্যাস নিঃসরণ বাড়িয়ে দিচ্ছে। কার্বন নিঃসরণসহ পরিবেশ দূষণে সর্বোচ্চ ভূমিকা রাখে অপচয়কৃত খাবার আর এতে প্রতিবছর ৩৩০ কোটি টন কার্বন-ডাই-অক্সসাইড বাতাসে ছড়াচ্ছে।

আমাদের সমাজের মানুষের মাঝে কিছু অভ্যাস খাবার অপচয়ের ক্ষেত্রে বিরাট ভূমিকা পালন করে। বর্তমান সময়ে আমাদের সমাজে সবচেয়ে লক্ষণীয় হলো অনুষ্ঠানে নিজেদের আর্থিক সামর্থ্য প্রদর্শনের জন্য খাবারের নানারকম পদের সংখ্যা ও পরিমাণ অনেক বেশি থাকে। নানারকম উৎসবের দিনগুলোতে খাবার অপচয় পরিমাণ যেন আরও কয়েকগুণ বেড়ে যায়। বিয়ে, জন্মদিন, পারিবারিক উৎসব, অনুষ্ঠান আয়োজনের সময় অপরিকল্পিত খাবার ব্যবস্থাপনায় প্রচুর খাবার অপচয় হয়। আবার বিশ্বজুড়ে বছরে মোট খাবারের ১৭ শতাংশ রেস্তরাঁ ও দোকানে অপচয় হয়। বিভিন্ন হোটেল-রেস্টুরেন্টে দেয়া হচ্ছে নানা ধরনের লোভনীয় বুফে অফার। হোটেল-রেস্তরাঁ বুফেতে চলে খাদ্য অপচয়ের মহোৎসব। কোন মত, প্রথা অথবা ধর্ম অপচয়কে সমর্থন করে না; বরং সব ধর্মেই মিতব্যয়িতাকে উৎসাহ দেয়া হয়েছে।

খাদ্য অপচয় রোধ করতে হলে সকলের মাঝে খাদ্য অপচয় সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করতে হবে এবং একই সঙ্গে তৈরি করতে হবে খাদ্য শৃঙ্খল বিধান এবং তা মানার জন্য যথেষ্ট প্রচেষ্টা। সরকারী ও বেসরকারী নানা ধরনের উদ্যোগ গ্রহণের মাধ্যমে ফসল উৎপাদনের পর থেকে খাবার পরিবেশন পর্যন্ত নীতিমালা ও সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে এবং তা নিয়মিত মনিটরিং-এর ব্যবস্থা করতে হবে। খাদ্য অপচয় রোধে খাদ্য উৎপাদন, জমিতে ফসল ফলানোর পর সেই ফসল কাটা, সংরক্ষণ, পরিবহন, প্রক্রিয়াকরণে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।

এছাড়াও প্রতিটি ব্যক্তিকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সচেতন হতে হবে। নিজ নিজ বাড়িতে প্রয়োজনের অতিরিক্ত রান্না নয় এবং কেনাকাটায় সুনির্দিষ্ট তালিকা করা, শাকসবজি সঠিক নিয়মে সংরক্ষণ করা, জিনিসপত্র কেনার পূর্বে মেয়াদ দেখে কেনা ইত্যাদি বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে। সেইসঙ্গে সমাজে আমরা যেহেতু দলবদ্ধভাবে বসবাস করি, সেহেতু আমাদের আশপাশে বসবাসকারী মানুষের মাঝে খাদ্যের অভাব আছে কিনা সে বিষয়ে সচেতন হতে হবে এবং নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। ভবিষ্যতের পৃথিবী হবে একটি ক্ষুধামুক্ত পৃথিবী- এই আশাই ব্যক্ত করছি।

লেখক : শিক্ষার্থী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

shamiha67@gmail.com

শীর্ষ সংবাদ:
‘বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠার চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রস্তুত বাংলাদেশ’         ‘পল্লী উন্নয়ন’ পদক পেলেন শেখ হাসিনা         ক্ষমতায় থাকতে দেওয়া না দেওয়ার বিএনপি কে?         করোনাভাইরাস : মৃত্যুশূন্য দিনে বেড়েছে শনাক্ত         প্রধানমন্ত্রী বিশ্বাস করেন এদেশের জনগণের ওপর : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         নির্বাচনে প্রতিযোগিতা থাকবে কিন্তু প্রতিহিংসা থাকবে না ॥ ইসি আহসান হাবিব         তথ্য-উপাত্ত বোধগম্যে বাজেট এনালাইসিস অ্যান্ড মনিটরিং ইউনিট কাজ করছে : স্পিকার         বোরো সংগ্রহ সফল করতে হবে : খাদ্যমন্ত্রী         জন্ম-মৃত্যুর সনদ পাওয়ায় ভোগান্তি রোধে হাইকোর্টের রুল         ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগ উসকানি দেয়নি, দিয়েছে ছাত্রদল : তথ্যমন্ত্রী         সত্যিকারের জ্ঞান অর্জন করে সোনার মানুষ হতে হবে ॥ শিক্ষামন্ত্রী         আরও ৬ বীরাঙ্গনা পেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি         খোঁজ মিলল নেপালের সেই প্লেনের         দেশের ৪৫ শতাংশ মানুষের ক্রয় ক্ষমতা ভালো : বাণিজ্যমন্ত্রী         মীরসরাইয়ে ওসির আল্টিমেটামের পর র‌্যাবের খোয়া যাওয়া অস্ত্র উদ্ধার         দক্ষ মানবসম্পদ সরবরাহ ও গবেষণা বৃদ্ধিতে কাজ করছে রাবি ॥ ভিসি         বরিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় ১০ বাসযাত্রী নিহত         ঢাকা থেকে ১৬৫ যাত্রী নিয়ে কলকাতার উদ্দেশ্য মৈত্রী এক্সপ্রেস         হলের পুকুরে ডুবে ঢাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু         শাহজিবাজার বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্রে আগুন