রবিবার ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

গলাচিপায় জোয়ারে বাঁধ ভেঙ্গে আমন ক্ষেত ডুবে গেছে

স্টাফ রিপোর্টার, গলাচিপা ॥ জোয়ারের পানির চাপে ভেঙ্গে পড়েছে গলাচিপা-বাউফল সড়ক। এতে করে তিনটি উপজেলার অভ্যন্তরীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। গলাচিপা উপজেলার ৬টি গ্রামের কয়েক হাজার একর জমির আমন ক্ষেত জোয়ারের পানির নিচে তলিয়ে গেছে। জলাবদ্ধতার কবলে পড়েছে ৭-৮শ’ পরিবার। স্থানীয় প্রশাসন জরুরীভিত্তিতে সড়কটি মেরামতের উদ্যোগ নিয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলা গ্রোথ সেন্টার কানেক্টিং প্রকল্পের আওতায় ১০ বছর আগে গলাচিপা উপজেলা সদর থেকে খারিজ্জমা পর্যন্ত কার্পেটিং সড়ক নির্মাণ করা হয়। এ সড়কটি পটুয়াখালী সদর, বাউফল ও গলাচিপা উপজেলার কয়েক লাখ মানুষ অভ্যন্তরীণ যোগাযোগে ব্যবহার করে। এছাড়া ঢাকার সঙ্গেও যোগাযোগে এ সড়ক ব্যবহার হয়। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, গত তিন-চার দিন ধরে সড়কের কালারাজা গ্রামের গাজীবাড়ির কাছে চিকনিকান্দী শাখা খালের জোয়ারের পানির প্রবল চাপে ধীরে ধীরে করে ভাঙ্গন শুরু হয়। মঙ্গলবার বিকেলে সড়কের অন্তত ১০ ফুট এলাকা পানির চাপে ভেসে যায়। বুধবার দুপুরে সরেজমিনে দেখা গেছে, ভাঙ্গনের দুই পাশের সড়কে শত শত গাড়ি আটকা পড়েছে। তিন উপজেলার অভ্যন্তরীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে। স্থানীয় যুবকরা নিজেরা উদ্যোগী হয়ে বাঁশের সাঁকো বানিয়ে কোনমতে মোটরসাইকেল পারাপার করছে। কিন্তু তিন-চার চাকার যানবাহন চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে গেছে। ঢাকার সঙ্গেও এসব এলাকার যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। সরেজমিনে আরও দেখা গেছে, সড়কের ভাঙ্গন অংশ দিয়ে প্রবল বেগে পানি গ্রামগুলোতে প্রবেশ করছে। এতে করে এরইমধ্যে মাঝগ্রাম, উত্তর পানখালী, দক্ষিণ পানখালী, কালারাজা, হরিদেবপুর ও কচুয়া গ্রাম পানির নিচে তলিয়ে গেছে। স্থানীয় কৃষক রফিকুল ইসলাম জানান, এসব গ্রামের অন্তত ৭-৮ হাজার একর জমির রোপা আমন ক্ষেত কোমর সমান পানির নিচে ডুবে গেছে। পূর্ণিমা পরবর্তী জো’ এর কারণে পানির চাপ দিন দিন আরও বাড়ছে। অবিলম্বে সড়কের ভেঙ্গে যাওয়া অংশ বন্ধ করে পানির স্র্রোত আটকানো না হলে এবং ক্ষেতের পানি নিষ্কাশন করা না গেলে জমিতে কোন ফসলই হবে না। আরেক কৃষক মোশারেফ হোসেন বলেন, গ্রামগুলোর ৭-৮শ’ বাড়িঘর পানির নিচে ডুবে গেছে। বহু পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। গবাদিপশু নিয়ে লোকজন খুবই সঙ্কটে পড়েছে। স্থানীয়রা আরও জানিয়েছেন, চিকনিকান্দী শাখা খালের পানির স্র্রোতে একই সড়কের কচুয়া, ফকির বাড়ির দরজা ও দারোগা বাড়ির দরজার অংশেও ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। যা ক্রমে বাড়ছে। এ নিয়ে এলাকার লোকজন আতঙ্কিত।

সরেজমিনে ভাঙ্গনস্থল পরিদর্শন শেষে এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌসিফ আহমেদ জানান, উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদ যৌথভাবে জরুরীভিত্তিতে ভাঙ্গন রোধে ব্যবস্থা গ্রহণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আখম জাহাঙ্গীর হোসাইন এমপি এ বিষয়ে জানান, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরকে জরুরীভিত্তিতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

শীর্ষ সংবাদ:
বৃষ্টির কারণে দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু হয়নি         গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মৃত্যু কমেছে প্রায় দেড় হাজার         অবিশ্বাস্য অর্জন ॥ বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল         বাসযোগ্য পৃথিবী গড়তে ঐক্য চাই         বঙ্গবন্ধুর শাসনব্যবস্থা নিয়ে গবেষণা করুন         ছাত্রলীগ নেতাসহ ৯ শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার         শক্তি হারিয়ে জাওয়াদ গভীর নিম্নচাপে পরিণত         সড়কে অনিয়মের বিরুদ্ধে লাল কার্ড প্রদর্শন শিক্ষার্থীদের         এলডিসি উত্তরণে ১০ বছরের মাস্টারপ্ল্যান         উন্নয়নে পাকিস্তান আমাদের ধারে কাছেও নেই         আমদানির জ্বালানি তেল আর লাইটারিং করতে হবে না         পয়োনিষ্কাশন ব্যবস্থা রাজধানীর ৮০ ভাগ ভবনে নেই         চট্টগ্রামে অটোরিক্সা-ডেমু ট্রেন-বাস সংঘর্ষে পুলিশসহ হত ৩         খালেদাকে বিদেশ নিতে কূটনৈতিক পাড়ায় বিএনপির দৌড়ঝাঁপ         আন্দোলনেই খালেদার বিদেশে চিকিৎসা নিশ্চিত করা হবে         বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় ঐক্যের বিকল্প নেই ॥ রাষ্ট্রপতি         করোনা ভাইরাসে আরও ৬ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৭৬         ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ ॥ সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত         বৈধ সরকারের পতন ঘটানো যাবে না: কৃষিমন্ত্রী         ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ ॥ সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ ঘোষণা